উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

রায়গঞ্জ সূর্যদয় মুক ও বধির হোমে ভাইফোটা পালিত হল

রায়গঞ্জ সূর্যদয় মুক ও বধির হোমে ভাইফোটা পালিত হল

ভাই এর কপালে দিলাম ফোঁটা যমের দুয়ারে পড়ল কাঁটা কথা বলতে না পারলেও এভাবে হোমের ৪৯ জন ছেলেকে ফোঁটা দিলেন রায়গঞ্জ সূর্যদয় মূক বধির হোমের ১৩ জন মহিলা আবাসিক।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: ভাই এর কপালে দিলাম ফোঁটা যমের দুয়ারে পড়ল কাঁটা কথা বলতে না পারলেও এভাবে হোমের ৪৯ জন ছেলেকে ফোটা দিলেন রায়গঞ্জ সূর্যদয় মূক বধির হোমের ১৩ জন মহিলা আবাসিক। ভাইফোঁটা উপলক্ষে আজ খাওয়া দাওয়াতেও বিশেষ আয়োজন  করেছে হোম কর্তৃপক্ষ।

রায়গঞ্জ কর্নজোড়া রায়গঞ্জ সূর্যদয় মূকবধির হোম।এই হোমে রয়েছে ৪৯ জন ছেলে এবং ১৩ জন মেয়ে। প্রতিবছর এই হোমের মূক বধির মেয়ের আবাসিক ভাই দাদাদের ভাইফোটা দিয়ে থাকে।ভাইফোঁটা উপলক্ষে সকাল হতে আবাসিক ছেলে মেয়েরা স্নান করে নতুন জামাকাপড় পড়ে ফোঁটা দেবার জন্য তৈরী হয়। প্রতিবছর নিজস্ব আবাসন ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে অধ্যক্ষের ঘরে সামনে বসে ফোটা নেয়।

এবারে চিত্রটা একটু অন্য রকম।করোনা আবহের কারনে এবারে ভাইরা নিজস্ব হোষ্টেল ছেড়ে বেরিয়ে আসে নি।বোনেরা ভাই দাদাদের হোষ্টেলে গিয়ে ফোঁটা দেয়। ভাই বোন প্রত্যেকেই মূক ও বধির।কিন্তু বিগত বছর গুলোতে তারা যেভাবে ফোঁটা দেয় তাতে অনেকটাই ধাতস্ত হয়ে গেছেন।মুখে আওয়াজ করতে না পারলেও কপালে চন্দন দিয়ে কি বলতে হয় সেটা তারা হাবভাবে বুঝিয়ে দিয়ে দিয়েছে।হোম কর্তৃপক্ষ তাদের জন্য মিষ্টির ব্যবস্থা করেছে।ফোঁটা দেবার পর ভাইদের পাতে মিষ্টি তুলে দেওয়া হয়েছে। অন্যরা যেমন ভাইফোটা নিচ্ছে তেমনি সূর্যদয় মুকবধির হোমের আবাসিকরা ফোঁটা পেয়ে খুশি। প্রত্যেকের মুখেই আজ হাসি। হোমের অধ্যক্ষ পার্থসারথী দাস জানিয়েছেন,।ভাইফোঁটা উপলক্ষে আজ হোমের আবাসিকদের দুপুরে মাছের ব্যবস্থা করা হয়েছে।এছাড়াও খাওয়ার পর তাদের পাতে রসগোল্লার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

Published by: Akash Misra
First published: November 16, 2020, 6:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर