Nirbhaya Case: কেন শুধু বক্সার জেলেই তৈরি হয় ফাঁসির দড়ি? রইল সেই 'নির্মম' ইতিহাস

Nirbhaya Case: কেন শুধু বক্সার জেলেই তৈরি হয় ফাঁসির দড়ি? রইল সেই 'নির্মম' ইতিহাস
ফাঁসির দড়ি

J-34 নামে এক বিশেষ ধরনের সুতো দিয়ে তৈরি করা হয় ফাঁসির দড়ি৷ এই সুতোর চাষ হয় পঞ্জাবে৷ কাঁচামাল সাপ্লাই করা হয় বক্সারে৷ দড়ি তৈরির একটি নির্দিষ্ট ফর্মুলা আছে৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: জারি হয়ে গিয়েছে মৃত্যু পরোয়ানা৷ পয়লা ফেব্রুয়ারি ফাঁসি হবে নির্ভয়াকর ধর্ষক-খুনিদের৷ ভারতের ইতিহাসে এর আগে একসঙ্গে ৪ জনের ফাঁসি হয়নি কখনও৷ এ বারও ফাঁসির দড়ি তৈরি করা হয়েছে বিহারের বক্সার জেলেই৷ মহাত্মা গান্ধির হত্যাকারী নাথুরাম গডসে থেকে বর্তমানে নির্ভয়া কাণ্ড৷ কেন ফাঁসির দড়ির তৈরির জন্য বক্সার জেলকেই দায়িত্ব দেওয়া হয়? এর পিছনে রয়েছে একটি ইতিহাস৷

পয়লা ফেব্রুয়ারি সকাল ৬টায় ফাঁসি হবে নির্ভয়া কাণ্ডে ৪ দোষীর৷ ফাঁসির দড়ি তৈরি হয়ে গিয়েছে৷ বক্সার জেলে তৈরি করা হয়েছে সেই দড়ি৷ ভারতে মৃত্যুদণ্ডে বরাবর বক্সার জেলেই তৈরি হয় ফাঁসির দড়ি৷ ১৯৪৯ সালের নভেম্বরে গান্ধির হত্যাকারী নাথুরাম গডসের ফাঁসির দড়িও তৈরি হয়েছিল বক্সারেই৷ সংসদ হামলার দোষী আফজল গুরুর ফাঁসি, ১৯৯৩ সালের মুম্বই হামলার দোষী ইয়াকুব মেমন ও ২৬/১১ মুম্বই সন্ত্রাসের জঙ্গি আজমল কাসভ, সকলের ফাঁসি হয়েছে বক্সার জেলের তৈরি করা দড়িতেই৷

ফাঁসিকাঠ ফাঁসিকাঠ

কেন বারবার বক্সার? ১৮৮০ সালে ব্রিটিশরা বক্সার জেল তৈরি করেছিলেন৷ বক্সার যুদ্ধের পরপরই তৈরি করা হয় এই জেল৷ এর ৪ বছর পরে ১৮৮৪ সালে ব্রিটিশরা ফাঁসির দড়ি তৈরির একটি মেশিন বসায় বক্সার জেলে৷ তার আগে ফাঁসির দড়ি ভারতে আমদানি করা হত ফিলিপিন্সের রাজধানী মানিলা থেকে৷ সেই সময় মানিলা দড়ি খুব জনপ্রিয় ছিল৷ পরে ফ্যাক্টরি আইনে বক্সার জেল এক্সক্লুসিভ অধিকার পায় ফাঁসির দড়ি তৈরির৷

কী রকম হয় ফাঁসির দড়ি? অন্যান্য দড়ির চেয়ে এই দড়ি আলাদা৷ নরম অথচ খুব শক্ত৷ আবহাওয়া ও জেলের জলের পর্যাপ্ত জোগান দেখেই ব্রিটিশরা ফাঁসির দড়ি তৈরির জন্য বক্সার জেলকেই বেছে নেয়৷ গঙ্গার ধারে অবস্থিত এই জেলে কুঁয়ো রয়েছে৷ দেশের সব জেলে কুঁয়ো নেই৷ কারণ, ব্রিটিশ ভারতে কুঁয়োয় অনেক আসামী ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করত৷ তাই জেলে কুঁয়ো তুলে দেয় ব্রিটিশরা৷ বক্সার জেলে আজও রয়েছে৷

J-34 নামে এক বিশেষ ধরনের সুতো দিয়ে তৈরি করা হয় ফাঁসির দড়ি৷ এই সুতোর চাষ হয় পঞ্জাবে৷ কাঁচামাল সাপ্লাই করা হয় বক্সারে৷ দড়ি তৈরির একটি নির্দিষ্ট ফর্মুলা আছে৷ যারা এই দড়ি তৈরি করে, তারা ছাড়া কেউ জানে না সেই ফর্মুলা৷

ফাঁসির নিয়ম হল, দড়ি এমন ভাবে তৈরি হবে, যাতে একবারেই দোষীর মৃত্যু হয়৷ কিন্তু শরীরে যেন কোনও আঘাত না থাকে৷ দেহের ময়নাতদন্তের সময় তা পরীক্ষা করে নেওয়া হয়৷

First published: January 19, 2020, 1:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर