জিনিস ফেরাতে নয়া উদ্যোগ রেলের, ১৪ বছর আগে হারানো সোনার গয়না ফেরত পেলেন ব্যবসায়ী!

জিনিস ফেরাতে নয়া উদ্যোগ রেল পুলিশের, মুম্বইয়ে ব্যবসায়ী পেলেন ১৪ বছর আগে হারানো সোনার গয়না!

মুম্বইয়ে ট্রেন থেকে হারিয়ে যাওয়া জিনিস নির্দিষ্ট ব্যক্তির কাছে ফিরিয়ে দিচ্ছে পুলিশ। মুম্বই GRP-র তরফে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

  • Share this:

#মুম্বই: নিত্য দিন ট্রেনে যাতায়াত করেন এমন অনেকেই ছিনতাই, চুরির শিকার। ভিড় ট্রেনে এমন কাজ প্রায়শই হয়ে থাকে। প্ল্যাটফর্ম থেকে চুরির সংখ্যাও কম হয় না। কখনও ব্যাগ কেটে পালিয়ে যাওয়া, তো কখনও পকেট থেকে মানিব্যাগ তুলে নিয়ে যাওয়া। এই ধরনের ঘটনায় রেল পুলিশের কাছে অভিযোগ জানালেও সে ভাবে লাভ হয় না। চুরি হওয়া জিনিস ফেরত পাওয়া গিয়েছে এমন নজির কমই রয়েছে। ফলে মানুষের মধ্যে একটা ধারণা তৈরি হয়ে গিয়েছে যে চুরি হওয়া জিনিস আর ফেরত পাওয়া যায় না। কিন্তু এই ধারণাতেই এবার পরিবর্তন আনছে রেলওয়ে।

মুম্বইয়ে ট্রেন থেকে হারিয়ে যাওয়া জিনিস নির্দিষ্ট ব্যক্তির কাছে ফিরিয়ে দিচ্ছে পুলিশ। মুম্বই GRP-র তরফে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ল্যাপটপ, লাগেজ, ফোন বা নগদ টাকা, যা তাঁরা উদ্ধার করতে পেরেছেন, তাই ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে এই বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়। সোমবার মোট ১৪ লক্ষ টাকার সামগ্রী ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে। যা পেয়ে রীতিমতো খুশি ৩৪ জন যাত্রী।

মুম্বইয়ের ব্যবসায়ী সুরেশ সাভালিয়া। ২০০৭ সালে হাত ব্যাগ-সহ একটি ২২ গ্রাম সোনার চেন চুরি গিয়েছিল তাঁর। প্রায় ১৪ বছর পর সেই জিনিস ফেরত পেয়ে রীতিমতো আপ্লুত তিনি। GRP এই সোনার চেনের খোঁজ করে, যিনি এটি পরে কিনেছিলেন তাঁর কাছ থেকে উদ্ধার করে। তবে, চেন হিসেবে সোনা ফেরত পাননি ব্যবসায়ী কারণ যিনি কিনেছিলেন চেনটি তিনি সেটিকে সোনার বিস্কুটে পরিণত করেছিলেন। সেই বিস্কুটটিই ফেরত দেওয়া হয়।

শ্রীপুর জৈন নামে আরেক ব্যবসায়ী, যাঁর কম্পিউটারের ব্যবসা রয়েছে, তিনি জানিয়েছেন, ট্রেন থেকে একটি ফোন চুরি গিয়েছিল তাঁর গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে। তিনিও রেলওয়ে পুলিশকে জানিয়েছিলেন। মোবাইলের সমস্ত তথ্য দিয়েছিলেন। CCTV ফুটেজ খতিয়ে দেখে সেই মোবাইল ফোন খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা করে পুলিশ। গত বছর হারিয়ে যাওয়া ফোন এই বছর ফিরিয়ে দেওয়া হয়। ফোন ফিরে পাবেন এমনটা ভাবেনও তিনি। কিন্তু ফিরে পেয়ে খুশি তিনি।

যে কোনও জিনিস যে শুধুই প্রয়োজনে ব্যবহার হয়, এমন নয়। প্রয়োজন ছাড়াও অনেক জিনিসের সঙ্গেই ইমোশন জড়িয়ে থাকে। কারও অনেক স্মৃতি জড়িয়ে থাকে। ফলে ৩৪ জনই তাঁদের নিজেদের চুরি যাওয়া জিনিস ফিরে পেয়ে উচ্ছ্বসিত। এই উদ্যোগের জন্য সকলেই ধন্যবাদ জানিয়েছেন রেলওয়ে পুলিশকে।

শুধু এই বছর নয়, এর আগেও এমন চুরি যাওয়া জিনিস ফেরত দেওয়া হয়েছে মানুষকে। গত বছর কোভিড পরিস্থিতির মধ্যেই ৪.৫ কোটি টাকার সামগ্রী প্রায় ৩,৪০০ জনকে ফেরত দেওয়া হয়েছিল।

গার্গী দাস

Published by:Raima Chakraborty
First published: