• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • PIB CLAIMS THAT PRIME MINISTER APPEAL FOR LIGHTING CANDLES IS ONLY A SYMBOLIC STEP TO FIGHT CORONAVIRUS DMG

জ্যোতিষ মত থেকে তাপমাত্রা বৃদ্ধি, মোমবাতি নিয়ে গুজব রুখতে ব্যাখ্যা কেন্দ্রের

নরেন্দ্র মোদি৷ PHOTO- FILE

শুক্রবার সকালে ভিডিও বার্তায় প্রধানমন্ত্রীর এই আবেদনের পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বিভিন্ন রকমের ব্যাখ্যা শুরু হয়৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: আগামী ৫ এপ্রিল রাত ৯টা থেকে ৯ মিনিটের জন্য সমস্ত বৈদ্যুতিন আলো নিভিয়ে দিয়ে তার বদলে মোমবাতি, প্রদীপ বা টর্চ জ্বালানোর আবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দেশ যে একজোট, সেই বার্তা দিতেই শুক্রবার সকালে দেশবাসীর কাছে এই আবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী৷

    নরেন্দ্র মোদির এই আবেদনকে বহু মানুষ যেমন স্বতঃস্ফূর্তভাবে সমর্থন জানিয়েছেন, সেরকমই অনেকে এর কোনও যৌক্তকতা খুঁজে পাননি৷ কিন্তু প্রধানমন্ত্রী কেন হঠাৎ আলো নিভিয়ে দিয়ে মোমবাতি বা প্রদীপ জ্বালানোর বার্তা দিলেন, তার নানারকম কল্পনাপ্রসূত ব্যাখ্যা ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ যে সমস্ত ব্যাখ্যার কোনও বাস্তবতা বা বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই৷ একসময়ে তা এমন পর্যায়ে পৌঁছয় যে শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রীয় সরকারের প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো-র তরফে একটি বিবৃতি জারি করা হয় শুক্রবার সন্ধ্যায়৷

    সেই বিবৃতিতে স্পষ্ট জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর আবেদনের ব্যাখ্যা দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় যে সমস্ত গুজব এবং অপব্যাখ্যা চলছে, তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন৷ এই সমস্ত মেসেজে বিশ্বাস না করার জন্য সাধারণ মানুষের কাছে আবেদন জানানো হয়৷ পাশাপাশি পিআইবি-র টুইটারে স্পষ্ট লেখা হয়, করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে একজোট হয়ে লড়াইয়ের জন্য আত্মবিশ্বাস জোগাতে এবং পাশে থাকার বার্তা দিতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে৷ একই সঙ্গে যে প্রধানমন্ত্রীর আবেদনের অপব্যাখ্যা করে যে ভুয়ো মেসেজগুলি ছড়িয়ে পড়েছিল, তার কিছু স্ক্রিনশটও দিয়েছে পিআইবি৷

    শুক্রবার সকালে ভিডিও বার্তায় প্রধানমন্ত্রীর এই আবেদনের পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বিভিন্ন রকমের ব্যাখ্যা শুরু হয়৷ দ্রুত সেই মেসেজগুলি ফরওয়ার্ড হতে শুরু করে৷ তার মধ্যে অনেক মেসেজে দাবি করা হচ্ছিল যে, তাপমাত্রা বেড়ে গেল করোনা জীবাণু ধ্বংস হয়ে যায়৷ তাই একসঙ্গে অনেক মোমবাতি এবং প্রদীপ জ্বালিয়ে চারপাশের তাপমাত্রা বাড়িয়ে করোনা জীবাণু ধ্বংস করার জন্য এমন আবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী৷ অনেকে আবার এর সঙ্গে রাহু-কেতুর এবং নক্ষত্রের অবস্থানের যোগ খুঁজে পেয়েছিলেন৷ কিন্তু এর সবই যে মনগড়া মত এবং ভুয়ো ব্যাখ্যা, তা জানিয়ে দিল কেন্দ্রীয় সরকার৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: