'Petrol-এ ১৭-১৮ পয়সা দাম কমিয়েছে কেন্দ্র, এই পয়সায় কী কী করবেন?' প্রশ্ন রাগার

'Petrol-এ ১৭-১৮ পয়সা দাম কমিয়েছে কেন্দ্র, এই পয়সায় কী কী করবেন?' প্রশ্ন রাগার

পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।

পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি:

    আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কিছুটা কমেছে। যার জেরে কেন্দ্রীয় সরকারও এদেশে পেট্রোল ডিজেলের লিটার প্রতি দামে কিছুটা ছাড় দিয়েছে। কিন্তু সেই ছাড় এতটাই কম যে উল্লেখ করতেও দুবার ভাবতে হয়। লিটার প্রতি ১৭-১৮ পয়সা দাম কমেছে পেট্রোল-ডিজেলের। গত কয়েক মাসে পেট্রোল-ডিজেলের দাম বৃদ্ধি মধ্যবিত্তকে অস্বস্তিতে ফেলেছে। জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে। ফলে নাভিশ্বাস উঠেছে মধ্যবিত্তের। বিরোধীরা পেট্রোল ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে বারবার মোদি সরকারকে আক্রমণ করেছে। কিন্তু তাতে দামের হেরফের হয়নি।

    লকডাউন এর পর থেকেই লাফিয়ে বেড়েছে পেট্রোল-ডিজেলের দাম। দেশের কোনও অংশে লিটার পেট্রোলের দাম ১০০ পেরিয়েছে। কিন্তু দাম আর সেভাবে কমেনি। আর তাই এদিন আরও একবার পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।

    এদিন রাহুল গান্ধী টুইট করে লিখেছেন, পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। তাই কেন্দ্রীয় সরকার পেট্রোল-ডিজেলের দাম লিটার প্রতি ১৭-১৮ পয়সা করে সস্তা করেছে। এই পয়সা নিয়ে কী কী করবেন আপনারা! বলাবাহুল্য, বিজেপি সরকারকে ব্যঙ্গ করতেই জনসাধারণের উদ্দেশে এমন প্রশ্ন রেখেছেন রাহুল গান্ধী। তিনি সেই পোষ্টের সঙ্গে হ্যাশট্যাগে ফুয়েল লুট বাই বিজেপি লিখেছেন।

    এর আগেও পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধিতে একাধিকবার কেন্দ্রকে আক্রমণ করেছেন রাহুল গান্ধী। উল্লেখ্য, রবিবারও দেশের চারটি মেট্রো শহরে পেট্রোল ও ডিজেলের লিটার প্রতি দামে কোনও হেরফের হয়নি। ২৮ দিন ধরে পেট্রোল-ডিজেলের দাম একই থাকার পর লিটার প্রতি ১৭-১৮ পয়সা করে কমেছিল। কিন্তু তাতে সমস্যা কিছুই মেটেনি। বরং এত কম ছাড় চোখেই দেখতে পাননি সাধারণ মানুষ।

    দিনকয়েক আগে সংসদে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল, পেট্রোল ও ডিজেল থেকে সরকারের ঘরে বিপুল সংখ্যক অর্থ আসে। লকডাউনে দেশের যে আর্থিক ক্ষতি হয়েছে তা পূরণের মাধ্যম এখন হয়ে দাঁড়িয়েছে পেট্রোল ও ডিজেল। কিন্তু সরকারের ক্ষতি পূরণ করতে গিয়ে মধ্যবিত্তের হাঁসফাঁস অবস্থা হচ্ছে। এমনক৪ নিত্যদিনের ব্যবহার্য জিনিসপত্রের দামও বেড়ে চলেছে।

    Published by:Suman Majumder
    First published: