ভোপাল সিরিয়াল কিলার: সামনে এল উদয়নের এক সাহায্যকারীর নাম

ভোপাল সিরিয়াল কিলার: সামনে এল উদয়নের এক সাহায্যকারীর নাম

রায়পুরে উদয়নের বাবা-মা খুনে সামনে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

  • Share this:

#রায়পুর: রায়পুরে উদয়নের বাবা-মা খুনে সামনে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। খুনের পর হোসেঙ্গাবাদের ইটারসি পুরসভা থেকে বের করা হয় ইন্দ্রাণী দাসের ভুয়ো ডেথ সার্টিফিকেট। যা বের করতে সাহায্য করে হেলেনা অগাস্টিন দাস নামে এক নার্স। কে এই হেলেনা? কেন সে উদয়নকে সাহায্য করেছিল, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। পরে আকাঙ্খাকে খুন করে কেন উদয়ন বাঁকুড়ায় এসেছিল সে বিষয়টিও ভাবাচ্ছে তদন্তকারীদের।

সিরিয়াল সাইকো কিলিং থ্রিলার। লিভ ইন পার্টনারকে খুনের আগে বাবা-মাকেও খুন করে উদয়ন। এবার সামনে আসছে সাইকো কিলারের সহযোগী নার্সের নাম। বাবা-মার সম্পত্তি হাতিয়ে নিতে হেলেনা অগাস্টিন দাস নামে এক নার্স উদয়নকে সাহায্য করেছিল বলে জানতে পেরেছে পুলিশ। কীভাবে সাহায্য করেছিল হেলেনা  ? পুলিশ সূত্রে খবর,

-- বাবা ডি কে দাস ও মা ইন্দ্রাণী দাসকে খুনের পর এক বছর ধরে লাইফ সার্টিফিকেট দেখিয়ে মায়ের পেনশন ভোগ করে উদয়ন

-- পরে ভুয়ো ডেথ সার্টিফিকেট দিয়ে মায়ের নামে থাকা বাড়ি নিজের নামে করে

-- হোসেঙ্গাবাদের ইটারসি পুরসভা থেকে ২০১৩-র ৮ ফেব্রুয়ারি ইস্যু হয় উদয়নের মায়ের ডেথ সার্টিফিকেট

-- সেক্ষেত্রে ইলিনা দাস নামে এক নার্স সেই ডেথ সার্টিফিকেটের আবেদন করে

-- আবেদনে জানায়, গান্ধিনগরে ইলিনার বাড়িতে থাকতেন ইন্দ্রাণী দাস। সেখানেই ইন্দ্রাণীর মৃত্যু হয়

-- হেলেনা অগাস্টিন দাস হোসেঙ্গাবাদের JSR হাসপাতালে নার্স

-- দু’দিন ধরে হাসপাতালে অনুপস্থিত হেলেনা 

উদয়নের বাবা ও মা উদয়নের বাবা ও মা

অন্যদিকে আকাঙ্খাকে খুনের পর গত বছর অক্টোবরে বাঁকুড়ার রবীন্দ্রসরণিতে তাঁর বাড়িতে আসে উদয়ন। আকাঙ্খার ভাই আয়ূষের সঙ্গেই নিচের তলার ঘরে রাত কাটায় উদয়ন। তবে কি তাদেরও খুনের পরিকল্পনা ছিল সিরিয়াল কিলার উদয়নের? সন্তানের মৃত্যুর প্রাথমিক শোক কাটিয়ে এখন সেকথা ভেবে শিউড়ে উঠছে আকাঙ্খার পরিবার।

হেলেনা অগাস্টিন দাস  যে উদয়নের হাতে খুন হয়নি তা নিশ্চিত দু’দিন ধরে জেএসআর হাসপাতালে তাঁর অনুপস্থিতি। কিন্তু কেন উদয়নকে অপরাধে সাহায্য করল হেলেনা , এখন সেই প্রশ্ন ভাবাচ্ছে তদন্তকারীদের।

First published: 05:51:59 PM Feb 06, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर