corona virus btn
corona virus btn
Loading

তিন তালাক সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক জানাল এলাহাবাদ হাইকোর্ট

তিন তালাক সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক জানাল এলাহাবাদ হাইকোর্ট

‘তিন তালাক’ প্রথার বিরোধিতায় কড়া এলাহাবাদ হাইকোর্ট ৷ বৃহস্পতিবার এলাহাবাদ হাইকোর্ট তার রায়ে জানায়, মুসলিম সমাজে যে তিন তালাক প্রথার প্রচলন রয়েছে তা সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক ৷

  • Share this:

#এলাহাবাদ: ‘তিন তালাক’ প্রথার বিরোধিতায় কড়া এলাহাবাদ হাইকোর্ট ৷ বৃহস্পতিবার এলাহাবাদ হাইকোর্ট তার রায়ে জানায়, মুসলিম সমাজে যে তিন তালাক প্রথার প্রচলন রয়েছে তা সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক ৷ একই সঙ্গে উচ্চ আদালত এটাও স্পষ্ট করেছে, কোনও পার্সোনাল ল বোর্ড সংবিধানের উর্ধ্বে নয় ৷

‘তিন তালাক’ নিয়ে এলাহাবাদ হাইকোর্টে দায়ের হওয়া একটি জনস্বার্থ মামলার রায়ে উচ্চ আদালত জানায়, ‘তিন তালাক সম্পূ‍র্ণ অসাংবিধানিক ৷ শরিয়ত আইনের এই তিন তালাক পদ্ধতি মুসলিম মহিলাদের মৌলিক অধিকারে আঘাত করে ৷’

মুসলিম শরিয়ত আইনের ‘তিন তালাক’ বিধি ও ইউনিফর্ম সিভিল কোড নিয়ে দ্বন্দ্ব ও বিতর্ক বহু পুরনো ৷ শরিয়ত কানুন বিশেষজ্ঞদের মতে, শরিয়ত আইনের তালাক বিধি একটি সামাজিক ব্যবস্থা, যাকে সংবিধান ও আইন বৈধতা দিয়েছে ৷ কিন্তু এতে মুসলিম মহিলাদের প্রতি অবিচার করা হচ্ছে বলে বহুদিন ধরেই এমন দাবি উঠছে ৷ মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর ও দলীয় স্তরে বিজেপি এই প্রথা নিষিদ্ধ করার জন্য সওয়াল করেন ৷ এই প্রচেষ্টায় মুসলিমদের ধর্মীয় স্বার্থে আঘাত করা হচ্ছে বলে প্রতিবাদ জানায় মুসলিম সমাজ ৷ একইসঙ্গে এই প্রথা নিষিদ্ধ করা হলে জোর করে রাজনীতির নামে শরিয়তের আইন বদলানো হলে তার পরিণাম ভালো হবে না বলে হুঁশিয়ারিও দেয় মুসলিম ল বোর্ড ৷

এদিন এলাহাবাদ হাইকোর্ট নিজের রায়ে মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের স্বাধিকার ভঙ্গের অভিযোগের জবাবে জানিয়েছে, ‘কোনও পার্সোনাল ল বোর্ড সংবিধানের উর্ধ্বে নয় ৷’ এমনকী উচ্চ আদালতের মতে, কোরানে কোথাও ধর্মীয়ভাবে তিন তালাকের কথা বলা নেই ৷ মুসলিম সমাজে তিন তালাকের নামে যে পদ্ধতিতে বিবাহবিচ্ছেদ হয় তাতে চুড়ান্ত অবহেলার শিকার হন মহিলারা ৷

একইসঙ্গে এলাহাবাদ হাইকোর্ট উদ্বেগ প্রকাশ করে বলে, ‘তিন তালাকের শিকার মুসলিম মহিলারা কি সারাজীবন ধর্মীয় প্রথার নামে এমন নিপীড়ন সহ্য করবেন? তাদের পার্সোনাল ল বোর্ড কি কখনও ভেবে দেখবে না এই নিষ্ঠুর তিন তালাক প্রথা তাদের সমাজের হতভাগ্য গৃহবধূদের কি হাল করছে?’

তিন তালাক প্রথা নিয়ে এলাহাবাদ আদালতে একটি পিটিশন দায়ের করেছিলেন বুন্দেলশাহ-র হিনা ও উমারবি ৷ তাদের পিটিশনের শুনানিতেই এই রায় দেয় উচ্চ আদালত ৷

আদালতের এই রায়ের প্রতিক্রিয়ায় অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের তরফে কামাল ফারুকি CNNnews18-কে জানান, এটা কোনও রায় নয়, এটা শুধুমাত্র একটা পর্যবেক্ষণ ৷

এরই মধ্যে মধ্যপ্রদেশে তালাকের এমন দুটি ঘটনা সামনে এল, যা নতুন করে এই ‘তিন তালাক’ প্রথাকে প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দিল ৷

শুনলে চমকে উঠতে পারেন, রাতে খাওয়ার পর শুতে যাওয়ার সময় তিন তালাক বিধিতে একজন স্বামী তাঁর ঘুমন্ত স্ত্রীকে তালাক দিয়ে নিশ্চিন্তে ঘুমোতে চলে গিয়েছেন ৷ অন্য আরেকটি ঘটনায়, স্বামী তার স্ত্রীকে ফোন করে তিনবার তালাক বলায় তাদের ডিভোর্স হয়ে গিয়েছে ৷

সাতনা জেলা আদালতের শরিয়ত কানুন বিশেষজ্ঞ মকসুদ আহমেদের বক্তব্য, শরিয়ত আইনের তালাক বিধি একটি সামাজিক ব্যবস্থা, যাকে সংবিধান ও আইন বৈধতা দিয়েছে ৷ কিন্তু তিন তালাক প্রথা বা শরিয়তের অন্য আইনে বদলের যে প্রচেষ্টা বর্তমানে শুরু হয়েছে তার সঙ্গে সহমত নন শরিয়ত কানুন বিশেষজ্ঞ মকসুদ আহমেদ ৷

First published: December 8, 2016, 2:01 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर