লক্ষ্মীপুজোর বাজার আগুন, সামগ্রী কিনতে গিযে মধ্যবিত্তের হাতে ছেঁকা

লক্ষ্মীপূজার বাজার করতে এসে মধ্যবিত্তদের হাত পুড়ছে। ফল থেকে প্রতিমা দাম আকাশ ছোঁয়া হওয়ায় লক্ষ্মীর বাজারে কাটছাট করতে হচ্ছে। শুক্রবার এবং শনিবার দু’দিন লক্ষ্মীপুজো।

লক্ষ্মীপূজার বাজার করতে এসে মধ্যবিত্তদের হাত পুড়ছে। ফল থেকে প্রতিমা দাম আকাশ ছোঁয়া হওয়ায় লক্ষ্মীর বাজারে কাটছাট করতে হচ্ছে। শুক্রবার এবং শনিবার দু’দিন লক্ষ্মীপুজো।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: লক্ষ্মীপূজার বাজার করতে এসে মধ্যবিত্তদের হাত পুড়ছে। ফল থেকে প্রতিমা দাম আকাশ ছোঁয়া হওয়ায় লক্ষ্মীর বাজারে কাটছাট করতে হচ্ছে। শুক্রবার এবং শনিবার দু’দিন লক্ষ্মীপুজো। তাই আজ লক্ষীপুজোর বাজার জমে উঠেছে রায়গঞ্জ মোহনবাটী এলাকায়। মৃৎ শিল্পীরা প্রতিমা এবং পট নিয়ে বাজারে হাজির হয়েছে। পুজোর বাজার করতে রায়গঞ্জের মানুষেরা সেখানে ভিড় জমিয়েছেন।

ফল থেকে প্রতিমা যেখানেই হাত দিচ্ছেন সেখানেই হাত পুড়ছে। প্রতিমার দাম ৪০ থেকে ৩০০ টাকা। গত বছরে চাইতে এবারে প্রতিমার দাম প্রায় দ্বিগুন। মৃৎশিল্পীরা জানিয়েছেন,প্রতিমা তৈরির সামগ্রীর দাম বেড়েছে। বেড়েছে কারিগরের মজুরি। তাই প্রতিমার দাম বাড়াতে হয়েছে। অনেক ক্রেতা এসে প্রতিমার দাম শুনে ফিরে যাচ্ছেন। একইভাবে ফল দাম।

১০০ টাকা নীচে কোন ফলই পাওয়া যাচ্ছে না। এমনকী, জল সিঙ্গারা দামও ১০০ টাকা কেজি। তাই কোনমতে লক্ষ্মীপূজা সারতে হচ্ছে।মিহির দাস নামে এক ক্রেতা জানালেন করোনা আবহে পুজো সামগ্রীর দাম আকাশ ছোঁয়া। এই পরিস্থিতিতে পুজোর সামগ্রী কেনা তাদের চরম কষ্টকর হয়ে পড়েছে। তবু লক্ষ্মীপূজা বলে কথা। সামান্য হলে তাদের বেশি দামেই পূজা সামগ্রী কিনতে হচ্ছে। মৃৎ শিল্পী গোপাল পাল জানান,মাটি রঙ এবং কারিগরির দাম বেড়ে যাওয়ার কারনেই প্রতিমার দাম বাড়াতে হচ্ছে। গৃহবধূ রত্না দাস জানান, লক্ষ্মী পূজার সামগ্রী কিনতে তাদের হাতে লাগছে।তাই সব কিছুই অল্প অল্প করে নিয়ম রক্ষার পুজো করা হবে।

Published by:Akash Misra
First published: