corona virus btn
corona virus btn
Loading

পাক প্রশাসনের দাবিকে নস্যাৎ করে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের প্রমাণ দিল পাকিস্তানই

পাক প্রশাসনের দাবিকে নস্যাৎ করে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের প্রমাণ দিল পাকিস্তানই
ছবিটি প্রতীকী

একইসঙ্গে নিউজ ১৮-এর এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট অনুসারে, ভারতের সার্জিক্যাল স্টাইকের কথা স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছেন পাক অধিকৃত কাশ্মীর মীরপুরের এসপি গুলাম আকবর ৷

  • Share this:

#মীরপুর: পাক জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংসে ভারতের করা সার্জিক্যাল অ্যাটাককে প্রথম থেকেই অস্বীকার করে আসছে পাকিস্তান ৷ নকল ভিডিও সোশ্যালে ছেড়েও ভারতকে মিথ্যেবাদী ও ভুল প্রমাণ করতে প্রচেষ্ট প্রতিবেশী রাষ্ট্র ৷ কিন্তু সীমান্তে বসবাসকারী ওপারের বাসিন্দারাই পাকিস্তানের এই দাবিকে সম্পূর্ণ নস্যাৎ করেছেন ৷ একইসঙ্গে নিউজ ১৮-এর এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট অনুসারে, ভারতের সার্জিক্যাল স্টাইকের কথা স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছেন পাক অধিকৃত কাশ্মীর মীরপুরের এসপি গুলাম আকবর ৷

নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে লাগাতার জঙ্গি হানা প্রতিরোধ করতে গত ২৯ সেপ্টেম্বর ভোর আড়াইটে নাগাদ সীমান্ত পেরিয়ে পাক ভূমিতে ঢোকে সেনা বাহিনী ৷ ভিমবের, হটস্প্রিং সেল এবং লিপা সেক্টরে হামলা চালিয়ে মোট পাক জঙ্গি ঘাঁটি সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দেয় ভারতীয় জওয়ানেরা ৷ নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে ৫০০ মিটার থেকে ২কিমি পর্যন্ত অভিযানে জঙ্গিদের অন্তত আটটি লঞ্চ প্যাড সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দেওয়া হয় ৷ সেনাবাহিনী সূত্রে খবর, এই অভিযানে অন্তত ৩০ থেকে ৪০ জন জঙ্গির মৃত্যু হয় ৷ পরে তারা জানায়, এই অভিযানে দু’জন পাক সেনারও মৃত্যু হয়েছে ৷

প্রথম থেকে সার্জিক্যাল অ্যাটাক নিতে দ্বৈত মানসিকতা দেখিয়েছে পাকিস্তান ৷ কখনও হুঙ্কার দিয়েছে, অন্যায়ভাবে সার্জিক্যাল অপারেশন চালিয়ে খুব বড় ভুল করেছে ভারত ৷ এর জবাব দেবে পাক সেনা ৷ আবার কখনও দাবি করেছে ইসলামাবাদের দাবি, কোনও সার্জিক্যাল অ্যাটাক হয়নি ৷ এমনকী নকল ভিডিও প্রকাশ করেও ভারতকে বিশ্বের সামনে মিথ্যেবাদী প্রমাণ করার ভ্রান্ত প্রচেষ্টা চালিয়ে গিয়েছে পাকিস্তান ৷ কিন্তু তাদের এই প্রচেষ্টা সম্পূর্ণ ব্যর্থ করে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের ছয় দিন পরে মীরপুরের এসপি বলেন যে, ভারতীয় সেনা বাহিনীর সার্জিক্যাল অপারেশনে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে ৷ এর মধ্যে পাঁচ জনই পাক সেনা ৷ একইসঙ্গে নিহত সেনাদের নামও জানিয়েছেন তিনি ৷

সিএনএন-নিউজ ১৮ ও মীরপুরের এসপি-র কথোপকথন

সিএনএন-নিউজ ১৮ - কী খবর? আইজি মুস্তাক বলছি পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ - ভগবানের ইচ্ছায় আমি ভালো ভালো আছি।   সিএনএন-নিউজ ১৮ - ওখানে কি হচ্ছে? প্রচুর গণ্ডগোলের খবর পাচ্ছি পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ- হ্যাঁ, স্যার সীমান্তে কাছে। তবে সকাল থেকে তেমন কিছু ঘটেনি। সিএনএন-নিউজ ১৮ - সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, কী সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে কথা হচ্ছে..... পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ - হ্যাঁ, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক আপনি যার কথা বলছেন। ২৯ তারিখের ঘটনা। রাতের দিকে হয়।  আমাদের ৩ জন হ্যাঁ, মাত্র ৩ জনই মারা গিয়েছেন বলে খবর পেয়েছি। আমরা ওখানে সেনার কাছে এমনই খবর পেয়েছি। সিএনএন-নিউজ ১৮- কিন্তু অন্যপক্ষ বলছে, ৩০-৪০ জন নাকি মারা গিয়েছে পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ- ওরা তো অনেক জনের মারা যাওয়ার কথাই বলছে।  কিন্তু ওতটাও ক্ষতি হয়নি স্যার। তবে ভারত যে আমাদের এলাকায় ঢুকে হামলা চালিয়েছে, তা সত্যি। সিএনএন-নিউজ ১৮- কিন্তু তারপরও কেউ কেন গেল না কেন? পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ - না, স্যার কেউই যায়নি। কিন্তু লিপায় ২ জন মারা গিয়েছেন।  আধিরাতেও ২ জনের মৃত্যুর খবর আছে। সিএনএন-নিউজ ১৮- আপনার কি মনে হয়, কতজন মারা গিয়েছে? পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ - সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে স্যার আমার মনে হয়, বলা যায় ৩ জন মারা গিয়েছে। তবে সেটা ১২ পর্যন্ত যেতে পারে। বলা যেতে পারে ১২ জন মারা গিয়েছে। সিএনএন-নিউজ ১৮- সেটা কি একটা ক্যাম্পে? পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ - না স্যার, সব মিলিয়ে। তবে স্যার, এটা একেবারেই প্রাথমিক তথ্য। পরে সংখ্যাটা বাড়তেও পারে। গোটা এলাকা সেনারা ঘিরে রেখেছে। সিএনএন-নিউজ ১৮- তালিকায় সব নাম আছে তো? পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ - না স্যার, সব নাম নেই। কয়েকটা নাম আছে। সিএনএন-নিউজ ১৮- এরা কি সবাই ২৯ সেপ্টেম্বর ছিল? পুলিশ সুপার, পাক পুলিশ - হ্যাঁ, স্যার। ছিল। এটা সেই সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের ঘটনা। ওরা বারবার যেটার কথা বলছে।

মীরপুরের এসপি গুলাম আকবরের এই স্বীকারোক্তি ভারতীয় সার্জিক্যাল অভিযানকে আরও একবার সত্যি বলে প্রমাণ করল ৷ এর সঙ্গেই আবারও সামনে এল পাকিস্তানের মিথ্যাচার ৷ অন্তত চারটি জায়গায় সার্জিক্যাল অ্যাটাকের কথা স্বীকার করেছেন পাক অধিকৃত কাশ্মীর মীরপুরের এসপি ৷

মীরপুরের এসপি ছাড়াও সর্বভারতীয় ইংরেজি দৈনিকের রিপোর্ট অনুসারে, সীমান্ত লাগোয়া গ্রামের বাসিন্দারাও দাবি করেছেন, ২৯ তারিখ ভোর রাতে ভারতীয় সেনা হামলা চালায় পাক জঙ্গি ঘাঁটিতে ৷ সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর এলাকা ঘিরে ফেলে পাক সেনা ৷ লড়াইতে মৃতদের দেহ অ্যাম্বুল্যান্সে করে সরিয়ে ফেলে তারা ৷ কিছু দেহ ওখানে কবর দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছে গ্রামবাসীরা ৷

বুধবারই পাকিস্তানের দাবিকে ভুঁয়ো প্রমাণ করতে সার্জিক্যাল অ্যাটাকের সমস্ত ফুটেজ কেন্দ্রের হাতে তুলে দিয়েছে ইন্ডিয়ান আর্মি ৷ কিন্তু কৌশলগত কারণেই তা প্রকাশ্যে আনছে না মোদি প্রশাসন। নিরাপত্তা সংস্থাগুলির আশঙ্কা, ভিডিও ও অপারেশনের পরিকল্পনা জেনে গেলে একই কায়দায় হামলা চালাতে পারে পাকিস্তান।

First published: October 5, 2016, 8:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर