Home /News /national /

WB Corona Situation: পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক: লব আগরওয়াল

WB Corona Situation: পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক: লব আগরওয়াল

লভ আগারওয়ালের ভাষায়, '' ওমিক্রন অত্যন্ত সংক্রামক। ২-৩ দিনের মধ্যে ওমিক্রনের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে। এই মুহুর্তে পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। এক সপ্তাহের মধ্যে সংক্রমণের হার ১.৪৫ থেকে বেড়ে ৩.১ হয়েছে

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: করোনাভাইরাসের নয়া প্রজাতি ওমিক্রন নিয়ে গোটা বিশ্বেই উদ্বেগ ছড়িয়েছে। দেশেও বাড়ছে সংক্রমন, বাড়ছে কলকাতাতেও (WB Corona Situation)। গত ২ সপ্তাহে লাফিয়ে বেড়েছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুগ্ম সচিব লব আগরওয়াল জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা দেশে ১৩ হাজারের বেশি করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। ৬ টি রাজ্যে সংক্রমণ হু হু করে বাড়ছে। কেরল ও মহারাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের হদিশ মিলেছে।মহারাষ্ট্রের কয়েকটি জেলায় অত্যধিক বাড়ছে সংক্রমণ। রাজ্যগুলিকে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে। আন্তর্জাতিক স্তরে চারটি দেশে ৫০ শাতংশ সংক্রমণের হার। ভারতে ৯০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্কদের টিকাকরণ হয়েছে। ৫৯.৭৬ শতাংশ মানুষ দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন।

আরও পড়ুন: মোটেই সুবিধার নয় কলকাতার ওমিক্রন-পরিস্থিতি, চিঠি এল নবান্নে! এরপর...

স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, দেশে করোনা আক্রান্তের নিরিখে পশ্চিমবঙ্গ চতুর্থ স্থানে রয়েছে। দেশের ৮টি জেলায় সংক্রমণের পজিটিভিটির মাত্রা ১২.৫ শতাংশ, এরমধ্যে কলকাতা নতুন সংযোজন (V)। লভ আগারওয়ালের ভাষায়, '' ওমিক্রন অত্যন্ত সংক্রামক। ২-৩ দিনের মধ্যে ওমিক্রনের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে। এই মুহুর্তে পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। এক সপ্তাহের মধ্যে সংক্রমণের হার ১.৪৫ থেকে বেড়ে ৩.১ হয়েছে। গত ৩-৪ দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মারাত্মক হারে বেড়েছে! এটি চিন্তার বিষয়।'' তিনি আরও জানান, কেন্দ্রের একটি দল পশ্চিমবঙ্গ-সহ ১১টি রাজ্যে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরস্কার পেলেন ব্রাত্য বসু

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বিবৃতি অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে ১১ জন ওমিক্রন আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে। ICMR- এর ডিজি বলরাম ভার্গভ জানান, টিকা নেওয়ার পর কোভ্যাক্সিন ও কোভিশিলড-- দুইয়েরই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকছে ১০ মাস পর্যন্ত।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে রাজ্যকে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্র। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ চিঠি পাঠিয়ে সংক্রমন রোধে নজরদারি বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। একই সঙ্গে জানিয়েছেন, বিদেশ ফেরত যাত্রীদের ওপর নজরদারি বাড়াতে। নমুনা পরীক্ষায় জোর দিতে বলেছেন। বিদেশ ফেরত যাত্রীদের সংস্পর্শে আসা ব্যাক্তিদের শনাক্তকরণে জোর দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। নমুনা সংগ্রহ করে জিনোম সিকোন্সিং এর জন্য পাঠানোর কথা বলা হয়েছে চিঠিতে। বিশেষ করে কলকাতা জেলায় সংক্রমন লাফিয়ে বেড়েছে গত দুই সপ্তাহে। সংক্রমন লাগাম টানতে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে বলে জানানো হয়েছে চিঠিতে।কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষনের পরামর্শ, করোনা পরীক্ষা বৃদ্ধিতে জোর দিতে হবে। সংক্রমিত ব্যাক্তিদের কোয়ারেন্টাইন, আইসলেশন পাঠাতে হবে। সংক্রমিত এলাকায় কনটেনমেন্ট জোন, বাফার জোন তৈরি করতে হবে। জোর দিতে হবে টিকাকরনে। করোনা আচরন বিধি পালনে জোর দিতে হবে। স্বাস্থ্যসচিবের  চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, কলকাতায় ১ ডিসেম্বর- ৭ ডিসেম্বর সংক্রমন ছিল ১৫০৮। ৮ থেকে ১৪ ডিসেম্বর সপ্তাহে ১৬০৮ ছিল। ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহ ১৫ থেকে ২১ ডিসেম্বর ১৪৯৪ জন আক্রান্ত হন। আর ২২ থেকে ২৮ ডিসেম্বর ২৬৩৬ জন! সংক্রমন বৃদ্ধির এই সংখ্যায় উদ্বিগ্ন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। দেশ জুড়ে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার পর থেকে একের পর এক রাজ্য সংক্রমণ ঠেকাতে নাইট কার্ফু জারি করেছে। তাতে বর্ষশেষের উৎসবে ভাটা পড়বে জেনেও।

Published by:Rukmini Mazumder
First published:

Tags: Lav Agarwal

পরবর্তী খবর