• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • NIA COURT IN GUWAHATI ACQUITTED ACTIVIST AND MLA AKHIL GOGOI AND THREE OTHERS IN A SEDITION CASE ALONG WITH OTHER CHARGES SS

Akhil Gogoi: মুক্তির খবরে খুশি অসম, CAA বিরোধিতা মামলা থেকে অবশেষে রেহাই মিলল অখিল গগৈয়ের!

বছর দেড়েক পরে মিলেছে সুবিচার, জানা গিয়েছে যে অবশেষে মুক্তি পেতে চলেছেন অখিল!

বছর দেড়েক পরে মিলেছে সুবিচার, জানা গিয়েছে যে অবশেষে মুক্তি পেতে চলেছেন অখিল!

  • Share this:

#গুয়াহাটি: সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট অ্যাক্ট (Citizenship Amendment Act), সংক্ষেপে CAA-র বিরোধিতা করেছিল দেশবাসীর এক বড় অংশ। এই প্রসঙ্গে খোদ রাজধানী দিল্লির বুকে জন্ম নেওয়া শাহিনবাগের আন্দোলনের কথা ভুলে গেলে চলবে না। তবে অসমের পরিস্থিতি ছিল কিছু উত্তপ্ত, সরকারের অভিযোগ ছিল যে অসম রাজনীতির প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব অখিল গগৈ (Akhil Gogoi) CAA বিরোধিতাকে নিয়ে গিয়েছেন হিংসাত্মক আন্দোলনের পর্যায়ে। পরিণামে কারাগারে নিক্ষেপ করা হয়েছিল তাঁকে। তবে বছর দেড়েক পরে মিলেছে সুবিচার, জানা গিয়েছে যে অবশেষে মুক্তি পেতে চলেছেন অখিল!

জানা গিয়েছে যে ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (National Investigation Agency), সংক্ষেপে NIA-এর যে আদালতে অখিল এবং তাঁর অনুরাগীদের বিরুদ্ধে মামলা চলছিল, তা অবশেষে খারিজ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কেন না, আদালত অখিলকে সসম্মানে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাঁর বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ ছিল, তার সবগুলোই প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে বলে খবর মিলেছে। যদিও উত্তপ্ত পরিস্থিতি এত সহজে শান্ত হওয়ার নাম নিচ্ছে না। গগৈয়ের আইনজীবী জানিয়েছেন যে চাঁদমারি পুলিশ স্টেশন দ্বারা দাখিল করা মামলায় ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি বিশেষ এক সাক্ষী পেশ করতে চলেছে এবং এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তারা গগৈয়ের বিরুদ্ধে নতুন এক বিশেষ চার্জশিটও জমা দিতে চলেছে আদালতে। তবে সেই সব যুক্তি রদ করার পথ তৈরি আছে বলে গগৈ-অনুরাগীদের আশ্বাস দিয়েছেন তাঁর আইনজীবী। তিনি বলেছেন যে অবজেকশন তৈরিই আছে, খুব তাড়াতাড়ি তাঁরা সেটা আদালতে পেশ করতে চলেছেন।

প্রসঙ্গত, ভারতীয় সংবিধান দ্বারা স্বীকৃত ১৯৬৭ সালের আনলফুল অ্যাকটিভিটিজ প্রিভেনশন অ্যাক্ট (Unlawful Activities Prevention Act), সংক্ষেপে UAPA-এর অধীনে বন্দী করা হয়েছিল অখিলকে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে তিনি কারাগারেই ছিলেন, শুধু তাঁকে মায়ের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। তবে গত সপ্তাহে ছাবুয়া মামলায় রেহাই পেয়েছেন তিনি, এবার চাঁদমারি মামলাতেও সুবিচার তাঁর জন্য অপেক্ষা করছে বলে জানা গিয়েছে।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: