গডসেকে 'দেশভক্ত' বলে ক্ষমা চাইলেন সাধ্বী, তবে শর্তসাপেক্ষে

গডসেকে 'দেশভক্ত' বলে ক্ষমা চাইলেন সাধ্বী, তবে শর্তসাপেক্ষে
সাধ্বী প্রজ্ঞা

এ রাজার বক্তব্য শেষ হতে না হতেই মাঝপথে তাঁকে থামিয়ে সাধ্বী প্রজ্ঞা চিৎকার করে বলে ওঠেন, 'আপনি একজন দেশভক্তের উদাহরণ দিতে পারেন না৷'

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ভাঙলেন, তবু মচকালেন! মহাত্মা গান্ধির হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে দেশভক্ত বলে তুমুল নিন্দার মুখে সংসদে 'শর্তসাপেক্ষ' ক্ষমা চাইলেন বিজেপি সাংসদ সাধ্বী প্রজ্ঞা৷ বললেন, 'আমার বক্তব্যকে বিকৃত করা হয়েছে৷ যে ভাবে বিকৃত করা হয়েছে, তা নিন্দার৷ আমার বক্তব্যের অন্য মানে ছিল৷' একই সঙ্গে সুর চড়ালেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধির 'জঙ্গি' মন্তব্য নিয়েও৷ বিজেপি-র ভোপালের সাংসদের কথায়, 'আমাকে জঙ্গি বলা ঠিক হয়নি৷ আমার বিরুদ্ধে জঙ্গি কার্যকলাপের কোনও প্রমাণ নেই৷'

সাধ্বী প্রজ্ঞা এ দিন ক্ষমা চাইতেই কংগ্রেস দাবি করতে শুরু করে, তাঁকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে৷ বুধবার সংসদে দাঁড়িয়ে মহাত্মা গান্ধির হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে দেশপ্রেমিক বলে আখ্যা দেন ভোপালের বিজেপি সাংসদ৷ সংসদে এসপিজি সংশোধনী বিল নিয়ে আলোচনা চলাকালীন ডিএমকে সাংসদ এ রাজা নাথুরাম গডসের একটি উদ্ধৃতি উল্লেখ করে বলেন, 'নাথুরাম গডসে নিজেই স্বীকার করেছেন, গান্ধীকে মারার আগে ৩২ বছর ধরে তাঁর প্রতি বিদ্বেষ পুষে রেখেছিল।' এ রাজার বক্তব্য শেষ হতে না হতেই মাঝপথে তাঁকে থামিয়ে সাধ্বী প্রজ্ঞা চিৎকার করে বলে ওঠেন, 'আপনি একজন দেশভক্তের উদাহরণ দিতে পারেন না৷'

ঘটনার পরেই রাহুল গান্ধি ট্যুইট করেন, 'জঙ্গি প্রজ্ঞা জঙ্গি গডসেকে দেশভক্ত বানিয়ে দিয়েছে৷ সংসদয়ী গণতন্ত্রে বড়ই দুঃখের দিন৷' প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালে মালগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত প্রজ্ঞা৷ এ দিন সাধ্বী সংসদে বলেন, 'আমার বক্তব্যে যদি কারও মনে আঘাত লেগে থাকে, আমি ক্ষমাপ্রার্থী৷ কিন্তু যে ভাবে আমার বক্তব্যকে বিকৃত করা হল, তা নিন্দাযোগ্য৷ আমাকে জঙ্গি বলা হয়েছে৷ কিন্তু আমার বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ নেই৷' সাধ্বী যখন এই কথা বলছেন, তখন সংসদে চিত্‍কারে ফেটে পড়ছেন বিরোধীরা৷

সাধ্বীর পাশে দাঁড়িয়ে বিজেপি সাংসদ নিশীকান্ত দুবে বলেন, 'সাধ্বীকে জঙ্গি বলা, মহাত্মা গান্ধিকে হত্যার চেয়েও খারাপ৷'

First published: 03:07:44 PM Nov 29, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर