সিএএ বিরোধী আন্দোলনের জের ! উত্তর-পূর্ব রেলের ক্ষতি ১০০ কোটি ছাড়িয়েছে

সিএএ বিরোধী আন্দোলনের জের ! উত্তর-পূর্ব রেলের ক্ষতি ১০০ কোটি ছাড়িয়েছে

সব মিলিয়ে প্রচুর টাকার সম্পত্তি নষ্ট হয়েছে, যা কখনই কল্পনায় আসবেনা

  • Share this:

Partha Sarkar

#নয়াদিল্লি: সিএএ বিরোধী আন্দোলনের জের৷ উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ১০০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গেছে। সিএএ'র বিরুদ্ধে অসমে প্রথম আগুন জ্বলেছিল। গুয়াহাটি, লামডিং ডিভিশনে বন্ধ হয়ে যায় রেল পরিষেবা। পরে দেশের অন্য অংশের সঙ্গেও রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় অসমের সঙ্গে। গত ৯ থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত নাগরিক সংশোধনী আইন নিয়ে চলা আন্দোলন, বিক্ষোভের জেরেই উত্তর-পূর্ব রেলের ক্ষতি বেড়েছে বলে জানান মুখ্য জনসংযোগ আধিকারীক শুভানন চন্দ।

2038_IMG-20191231-WA0018

রেলের সম্পত্তি জ্বালিয়ে দেওয়া, ভাঙচুর হয়েছে। এর পাশাপাশি দীর্ঘদিন ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত জোনের সঙ্গে অন্যান্য জোনের মধ্যে যাত্রীবাহী এবং মালবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় ক্ষতির অঙ্ক বেড়েছে। একাধীক জায়গায় রেল স্টেশনে অগ্নি সংযোগ করা হয়েছে। পাশাপাশি বহু জায়গায় রেলওয়ে ট্র‍্যাক, লেভেল ক্রসিং উপড়ে ফেলা হয়েছে। এমনকী অন্যান্য বৈদ্যুতিন সামগ্রী জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই সীমান্তের আওতাভুক্ত কাটিহার, লামডিং, রঙিয়া ডিভিশনে মোট ক্ষতির পরিমাণ ১০ কোটি টাকা।

যাত্রী টিকিট বিক্রি থেকে সংগৃহীত অর্থের ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক ৩০.১৩ কোটি টাকা । রেলের পার্সেল বুকিং থেকে সংগৃহীত অর্থের ক্ষতির পরিমাণ ৫.০৫ কোটি টাকা। বিভিন্ন ট্রেন বাতিল হওয়ার জেরে আনুমানিক ৩৮.৮৬ লাখ যাত্রী ট্রেনে সফর করতে পারেনি। যার জেরে বেড়েছে ক্ষতির পরিমাণ । সবমিলিয়ে এন আর সি এবং সিএএ বিরোধী আন্দোলনের জেরে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলেরই ক্ষতির অঙ্ক ১০০ কোটি ছাড়িয়ে গেছে।

উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারীক শুভানন চন্দ জানান, এরপরও রেল কর্তৃপক্ষ এবং কর্মীদের উদ্যোগী ভূমিকায় কিছু কিছু ক্ষতিগ্রস্থ অংশে দ্রুত ম্যানুয়ালি ট্রেন পরিষেবা চালু করা হয়েছে। এখোনো অন্যান্য ক্ষতিগ্রস্থ অংশে মেরামতির কাজ চলছে। জোরকদমেই চলছে কাজ। তা শেষ হলেই অন্যান্য বাতিল থাকা ট্রেন পরিষেবা চালু হবে ।

First published: 10:25:41 PM Dec 31, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर