• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • নির্যাতিতার হাতে রাখি পরলেই অভিযুক্তের জামিন! হাই কোর্টের নির্দেশে অবাক শীর্ষ আদালত

নির্যাতিতার হাতে রাখি পরলেই অভিযুক্তের জামিন! হাই কোর্টের নির্দেশে অবাক শীর্ষ আদালত

মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের মহিলা আইনজীবীরা ব্যাপারটিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখেন। তাদের মনে হয়, নির্যাতিতা মহিলাদের ন্যায়বিচার নিয়ে সেই বিচারপতি যেন ছিনিমিনি খেলছেন!

মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের মহিলা আইনজীবীরা ব্যাপারটিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখেন। তাদের মনে হয়, নির্যাতিতা মহিলাদের ন্যায়বিচার নিয়ে সেই বিচারপতি যেন ছিনিমিনি খেলছেন!

মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের মহিলা আইনজীবীরা ব্যাপারটিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখেন। তাদের মনে হয়, নির্যাতিতা মহিলাদের ন্যায়বিচার নিয়ে সেই বিচারপতি যেন ছিনিমিনি খেলছেন!

  • Share this:
    #নয়াদিল্লি: পড়শি মহিলাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে আদালতে তুলেছিল পুলিশ। সেই মামলার শুনানিতে মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের বিচারপতি অদ্ভুত নির্দেশ দেন। নির্যাতিতার হাত থেকে রাখি পরলেই ধর্ষণে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি জামিন পাবেন, এমনই শর্ত রাখেন সেই বিচারপতি। তাঁর এমন নির্দেশে আদালতে অন্য আইনজীবীদের মধ্যে হাসাহাসি পড়ে যায়। তবে মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের মহিলা আইনজীবীরা ব্যাপারটিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখেন। তাদের মনে হয়, নির্যাতিতা মহিলাদের ন্যায়বিচার নিয়ে সেই বিচারপতি যেন ছিনিমিনি খেলছেন! মহিলাদের বস্তু হিসেবে উপস্থাপিত করা হচ্ছে। মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের মহিলা আইনজীবীরা সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন এরপরই। সেই মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের বেঞ্চ মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের নির্দেশ শুনে অবাক হয়। সেই বিচারপতিকে ভর্ত্সনা করে শীর্ষ আদালত। সুপ্রিম কোর্টের তরফে এই মামলার শুনানির সময় দেশের বাকি আদালতগুলির উদ্দেশেও নির্দেশ দেওয়া হয়, মহিলাদের উপর অত্যাচারের যে কোনও মামলায় রায় বা নির্দেশ দেওয়ার ক্ষেত্রে যেন বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা হয়। গত বছর এপ্রিল মাসে প্রতিবেশী মহিলার বাড়িতে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছিলেন বিক্রম বাগরি নামের ওই ব্যক্তি। ইন্দৌরেরে ওই বাসিন্দা জামিনের আবেদন করেছিলেন আদালতে। ৩০ জুলাই মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের ইন্দৌর শাখা তাকে শর্তসাপেক্ষে জামিন দেওয়ার কথা জানায়। শর্ত ছিল, রাখিবন্ধন উত্সবের দিন পীড়িতা মহিলার হাত থেকে তাঁর বাড়ি গিয়ে রাখি পরতে হবে ওই ব্যক্তিকে। এমনকী ভবিষ্যতে ওই মহিলাকে সবরকম বিপদ থেকে বাঁচানোর প্রতিশ্রুতি দিতে হবে। ঠিক যেমনটা বড় দাদা তাঁর বোনকে প্রতিশ্রুতি দেয়। আর সেসব হবে আদালতের প্রতিনিধির সামনে। মহিলা আইনজীবীদের একাংশের দাবি, এই ধরণের অদ্ভুত নির্দেশ দেশের বহু আদালতই হালফিলে দিচ্ছে। যার ফলে মহিলাদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা সুনিশ্চিত তো দূর, আরও বিপদের মধ্যে পড়ছে। এই ধরনের মামলায় বিচারপতিদের আরও সংবেদনশীল হওয়া উচিত বলেও আইনজীবীদের একাংশ মনে করছে।
    Published by:Suman Majumder
    First published: