Mamata on Modi: নারায়ণী সেনা নিয়েও মিথ্যে দাবি প্রধানমন্ত্রীর? কোচবিহারে 'প্রমাণ' দিলেন মমতা

Mamata on Modi: নারায়ণী সেনা নিয়েও মিথ্যে দাবি প্রধানমন্ত্রীর? কোচবিহারে 'প্রমাণ' দিলেন মমতা

নারায়ণী সেনা নিয়েও মিথ্যে দাবি প্রধানমন্ত্রীর? কোচবিহারে 'প্রমাণ' দিলেন মমতা

একই দিনে কোচবিহারে ভোট প্রচারে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে নারায়ণী ব্যাটেলিয়ন করা নিয়ে মোদির প্রতিশ্রুতিকে মিথ্যেকথা বলে দাবি করেন মমতা।

  • Share this:

    #মাথাভাঙ্গা: তৃতীয় দফার (3rd Phase Election) ভোট চলছে বঙ্গে। তার মধ্যেই উত্তরবঙ্গে ম্যারাথন ভোট প্রচারে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। প্রথমে কালচিনিতে সভা করেন মমতা। এর পরেই যান কোচবিহার জেলার মাথাভাঙ্গায়। এদিন প্রথমে নারায়ণী ব্যাটেলিয়ন নিয়ে ওপেন চ্যালেঞ্জ ছোড়েন মমতা। একই দিনে কোচবিহারে ভোট প্রচারে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে নারায়ণী ব্যাটেলিয়ন করা নিয়ে মোদির প্রতিশ্রুতিকে মিথ্যেকথা বলে দাবি করেন মমতা।

    মমতা বলেছেন, 'প্রধানমন্ত্রী কোচবিহারে আবার মিথ্যে কথা বলা শুরু করেছে। কুচ রাজাদের সময় থেকে নারায়ণী ব্যাটেলিয়নের দাবি ছিল। কেউ করেনি। বলছে ভোটের পরে করব। আরে করবে কী? করা আছে, কাগজ তো আমার হাতে। রাইট টু ইনফরমেশনের কাগজে পরিষ্কার লেখা আছে, কেন্দ্রের তরফে এমন কোনও প্রস্তাবের কথা নেই। ডকুমেন্ট দিয়ে প্রমাণ করছি, প্রধানমন্ত্রী মিথ্যেবাদী।' এর পর তিনি নিজেই আরটিআইয়ের সেই কাগজের প্রশ্নোত্তর পড়ে শোনান। সাধারণ এক নাগরিককে স্টেজে ডেকে এনে সেই কাগজ পড়ে শোনাতে বলেন।

    গত বছরের শেষেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন রাজ্যে তিনটি নতুন পুলিশ ব্যাটেলিয়ন তৈরির। ট্যুইট করে গোর্খা, নারায়ণী ও জঙ্গলমহল নামে তিন ব্যাটেলিয়নের নাম হচ্ছে বলে জানিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ব্যাটেলিয়ানগুলি ২০২১ সালের ৩১ জানুয়ারির মধ্যে গঠন করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মমতা।

    গত সেপ্টেম্বর মাসেই নবান্ন থেকে ঘোষণা করা হয়েছিল পুলিশ নিয়োগের ব্যাপারে। মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, আগামী ৩ বছরে পশ্চিমবঙ্গে ২৪,০০০ কন্সটেবল ও ২,৪০০ সাব ইন্সপেক্টর নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার। এছাড়া মহেশতলা, কালীতলা ও জলঙ্গী থানা ভেঙে রাজ্যে নতুন থানার ঘোষণা করা হয়। স্বরাষ্ট্র দফতর সূ্রে জানা গিয়েছে, মহেশতলা থানা ভেঙে হচ্ছে কালীতলা, খড়দা ও জলঙ্গী থানা ভেঙে হচ্ছে যথাক্রমে রহড়া এবং সাগরপাড়া থানা।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published:

    লেটেস্ট খবর