• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • PM CARES FUND GIVES APPROVAL FOR INSTALLATION OF 551 OXYGEN PLANTS IN HOSPITALS DMG

Oxygen Crisis: দেশ জুড়ে সরকারি হাসপাতালে ৫৫১টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট, অনুমোদন দিল PM Cares Fund

প্রতীকী ছবি৷

দেশজুড়ে বিভিন্ন রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির জেলা সদরের বাছাই করা সরকারি হাসপাতালগুলিতে এই প্রেসার স্যুইং অ্যাডসর্পশন মেডিক্যাল অক্সিজেন জেনারেশন প্ল্যান্টগুলি বসানো হবে৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: দেশজুড়ে অক্সিজেনের তীব্র সংকটের (Oxygen Crisis) পর গোটা দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ৫৫১টি অক্সিজেন জেনারেশন প্ল্যান্ট বসানোর অনুমোদন দিল পিএম কেয়ার্স ফান্ড (PM Cares Fund)৷ অক্সিজেনের জন্য বেশ কয়েকটি রাজ্যে হাহাকার চলছে৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে অবিলম্বে হাসপাতালগুলিকে পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহে সবরকম পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ তার পরই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে৷ ইতিমধ্যেই আগামী তিন মাস বিদেশ থেকে করোনার প্রতিষেধক আনার ক্ষেত্রে আমদানি শুল্ক মকুব করারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ মেডিক্যাল অক্সিজেন এবং তার ব্যবহারের জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের উপরেও প্রাথমিক আমদানি শুল্ক এবং সেস তিন মাসের জন্য মকুব করেছে কেন্দ্র৷

    দেশজুড়ে বিভিন্ন রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির জেলা সদরের বাছাই করা সরকারি হাসপাতালগুলিতে এই প্রেসার স্যুইং অ্যাডসর্পশন মেডিক্যাল অক্সিজেন জেনারেশন প্ল্যান্টগুলি বসানো হবে৷ প্ল্যান্ট বসানোর জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফেই কেনা হবে৷ প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, যত দ্রুত সম্ভব এই অক্সিজেন প্ল্যান্টগুলি চালু করে দিতে হবে৷ এর ফলে জেলা স্তরে অক্সিজেন সরবরাহের ঘাটতি অনেকটাই মিটবে বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় সরকার৷

    কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং ট্যুইট করে এই সিদ্ধান্তের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেছেন৷ প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো-র তরফে ট্যুইট করে অবশ্য দাবি করা হয়েছে, এই বছরের শুরুতেই পিএম কেয়ার্স ফান্ড থেকে ১৬২টি প্রেসার স্যুইং অ্যাডসর্পশন মেডিক্যাল অক্সিজেন জেনারেশন প্ল্যান্ট বসানোর জন্য ২০১.৫৮ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল৷ হাসপাতালের ভিতরেই এই ধরনের ছোট প্ল্যান্ট থাকলে হাসপাতালগুলির দৈনিক অক্সিজেনের চাহিদা সেখান থেকেই মেটানো সম্ভব হবে বলে দাবি কেন্দ্রের৷ জেলা স্তরের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো অনেকটাই শক্তিশালীও হবে৷

    দেশের বিভিন্ন রাজ্যে অক্সিজেনের সংকট দেখা দেওয়ার পর বোঝা গিয়েছে, দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্যত্র অক্সিজেন নিয়ে যেতেই অনেকটা সময় চলে যাচ্ছে৷ এমনও বোঝা গিয়েছে, এই ধরনের অক্সিজেন পরিবহণের জন্য প্রয়োজনীয় ট্যাঙ্কারেরও অভাব রয়েছে দেশে৷ ফলে দীর্ঘ পথ পেরিয়ে হাসপাতালে অক্সিজেন পৌঁছে দিতেই অনেকটা সময় চলে যাচ্ছে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: