দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

রেলের নজরে পাঁচটি ট্রেন, কয়েক হাজার যাত্রীর সংক্রমণের আশঙ্কা

রেলের নজরে পাঁচটি ট্রেন, কয়েক হাজার যাত্রীর সংক্রমণের আশঙ্কা
রেলের নজরে পাঁচ ট্রেন৷ PHOTO- FILE
  • Share this:
 

#নয়াদিল্লি: পাঁচটি ট্রেনের কয়েক হাজার যাত্রী৷ আর সেই যাত্রীদের নাম ঠিকানা খুঁজে বের করে এখন তাঁদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে রেল৷ কারণ নিজামুদ্দিনের তবলিঘি জামাতে যাঁরা যোগ দিয়েছিলেন, তাঁদের অধিকাংশই ওই পাঁচটি ট্রেনে যাতায়াত করেছিলেন৷ তাঁদের মধ্যে অনেকের শরীরেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মিলেছে৷ ফলে তাঁদের সহযাত্রীদের মধ্যেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে৷ তাই ওই ট্রেন যাত্রীদের চিহ্নিতকরণের চেষ্টা পুরোদমে শুরু হয়ে গিয়েছে৷

যে পাঁচটি ট্রেন রেলের নজরে রয়েছে সেগুলি ১৩ থেকে ১৯ মার্চের মধ্যে দিল্লি ছেড়েছিল৷ সেগুলি হলো দিল্লি- গুন্টুর দুরন্ত এক্সপ্রেস, দিল্লি থেকে চেন্নাইগামী গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক এক্সপ্রেস, দিল্লি- চেন্নাই তামিলনাড়ু এক্সপ্রেস, নিউ দিল্লি - রাঁচি রাজধানী এক্সপ্রেস এবং এপি সম্পর্কক্রান্তি এক্সপ্রেস৷

ঠিক কতজন যাত্রী নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় সভায় যোগদানকারীদের সংস্পর্শে আসতে পারেন, সে বিষয়ে নির্দিষ্ট কোনও সংখ্যা বলতে চাইছেন না রেল কর্তারা৷ কিন্তু প্রতিটি ট্রেনেই ১০০০ থেকে ১২০০ যাত্রী ছিলেন৷ এর পাশাপাশি ট্রেনে রেল কর্মীরাও ছিলেন৷ ফলে এঁদের প্রত্যেকেরই সংক্রামিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

রেলের তরফে যাত্রীদের তালিকা জেলা প্রশাসনগুলিকে দেওয়া হচ্ছে৷ তবলিঘি জামাতে কারা গিয়েছিলেন, তাঁদের নামের তালিকা মিলিয়ে দেখে এ বিষয়ে নিশ্চিত হচ্ছে জেলা প্রশাসন৷

যেমন ১৩ মার্চ দিল্লি থেকে সম্পর্কক্রান্তি এক্সপ্রেসে করে ওই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া ৯ জন ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক করিমনগরে ফিরেছিলেন৷ পরে তাঁদের প্রত্যেকেরই করোনা ভাইরাস ধরা পড়ে৷

আবার নিউ দিল্লি- রাঁচি রাজধানী এক্সপ্রেসের বি-১ কোচের ৬০ জন যাত্রীর উপরেও প্রশাসনের নজর রয়েছে৷ কারণ ওই কামরাতেই মালয়েশিয়ার নাগরিক এক মহিলা গত ১৬ মার্চ যাত্রা করেছিলেন৷ মালয়েশিয়ার ওই নাগরিকও নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় সভায় যোগ দিয়েছিলেন৷ পরে তাঁরও করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে৷ ফলে ওই কামরায় তাঁর সহযাত্রীদেরও সংক্রামিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে৷ আপাতত ওই যাত্রীদের খুঁজে বের করতে হিমশিম খাচ্ছেন প্রশাসনের কর্তারা৷ এভাবেই গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক এক্সপ্রেসের এস ৩ কামরা, তামিলনাড়ু এক্সপ্রেসের মতো ট্রেনও রেল এবং জেলা প্রশাসনগুলির নজরে রয়েছে৷

হজরত নিজামুদ্দিন এবং নিউ দিল্লি স্টেশন দু'টি ভারতের সবথেকে ব্যস্ত স্টেশনের মধ্যে অন্যতম৷ হজরত নিজামুদ্দিন স্টেশন দিয়ে প্রতিদিন ২ লক্ষ মানুষ যাতায়াত করেন, অন্যদিকে নিউ দিল্লি স্টেশনে দৈনিক পাঁচ লক্ষ মানুষের চাপ থাকে৷ ফলে এই বিপুল সংখ্যক মানুষের মধ্যে থেকে ওই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগদানকারী এবং তাঁরা কাদের সংস্পর্শে এসেছিলেন তাঁদের চিহ্নিত করা অত্যন্ত দুরূহ কাজ৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: April 1, 2020, 5:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर