ঈশ্বর বিশ্বাস! কোটি কোটি টাকা অনুদান, গুনতে গিয়ে বিরক্ত কর্মীরা

ঈশ্বর বিশ্বাস! কোটি কোটি টাকা অনুদান, গুনতে গিয়ে বিরক্ত কর্মীরা
প্রণামী বাক্স খুলে টাকা গুনছেন কর্মীরা

সম্প্রতি রাজস্থানের চিতোরের শ্রী শানওয়ালিয়া শেঠ মন্দিরে প্রায় সাত কোটি টাকার কাছে অনুদান মিলেছে।চতুর্দশীর দিন প্রণামী বাক্স খোলা হলে শুধু টাকা নয়, সোনা এবং রূপো পাওয়া গিয়েছে।

  • Share this:

    #চিতোরগড়: ঈশ্বরের ওপর থেকে বিশ্বাস উঠে যাচ্ছে? ঈশ্বরের অস্তিত্ব নিয়ে বারবার মনের কোণে প্রশ্ন উঠছে? কিছুতেই মনকে শান্ত করতে পারছেন না? ভারতবর্ষ এমনই একটি দেশ, যে দেশের আর্থিক পরিকাঠামো, জিডিপি যতই নীচে হোক, ঈশ্বর বিশ্বাসী মানুষের অভাব নেই। মানুষ এদেশে ঈশ্বরকে যেমন মূর্তি হিসেবে পুজো করে, তেমনই ঈশ্বরের ভোগ খাওয়া এবং আর্থিক অনুদান বিরাট জায়গা জুড়ে রয়েছে। সম্প্রতি রাজস্থানের চিতোরের শ্রী শানওয়ালিয়া শেঠ মন্দিরে প্রায় সাত কোটি টাকার কাছে অনুদান মিলেছে।

    চতুর্দশীর দিন প্রণামী বাক্স খোলা হলে শুধু টাকা নয়, সোনা এবং রূপো পাওয়া গিয়েছে। মন্দির কর্তৃপক্ষ এক ডজন কর্মচারীকে ওই টাকা গোনার কাজে লাগান। একটা সময়ের পর গুনতে গুনতে তাঁরাও হাঁফিয়ে ওঠেন। শেষপর্যন্ত গোনা শেষ হলে দেখা যায় অনুদান পাওয়া গিয়েছে ছয় কোটি সতেরো লাখ,বারো হাজার দুশো টাকা। টাকা গোনার সময় কেউ যেন তা সরিয়ে নিতে না পারে সেটা দেখার জন্য উপস্থিত ছিলেন মন্দির কমিটির চেয়ারম্যান এবং স্থানীয় জেলা আধিকারিক।তবে এই পরিমান অনুদান রাজস্থানের এই মন্দিরের কাছে রেকর্ড হলেও ভারতবর্ষের একাধিক মন্দিরে এই পরিমাণ অনুদান নতুন কিছু নয়।

    কেরলের পদ্মনাভস্বামী মন্দির থেকে শুরু করে তিরুপতি, শিরিডি সাইবাবা, সোমনাথ মন্দির থেকে পুরীর জগন্নাথ মন্দির। প্রচুর অনুদান জমা হয় এসব মন্দিরে।ধরা যাক রাম মন্দিরের কথা।মাত্র তিনদিনে ১০০ কোটি টাকা অনুদান সংগ্রহ করে রেকর্ড গড়েছিল রাম মন্দির (Ram Mandir) ট্রাস্ট। অনুদান কর্মসূচি নিয়ে রবিবার শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক চম্পত রাই জানিয়েছিলেন তিনদিনের মধ্যে প্রায় ১০০ কোটি টাকার অনুদান সংগ্রহ হয়েছে। গত ১৫ জানুয়ারি থেকে অনুদান সংগ্রহের এই কর্মসূচি শুরু হয়েছে, যা আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।


    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: