PM Cares থেকে পাঠানো বেশিরভাগ ভেন্টিলেটর খারাপ! বিতর্ক উস্কে দিল আপ সাংসদের পোস্ট

আইসিইউ-র ডাক্তার ও অ্যানেসথেসিস্টদের দাবি, কেন্দ্রের তরফে যে ভেন্টিলেটর মেশিনগুলো তাদের পাঠানো হয়েছে সেগুলি এক বা দুই ঘন্টা কাজ করার পরই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।

আইসিইউ-র ডাক্তার ও অ্যানেসথেসিস্টদের দাবি, কেন্দ্রের তরফে যে ভেন্টিলেটর মেশিনগুলো তাদের পাঠানো হয়েছে সেগুলি এক বা দুই ঘন্টা কাজ করার পরই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।

  • Share this:

    #চণ্ডীগড়:

    অনেকগুলি ভেন্টিলেটর মেশিন পড়ে রয়েছে মেঝের উপর। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাজেহাল অবস্থা গোটা দেশের। অক্সিজেন, ভ্যাকসিনের সরবরাহ পর্যাপ্ত নেই। বহু মানুষ কার্যত বিনা চিকিৎসায় প্রাণ হারাচ্ছেন। এমন সময় ভেন্টিলেটর মেশিন কিনা অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে! পাঞ্জাবের আম আদমি পার্টির একজন সাংসদ সবার প্রথম ভেন্টিলেটরগুলির একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন। তিনি দাবি করেছিলেন, গুরু গোবিন্দ সিং মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে একটি ঘরে ভেন্টিলেটরগুলি পড়ে রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর করোনা তহবিলেরটাকা থেকে কেনা ভেন্টিলেটর মেশিনগুলি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সেগুলি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ব্যবহার না করে ওভাবে ফেলে রেখেছে কেন! এই প্রশ্ন সবার প্রথমে উঠেছিল। সাংসদের সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলে ধরার পর থেকেই লোকজন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে গালমন্দ করতে শুরু করে। কিন্তু আসল ঘটনা জানা যায় কিছু সময় পরে। কেন এতগুলো ভেন্টিলেটর মেশিন ব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে, তার আসল কারণ তুলে ধরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

    বাবা ফরিদ ইউনিভার্সিটির ভায়েস চ্যান্সেলর ডক্টর রাজ বাহাদুর দাবি করেছেন, ওই হাসপাতালে যে সমস্ত ভেন্টিলেটর মেশিন পড়ে রয়েছে সেগুলি সবই খারাপ। তিনি জানিয়েছেন, পিএম কেয়ার ফান্ডের তরফে ৮২ ভেন্টিলেটর মেশিন দেওয়া হয়েছিল। যার মধ্যে ৬২ টি মেশিন কাজই করছে না। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ শুরু থেকেই বলছে, পিএম কেয়ার ফান্ডের টাকা থেকে কিনে যে সব ভেন্টিলেটর মেশিন পাঠানো হয়েছে সেগুলি বেশিরভাগ খারাপ। এমনকী প্রতিটি মেশিনের মানও বেশ খারাপ। আইসিইউ-র ডাক্তার ও অ্যানেসথেসিস্টদের দাবি, কেন্দ্রের তরফে যে ভেন্টিলেটর মেশিনগুলো তাদের পাঠানো হয়েছে সেগুলি এক বা দুই ঘন্টা কাজ করার পরই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এই ব্যাপারে কেন্দ্রের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা। ভেন্টিলেটরের কোয়ালিটি যে খুব খারাপ তা কেন্দ্রকে জানানো হয়েছে। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। তাই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঠিক করেছে, আগে সব ভেন্টিলেটর মেশিন সারাই করা হবে, তার পর সেগুলি রোগীদের সেবায় ব্যবহার করা হবে।

    ইতিমধ্যে পাঞ্জাব সরকার মেশিন ঠিক করার জন্য ইঞ্জিনিয়ার ও টেকনিশিয়ানদের ফরিদকোট পাঠানোর ব্যবস্থা করেছে। এরই মধ্যে ভেন্টিলেটর ইনস্টল না করার জন্য পাঞ্জাব সরকারকে দুষছে কেন্দ্র। বুধবার একটি চিঠিতে কেন্দ্রের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণক পাঞ্জাব সরকারকে চিঠিতে লিখেছে, আপনাদের ৮০৯ টি ভেন্টিলেটর পাঠানো হয়েছে। তার মধ্যে ৫৫৮ টি ভেন্টিলেটর এখনো পর্যন্ত হাসপাতালে ইন্সটল করা হয়েছে। ২৫১ টি ইন্সটল করা হয়নি। এই ব্যাপারে পাঞ্জাব সরকারের থেকে কারণ জানতে চেয়েছে কেন্দ্র। পাঞ্জাব সরকার অবশ্য আগেই কেন্দ্রকে জানিয়েছিল, পিএম কেয়ার ফান্ড থেকে কিনে পাঠানো ভেন্টিলেটরগুলির বেশিরভাগ কাজ করছে না।

    Published by:Suman Majumder
    First published: