কলেজ খুলতেই ক্লাস রুমে মিলল কঙ্কাল! ভয়াবহ কাণ্ড বারাণসীতে

কলেজ খুলতেই ক্লাস রুমে মিলল কঙ্কাল! ভয়াবহ কাণ্ড বারাণসীতে
ওই কঙ্কাল কার বা কোথা থেকে এল, সে বিষয়ে এখনও কিছুই জানা যায়নি । ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা নমুনা সংগ্রহ করেছেন । কঙ্কালটি উদ্ধার করে পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে । সেটির ময়নাতদন্ত করা হবে ।

ওই কঙ্কাল কার বা কোথা থেকে এল, সে বিষয়ে এখনও কিছুই জানা যায়নি । ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা নমুনা সংগ্রহ করেছেন । কঙ্কালটি উদ্ধার করে পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে । সেটির ময়নাতদন্ত করা হবে ।

  • Share this:

    #বারাণসী: বহুদিন বন্ধ ছিল স্কুল-কলেজ । করোনার কারণে গত বছরের শুরুর দিকে শুরু হয় লকডাউন । সে সময়ই দেশের সমস্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ হয়ে যায় । এখনও বেশিরভাগ রাজ্যেই স্কুল-কলেজ বন্ধ রয়েছে । কোথাও কোথাও নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে ধীরে ধীরে স্কুল-কলেজ খুলতে শুরু করেছে ।

    উত্তরপ্রদেশের বারাণসীর ক্যান্ট এলাকায় একটি কলেজ খুলতেই দেখা গেল ভয়ানক কাণ্ড । ক্লাসরুমের মধ্যে পড়ে রয়েছে একটি কঙ্কাল । গতকাল, বুধবার ওই ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে । কলেজের ছাত্ররাই প্রথম ওই কঙ্কালটি দেখতে পান । তাঁরাই বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানান । এরপর খবর যায় স্থানীয় থানায় । পুলিশ ও ফরেন্সিক বিভাগের বিশেষজ্ঞরা ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছন । কিন্তু ওই কঙ্কাল কার বা কোথা থেকে এল, সে বিষয়ে এখনও কিছুই জানা যায়নি । ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা নমুনা সংগ্রহ করেছেন । কঙ্কালটি উদ্ধার করে পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে । সেটির ময়নাতদন্ত করা হবে ।

    সূত্রের খবর, ওই ইন্টার-কলেজটি করোনা মহামারীর সময় দরিদ্র, গৃহহীন মানুষদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছিল । অনেকেই সেখানে আশ্রয় নিয়েছিলেন । অনুমান করা হচ্ছে, তাঁদের মধ্যে থেকেই কেউ হয়তো ওখানেই মারা গিয়েছিলেন । কিন্তু কোনও কারণে সেই মৃতদেহ সে সময় সকলের চোখ এড়িয়ে গিয়েছিল । ওই কলেজের অধ্যক্ষ ডঃ একে সিং বলেন, কলেজের পিছনে একটা জঙ্গল মতো রয়েছে । সেই এলাকায় খেলার মাঠ তৈরি হওয়ার কথা । সে কারণেই কলেজ ও তার চারপাশ পরিষ্কার করার কাজ চলছিল । সে সময়ই কলেজের পিছনের দিকের ওই ক্লাসরুম থেকে কঙ্কালটি উদ্ধার হয় ।


    করোনার সময়ে কলেজটি স্থানীয় গৃহহীনদের আস্তানা হয়েছিল । তাঁদের মধ্যে অনেকেই ছিলেন মানসিকভাবে অসুস্থ । অনেক সময়ই নিজেদের মধ্যে ইট, পাথর ছুড়ে মারামারি করতেন তাঁরা । সম্ভবত সে সময়ই কেউ মারা যান ।

    Published by:Simli Raha
    First published:

    লেটেস্ট খবর