• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • রবিবার রাতের ব্ল্যাকআউটে পাওয়ার গ্রিডে প্রভাব? কেন্দ্র বলল, ভয় নেই

রবিবার রাতের ব্ল্যাকআউটে পাওয়ার গ্রিডে প্রভাব? কেন্দ্র বলল, ভয় নেই

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গত শুক্রবার দেশবাসীর কাছে আর্জি জানান, রবিবার রাত ৯টায় ৯ মিনিটের জন্য সব আলো বন্ধ রেখে মোমবাতি, টর্চ, প্রদীপ বা মোবাইলের ফ্ল্যাশলাইট জ্বালাতে৷

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গত শুক্রবার দেশবাসীর কাছে আর্জি জানান, রবিবার রাত ৯টায় ৯ মিনিটের জন্য সব আলো বন্ধ রেখে মোমবাতি, টর্চ, প্রদীপ বা মোবাইলের ফ্ল্যাশলাইট জ্বালাতে৷

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গত শুক্রবার দেশবাসীর কাছে আর্জি জানান, রবিবার রাত ৯টায় ৯ মিনিটের জন্য সব আলো বন্ধ রেখে মোমবাতি, টর্চ, প্রদীপ বা মোবাইলের ফ্ল্যাশলাইট জ্বালাতে৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনার বিরুদ্ধে দেশের একতার বার্তা দিতে রবিবার রাত ৯টায় ৯ মিনিটের জন্য গোটা দেশে ব্ল্যাক আউট পালনের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর এই আহ্বানে চিন্তায় পড়ে গিয়েছে বিদ্যুত্‍ ক্ষেত্র৷ কারণ, আশঙ্কা করা হচ্ছে, ব্ল্যাক আউট মিটতেই গোটা দেশ একসঙ্গে লাইট জ্বাললে লোড নিতে পারবে না পাওয়ার গ্রিডগুলি৷ ফলে বসে যেতে পারে গ্রিড৷

    তা হলে উপায়? বিভিন্ন রাজ্যের বিদ্যুত্‍ দফতরের পরামর্শ, আলো নিভিয়ে রাখলেও ফ্যান চালিয়ে রাখুন৷ নইলে একসঙ্গে সবাই আলো, পাখা চালাতে শুরু করলে লোড নিতে পারবে না গ্রিড৷ ফলে বসে যেতে পারে৷ কারণ, হঠাত্‍ দেশে বিদ্যুতের চাহিদা পড়ে যাওয়ায় এমনিতেই ২৫ শতাংশ নীচে রয়েছে বিদ্যুতের চাহিদা৷ তার উপর ৯ মিনিট ব্ল্যাকআউট হলে তা একেবারে বসে যেতে পারে বলেই আশঙ্কা৷

    প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গত শুক্রবার দেশবাসীর কাছে আর্জি জানান, রবিবার রাত ৯টায় ৯ মিনিটের জন্য সব আলো বন্ধ রেখে মোমবাতি, টর্চ, প্রদীপ বা মোবাইলের ফ্ল্যাশলাইট জ্বালাতে৷

    প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণার পরেই চিন্তার ভাঁজ রাজ্য বিদ্যুত্‍ দফতরগুলির কপালে৷ বিদ্যুত্‍ বণ্টন সংস্থার ইঞ্জিনিয়াররা বলছেন, দিনের সবচেয়ে চাহিদার সময়ে হঠাত্‍ গোটা দেশে চাহিদা পড়ে গেলে সব বসে যাবে৷ যদিও কেন্দ্রীয় বিদ্যুত্‍মন্ত্রকের দাবি, গ্রিডের উপর কোনও প্রভাব পড়বে না৷ সব দেখেশুনেই কাজ করা হবে৷ নিউক্লিয়ার পাওয়ার কর্পরেশন অফ ইন্ডিয়া লিমিটেড-এর আধিকারিকরাও জানাচ্ছেন, মেন গ্রিডের উপর যাতে না প্রভাব পড়ে, তাই বাড়ির ফ্যানগুলি ওই সময় চালিয়ে রাখুন৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published: