Home /News /national /
পাঁচকুলার ডিসিপি সাসপেন্ড, শনিবার দিনভর শান্তই থাকল হরিয়ানা

পাঁচকুলার ডিসিপি সাসপেন্ড, শনিবার দিনভর শান্তই থাকল হরিয়ানা

Photo: PTI

Photo: PTI

প্রশাসন শক্ত হাতে রাশ ধরায় শনিবার দিনভর শান্তই থাকল পঞ্জাব ও হরিয়ানা।

  • Share this:

    #পাঁচকুলা: শুক্রবার কয়েক ঘণ্টার তান্ডবে ৩২ জনের মৃত্যুর ক্ষত এখনও শুকোয়নি। তবে প্রশাসন শক্ত হাতে রাশ ধরায় শনিবার দিনভর শান্তই থাকল পঞ্জাব ও হরিয়ানা। পাঁচকুলা ও সিরসায় দিনভর টহল দিয়েছে সেনা। সিরসায় ডেরার সদর দপ্তরও ঘিরে রাখলেও দপ্তরের ভিতরে ঢোকেনি সেনা। পঞ্জাব ও হরিয়ানায় ডেরার ৩৬টি দফতরেও এদিন তালা লাগিয়ে দেয় পুলিশ। শুক্রবার তান্ডবের ঘটনায় সরাসরি যুক্তদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত পুলিশের। রাম রহিমের সম্পত্তি বিক্রিরও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে ৷

    শুক্রবার নজিরবিহীনভাবে রাস্তায় নেমে তাণ্ডব চালিয়েছিল ডেরা সমর্থকরা। শনিবার ছবিটা রাতারাতি বদলে গেল। প্রশাসন শক্ত হতেই রাতারাতি উধাও ডেরা সমর্থকরা। সেনা নামতেই সিরসা, পাঁচকুলা থেকে পাতাতাড়ি গুটিয়েছিল বাবার চ্যালারা। রোহতক, কৈথালি, ভাবনগরের মতো এলাকাতেও তাদের দেখা মেলেনি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বেশ কিছু ব্যবস্থা নিয়েছিল প্রশাসন।

    পাঁচকুলা ও সিরসায় শনিবার মোতায়েন হয় সেনা ৷ জারি হয় দেখলেই গুলি করার নির্দেশ ৷ শুক্রবার রাত থেকেই তিন রাজ্যের সব এন্ট্রি পয়েন্ট সিল করা হয় ৷ রাম রহিমের বডিগার্ড ও হামলায় যুক্তদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা করা হয়েছে ৷ সেনা নামিয়ে ঘিরে ফেলা হয় ডেরার আশ্রম ৷ ৩৬ টি দফতর সিল করার পাশাপাশি উদ্ধার হয় আড়াই হাজার লাঠি-সহ বহু ধারালো অস্ত্র ৷

    বেলার দিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পঞ্জাবের ৪ টি জেলা থেকে কার্ফু প্রত্যাহারও করা হয়। তবে সিরসা ও পাঁচকুলা নিয়ে এখনও নরম হওয়ার লক্ষণ দেখাচ্ছে না প্রশাসন। সূত্রের খবর, এই দুই এলাকায় এখনও গা-ঢাকা দিয়ে আছেন বেশ কিছু ডেরা সমর্থক। তাদের অনেকে সিরসায় ডেরার আশ্রমেও ঘাঁটি গেড়েছে। আর তাই ডেরার আশ্রম অভিযান চালাতে গিয়ে কিছুটা বাধার মুখে পড়তে হয় সেনা ও পুলিশকে। পাথর ছুঁড়ে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন অন্তত ৫ হাজার ডেরা সমর্থক। তবে ৪৫ মিনিটের মধ্যেই অপারেশন শেষ করে সেনা। যদিও সেনার দাবি, নিরাপত্তার কারণে আশ্রম ঘেরা ফেললেও ভিতরে ঢোকার চেষ্টা হয়নি।

    সোমবার রাম রহিমকে আদালতে হাজির করানোও এখন পুলিশের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ। কীভাবে সেই কাজ হবে, তার রূপরেখাও অনেকটাই চূড়ান্ত। শনিবার বিকেলে হরিয়ানা ও পঞ্জাব পুলিশের ডিজির সঙ্গে কথা বলেন অজিত দোভাল। সোমবারের প্রস্তুতির ব্লু-প্রিন্ট তৈরি হয়েছে সেখানেই।

    75a9a6908e414914b3261bf35e6ebc1d-75a9a6908e414914b3261bf35e6ebc1d-0

    First published:

    Tags: Dera Sacha Sauda, Gurmeet Ram Rahim Singh, Panchkula, Sirsa

    পরবর্তী খবর