রাম রহিমের ডেরায় ৭ বছর ধরে বন্দি রয়েছে মেয়ে, উঠল নয়া অভিযোগ

রাম রহিমের ডেরায় ৭ বছর ধরে বন্দি রয়েছে মেয়ে, উঠল নয়া অভিযোগ
এবার তার বিরুদ্ধে আরও ভয়ানক অভিযোগ জানাল দাদরির তিবালা গ্রামের এক বাসিন্দা ৷ অভিযোগ তাদের মেয়ে রেনু ওরফে শ্রদ্ধাকে ডেরাতে আটকে রাখা হয়েছে ৷

এবার তার বিরুদ্ধে আরও ভয়ানক অভিযোগ জানাল দাদরির তিবালা গ্রামের এক বাসিন্দা ৷ অভিযোগ তাদের মেয়ে রেনু ওরফে শ্রদ্ধাকে ডেরাতে আটকে রাখা হয়েছে ৷

  • Share this:

    #রোহতক: যতদিন যাচ্ছে তত একের পর এক বাবা রাম রহিমের কুকীর্তির কথা প্রকাশ্যে আসছে ৷ তিন বছর ধরে টানা ধর্ষণ করেছিলেন স্বঘোষিত ধর্মগুরু। শাস্তি হিসাবে জেলে কাটাতে হবে ২০ বছর। দুই সাধ্বীকে ধর্ষণের দায়ে গুরমিত রাম রহিমকে ১০ বছর করে দুটি অপরাধে কারাদণ্ডের রায় দিয়েছে বিশেষ সিবিআই আদালত। এবার তার বিরুদ্ধে আরও ভয়ানক অভিযোগ জানাল দাদরির তিবালা গ্রামের এক বাসিন্দা ৷ অভিযোগ তাদের মেয়ে রেনু ওরফে শ্রদ্ধাকে ডেরাতে আটকে রাখা হয়েছে ৷

    অনাথ এই মেয়েটি আশ্রমে যাওয়ার পর আর কোনওদিন গ্রামে ফেরেনি ৷ ২০০৬ সালে ভাইয়ের সঙ্গে ডেরায় পড়াশোনা করতে গিয়েছিল শ্রদ্ধা ৷ এরপর থেকে দু’জন আর ফেরেনি ৷ অনেক চেষ্টা করার পর শ্রদ্ধার ভাই জয়জিৎকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয় ডেরা ৷ কিন্তু শ্রদ্ধার এখনও পর্যন্ত কোনও হদিশ মেলেনি ৷ পরিবারের অভিযোগ তাকে বন্দি করে রাখা হয়েছিল ৷ এখন সে বেঁচে রয়েছে কিনা সে বিষয়েও তারা কিছু জানে না ৷

    ডেরার উপর ভরসা করে পড়াশোনা করার জন্য শ্রদ্ধা ও তার ভাইকে আশ্রমে পাঠানো হয়েছিল ৷ কিন্তু কিছুদিন পর ডেরায় গেলে শ্রদ্ধার সঙ্গে তার পরিবারকে দেখা করতে দেওয়া হয়নি ৷ জয়জিৎ লুকিয়ে কখনও কখনও পরিবারের সঙ্গে দেখা করে যেত ৷ সাত বছর ধরে শ্রদ্ধার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তার পরিবারের সদস্যরা ৷ মেয়েকে উদ্ধার করার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতিকে চিঠি লিখেছে তার পরিবারের সদস্যরা ৷


    First published: