corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউন উঠছে? ১৪ এপ্রিলের পরেও সরকারি নিয়ন্ত্রণ জারি থাকবে: সরকারি সূত্র

লকডাউন উঠছে? ১৪ এপ্রিলের পরেও সরকারি নিয়ন্ত্রণ জারি থাকবে: সরকারি সূত্র
কেমব্রিজের Department of Applied Mathematics and Theoretical Physics-এর গবেষক রাজেশ সিং ও আর অধিকারী সম্প্রতি একটি সমীক্ষা করেন, যেখানে তাঁরা বলছেন লকডাউন ২১ দিনের হলে, করোনার ফিরে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। Representational Image

তা হলে কি ১৪ এপ্রিলের পরেও লকডাউনের সময়সীমা বাড়ছে? News18-কে সরকারের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, সরকারের আরও একটি প্রস্তাব রয়েছে৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ভারতে ৪ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে করোনা আক্রান্ত৷ মৃত্যুও ১০০ ছাড়িয়েছে৷ ২১ দিনের লকডাউনের মধ্যেও সংক্রমণ বাড়ছে৷ তাই মানুষের গতিবিধির উপর সরকারি নিয়ন্ত্রণ ও নিষেধাজ্ঞা ১৪ এপ্রিলের পরেও থাকার সম্ভাবনা প্রবল৷ ১৪ এপ্রিলই ২১ দিনের লকডাউনের সময়সীমা শেষ হচ্ছে৷ কিন্তু তারপরেও সরকারি নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে৷

তা হলে কি ১৪ এপ্রিলের পরেও লকডাউনের সময়সীমা বাড়ছে? News18-কে সরকারের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, সরকারের আরও একটি প্রস্তাব রয়েছে৷ তা হল, দেশের যে সব জায়গা বা রাজ্য করোনা ভাইরাসের হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করা জায়গাগুলিতেই সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে৷ সে ক্ষেত্রে এরকম বেশ কয়েকটি প্রস্তাব এসেছে রাজ্যগুলি থেকে৷ তা নিয়ে আলোচনা চলছে৷

এক সপ্তাহ আগেই ক্যাবিনেট সচিব রাজীব গুহ জানিয়েছিলেন, ২১ দিন পরে লকডাউন বাড়ানোর কোনও পরিকল্পনাই নেই সরকারের৷ তবে বেশ কয়েকটি রাজ্য প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে আবেদন জানিয়েছে, সরকারি নিয়ন্ত্রণ চালিয়ে যাওয়া দরকার৷

বর্তমানে ৪ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত করোনায়৷ সংখ্যাটা নিশ্চিত ভাবেই আরও অনেক বাড়বে, তা ধরেই নেওয়া যায়৷ রাজ্য সরকারগুলির আশঙ্কা, এরপর হাসপাতালে আর বেড থাকবে না৷ যদিও বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় ভারতের অবস্থা ভালো৷

সরকারের কাছে প্রস্তাব এসেছে, ১৪ এপ্রিলের পরে গোটা দেশে লকডাউন না বাড়িয়ে, যদি শুধু মাত্র কম করে করোনা ভাইরাসের ২০টি হটস্পট এলাকাকে লকডাউনে রাখা যায়৷ এছাড়া হয়স্পট হতে পারে, এরকম ২২টি জায়গাকে চিহ্নিত করা হয়েছে৷ আজ অর্থাত্‍ সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বৈঠক করবেন মন্তিরসভার৷ পরবর্তী সিদ্ধান্ত সেই বৈঠকে স্থির হবে৷

Published by: Arindam Gupta
First published: April 6, 2020, 5:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर