• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • স্ট্যাচু অফ ইউনিটি! বিশ্বের সর্বোচ্চ মূর্তি দেশবাসীকে উত্‍‌সর্গ মোদির

স্ট্যাচু অফ ইউনিটি! বিশ্বের সর্বোচ্চ মূর্তি দেশবাসীকে উত্‍‌সর্গ মোদির

মূর্তি উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী -- ছবি সৌজন্য: বিজেপি-র টুইটার হ্যান্ডেল

মূর্তি উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী -- ছবি সৌজন্য: বিজেপি-র টুইটার হ্যান্ডেল

স্বাধীনতার আগে ভারতভূখণ্ডের ৫৬২টি রাজ্যকে একত্রিত করে রিপাবলিক অফ ইন্ডিয়া তৈরি করেছিলেন৷ সর্দার পটেলের ১৪৩তম জন্মবার্ষিকীকে উদযাপন করতেই এই সুবিশাল মূর্তি৷

  • Share this:

    #সুরাট: উচ্চতায় প্রায় ৬০০ ফুট৷ চিনের স্প্রিং টেম্পলের বুদ্ধ মূর্তির চেয়েও ২৩ মিটার উঁচু৷ মার্কিন মুলুকের স্ট্যাচু অফ লিবার্টি থেকেও৷ স্ট্যাচু অফ লিবার্টির উচ্চতা ৯৩ মিটার৷ বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি উন্মোচন করলেন সর্দার বল্লভভাই পটেলের মূর্তিটি৷

    ভারতের 'লৌহমানব' ও স্বাধীন ভারতের প্রথম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী৷ স্বাধীনতার আগে ভারতভূখণ্ডের ৫৬২টি রাজ্যকে একত্রিত করে রিপাবলিক অফ ইন্ডিয়া তৈরি করেছিলেন৷ সর্দার পটেলের ১৪৩তম জন্মবার্ষিকীকে উদযাপন করতেই এই সুবিশাল মূর্তি৷ স্টাচু অফ ইউনিটি -- ছবি সৌজন্য -- প্রধানমন্ত্রীর টুইটার স্টাচু অফ ইউনিটি -- ছবি সৌজন্য -- প্রধানমন্ত্রীর টুইটার  গুজরাটের কেবাডিয়ায় এই মূর্তি উন্মোচন করলেন নরেন্দ্রভাই দামোদর দাস মোদি৷ মূর্তিটি জনসাধারণের জন্য খোলা হবে ৩ নভেম্বর৷ ছিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহও৷ টিকিট মিলছে www.soutickets.in-এ৷ নর্মদা নদীর তীরে এই সুবিশাল মূর্তির সঙ্গে যোগসূত্র স্থাপন করবে ৩.৫ কিমি হাইওয়ে৷ সোজা কেবাডিয়া শহর পর্যন্ত৷ মূর্তিটি তৈরিতে খরচ হয়েছে ২ হাজার ৯৮৯ কোটি টাকা৷ জেনে নেওয়া যাক স্ট্যাচু অফ ইউনিটি সম্পর্কে কিছু তথ্য-- ১. বিশ্বের সবচেয়ে বড় মূর্তি স্ট্যাচু অফ ইউনিটি৷ মার্কিন মুলুকের স্ট্যাচু অফ লিবার্টির চেয়েও উঁচু৷ মূর্তিটি তৈরি করেছে ইনজিনিয়ারিং সংস্থা L&T৷ এমন ভাবে তৈরি করা হয়েছে, রিখটার স্কেলে ৬.৫ মাত্রার ভূমিকম্পেও কোনও ক্ষতি হবে না মূর্তির৷ এমন একটি জায়গায় মূর্তিটি রাখা হচ্ছে, যেখানে মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট ও মহারাষ্ট্রের সংযোগস্থল৷ ১৩৫ মেট্রিক টন লোহা লেগেছে৷ স্ট্যাচু অফ ইউনিটি স্ট্যাচু অফ ইউনিটি   ২. ৩ হাজার কর্মী সাড়ে ৩ বছর ধরে মূর্তিটি নির্মাণ করেছেন৷ যার মধ্যে L&T-র ৩০০ ইনজিনিয়ার রয়েছেন৷  

    ৩. ২০১০ সালে আহমেদাবাদে পুরভোটের মুখে মূর্তিটি তৈরির কথা ঘোষণা করেছিলেন গুজরাটের তত্‍কালীন মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷

    ৪. ১ লক্ষ ৬৯ হাজারটি গ্রামের প্রায় ১ কোটি কৃষক ১২৯ টন লোহা দান করেছেন৷

    ৫. পদ্মভূষণ প্রাপ্ত ভাস্কর রাম ভি সুতার মূর্তিটির নেপথ্যে রয়েছেন৷ অসাধারণ ব্রোঞ্জের কাজ করেছে চিনের বিখ্যাত সংস্থা৷

    ৬. একসঙ্গে ২০০ মানুষ যাতে মূর্তিটি চাক্ষুষ করতে পারেন, তার জন্য বিশাল গ্যালারি তৈরি করা হয়েছে৷

    ৭. তিনটি স্তরের এই মূর্তির একদম উপরের স্তর কংক্রিটের৷ দ্বিতীয় স্তর স্টিল ও তৃতীয় স্তরে ৮এমএম ব্রোঞ্জের৷

    ৮. মূর্তির মাথায় পৌঁছতে দুটি লিফট থাকছে৷ একসঙ্গে ২৬ জনকে চটজলদি উপরে নিয়ে যাবে সেই লিফট৷

    First published: