• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • আবার আদালতে আবেদন নির্ভয়া ধর্ষকদের একজনের, নতুন করে আইনি সাহায্য চাইল মুকেশ সিং

আবার আদালতে আবেদন নির্ভয়া ধর্ষকদের একজনের, নতুন করে আইনি সাহায্য চাইল মুকেশ সিং

আইনজীবী এমএল শর্মার এই আবেদনে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার, দিল্লি সরকার ও আইনজীবী বৃন্দা গ্রোভার মিলিত ভাবে ‘অপরাধমূলক ষড়য়ন্ত্র’ ও ‘জালিয়াতি’ করেছে মুকেশের সঙ্গে৷

আইনজীবী এমএল শর্মার এই আবেদনে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার, দিল্লি সরকার ও আইনজীবী বৃন্দা গ্রোভার মিলিত ভাবে ‘অপরাধমূলক ষড়য়ন্ত্র’ ও ‘জালিয়াতি’ করেছে মুকেশের সঙ্গে৷

আইনজীবী এমএল শর্মার এই আবেদনে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার, দিল্লি সরকার ও আইনজীবী বৃন্দা গ্রোভার মিলিত ভাবে ‘অপরাধমূলক ষড়য়ন্ত্র’ ও ‘জালিয়াতি’ করেছে মুকেশের সঙ্গে৷

  • Share this:

    #নয়া দিল্লি: ফের আদালতে আবেদন করল নির্ভয়া কাণ্ডের দোষী মুকেশ সিং৷ শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করে সে অভিযোগ করেছে, তার আইনজীবী তাকে ভুল পথে চালিত করেছে৷ তাই তাকে নতুন করে আইনি সাহায্য দেওয়া হোক৷

    আইনজীবী এমএল শর্মার এই আবেদনে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার, দিল্লি সরকার ও আইনজীবী বৃন্দা গ্রোভার মিলিত ভাবে ‘অপরাধমূলক ষড়য়ন্ত্র’ ও ‘জালিয়াতি’ করেছে মুকেশের সঙ্গে৷ তাই নতুন করে তাকে আইনি সাহায্য দিতে হবে৷

    বৃহস্পতিবার আদালত আগামী ২০ মার্চ সকাল সাড়ে পাঁচটার সময় চার দোষীর ফাঁসির দেওয়ার কথা ঘোষণা করে৷ জারি করা হয় পরোয়ানা৷ আর তারপরেই নতুন করে এই আবেদন করা হল৷ সেখানে স্পষ্টতই লেখা হয়েছে, আবেদনকারী (মুকেশ সিং) ‘অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র’ ও ‘জালিয়াতি’-র শিকার৷ এই কাজে জড়িত রয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক, দিল্লি সরকার ও বৃন্দা গ্রোভার ও অন্য সমস্ত আইনজীবীরা৷

    তাঁদের কথা ছিল, আদালতের নির্দেশে প্রেক্ষিত বেশ কিছু নথি তাঁদের জমা দেওয়ার কথা ছিল৷ সেগুলি তাঁরা জমা করেননি৷ আদালত নির্দেশ দিয়েছিল পিটিশন জমা দেওয়ার জন্য মুকেশের থেকে কয়েকটি নথি নিয়ে বৃন্দার জমা করার কথা ছিল৷ সেগুলি তিনি করেননি৷ আবেদনে আরও বলা হয়েছে, রাজনৈতিক কারণে ও ইচ্ছা করে এই ঘটনা ঘটিয়েছেন আইনজীবী৷ আদালতে গিয়ে মুকেশের আইনজীবী নাকি একাধিক নথিতে তাকে সই করিয়েছেন এই বলে যে আদালত কিউরেটভ পিটিশন দাখিল করার জন্য এই নথিগুলিতে সই করতে বলেছে৷ কিন্তু পরে দেখা গিয়েছে, আদালত সই করার এমন কোনও নির্দেশই দেননি৷

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published: