কংগ্রেস নেতার জন্য সংসদে অঝোরে কাঁদলেন মোদি, আটকে গেল কথা! দেখুন ভিডিও

সংসদে আবেগতাড়িত প্রধানমন্ত্রী৷

  • Share this:

    #দিল্লি: বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি আগেও আবেগতাড়িত হয়েছেন৷ কিন্তু বিরোধী দলের কোনও নেতার কথা বলতে গিয়ে সংসদে দাঁড়িয়ে এ ভাবে কাঁদতে দেখা যায়নি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে৷ রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা গুলাম নবি আজাদকে বিদায়ী ভাষণ জানাতে গিয়ে বার বার আবেগতাড়িত হয়ে পড়লেন নরেন্দ্র মোদি৷ এমন কী, বেশ কয়েক মুহূর্ত বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন তিনি৷

    এ দিনই রাজ্যসভার চলতি অধিবেশনের শেষ দিন ছিল৷ একই সঙ্গে সাংসদ হিসেবে মেয়াদ ফুরোল রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা গুলাম নবি আজাদের৷ দায়িত্বে থাকাকালীন বার বার নানা ইস্যুতে মোদি সরকারকে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছেন আজাদ৷ প্রধানমন্ত্রীকেও অতীতে নিশানা করেছেন তিনি৷ কিন্তু এ দিন রাজনৈতিক তিক্ততা ভুলে কংগ্রেস সাংসদের ভূয়সী প্রশংসা শোনা গেল প্রধানমন্ত্রীর গলায়৷

    স্মৃতি হাতড়ে নরেন্দ্র মোদি বলেন, তিনি গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন কাশ্মীরে জঙ্গি আক্রমণে নিহত গুজরাতের বাসিন্দাদের দেহ ফেরানোর ব্যবস্থা করতে গভীর রাতে শ্রীনগর বিমানবন্দরে পৌঁছে গিয়েছিলেন গুলাম নবি আজাদ৷ সেখান থেকেই ফোন করেছিলেন মোদিকে৷ প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'সেদিন ওনার গলা শুনে মনে হচ্ছে, যেন পরিবারের কাউকে হারিয়েছেন৷ সেদিন ওনার কান্না যেন থামতে চাইছিল না৷ অত রাতেও উনি বিমানবন্দরে পৌঁছে গিয়েছিলেন৷' এই পর্যন্ত বলেই কেঁদে ফেলেন প্রধানমন্ত্রী৷ নিজের কথাও শেষ করতে পারেননি তিনি৷ গুলাম নবি আজাদকে স্যালুটও করেন তিনি৷

    প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিরোধী দলনেতা হিসেবে গুলাম নবি আজাদের স্থলাভিষিক্ত যিনি হবেন, তাঁর কাজটা কঠিন হতে চলেছে৷ কারণ আজাদ যেভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন, সেই জায়গা পূরণ করা মুশকিল৷ প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'ক্ষমতা তো আসবে যাবে, কিন্তু কীভাবে তার ব্যবহার করতে হয়, সেটা গুলাম নবি আজাদের থেকে শিখতে হয়৷ আপনি একজন প্রকৃত বন্ধু৷'

    নরেন্দ্র মোদি যখন এই সমস্ত কথা বলছেন, তখন কিছুটা যেন বিহ্বল হয়ে পড়েন প্রবীণ সাংসদও৷ তবে মাস্কের আড়ালেও তাঁর মুখে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতার বোধের হাসি স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছিল৷ আজাদের উদ্দেশে নরেন্দ্র মোদি বলেন, 'সব সাংসদের জন্যই আমার দরজা খোলা থাকে, কিন্তু আপনার জন্য তা আরও বেশি করে উন্মুক্ত থাকবে৷ আপনার মতো মানুষের অভিজ্ঞতা, পরামর্শ দেশের প্রয়োজন৷'

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: