২৪ ঘণ্টার মধ্যে আস্থা ভোট চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ কং-এনসিপি-শিবসেনা, শুরু হল রিসর্ট রাজনীতি

২৪ ঘণ্টার মধ্যে আস্থা ভোট চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ কং-এনসিপি-শিবসেনা, শুরু হল রিসর্ট রাজনীতি
শরদ পাওয়ার, সনিয়া গান্ধি ও উদ্ধব ঠাকরে

সূত্রের খবর, একটি চার্টার্ড বিমানে ৪৪ জন কংগ্রেস বিধায়ককে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে মধ্যপ্রদেশে৷ বিধায়কদের আটকে রাখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিংকে৷

  • Share this:

#মুম্বই: এই বার রিসর্ট রাজনীতি শুরু হল মহারাষ্ট্রে৷ ৩০ নভেম্বর বিধানসভা আস্থা ভোট৷ তার আগে কংগ্রেস ৪৪ জন বিধায়ককে ভোপালে পাঠিয়ে দিল একটি রিসর্টে৷ যাতে কোনও ভাবেই এনসিপি নেতা অজিত পাওয়ারের শিবিরে বা বিজেপি -তে চলে না যান বিধায়করা৷ কংগ্রেসের উদ্বেগ, ঘোড়া কেনাবেচা এই বার শুরু হতে পারে আস্থা ভোটের আগে৷ শনিবারই জাতীয় রাজনীতিকে চমকে দিয়ে অজিত পাওয়ার মহারাষ্ট্রের উপমুখ্যমন্ত্রী ও দেবেন্দ্র ফড়নবীশ পুনরায় মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিয়েছেন৷ অন্যদিকে, শরদ পাওয়ারের ডাকা বৈঠকে এনসিপি-র ৫৪ জন বিধায়কের মধ্যে ৫১ জন হাজির হয়েছেন৷ তার জেরে চাপ বাড়তে পারে অজিত পাওয়ার ও ফড়বীশের৷

সূত্রের খবর, একটি চার্টার্ড বিমানে ৪৪ জন কংগ্রেস বিধায়ককে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে মধ্যপ্রদেশে৷ বিধায়কদের আটকে রাখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিংকে৷ বিধানসভায় আস্থা ভোটে যাতে বিধায়করা বিজেপি-র বিরুদ্ধে ভোট দেন, তার জন্য মরিয়া কংগ্রেস৷ ২৪ অক্টোবর মবারাষ্ট্রে ভোটের রেজাল্ট বেরনোর পরেই সব বিধায়ককে জয়পুরে নিয়ে গিয়ে রিসর্টে রেখেছিল কংগ্রেস৷ কারণ, রাজস্থানে কংগ্রেস সরকার৷ অশোক গেহলট মুখ্যমন্ত্রী৷ শিবসেনা তাদের বিধায়কদের রেখেছে মুম্বইয়ের হোটেল ললিতে৷  

অন্যদিকে আস্থা ভোট আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাল শিবসেনা, কংগ্রেস ও এনসিপি৷ কংগ্রেস মনে করছে, আজ রাতেই সুপ্রিম কোর্টে শুনানি হতে পারে৷

শুক্রবার রাত পর্যন্তও ঠিক ছিল, সরকার গড়ছে এনসিপি-শিবসেনা-কংগ্রেস জোট৷ শনিবার সকালে হঠাত্‍ সব ঘুরে যায়৷ শেষ পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে সরকার গড়ল বিজেপি-এনসিপি জোট৷ শুক্রবার সম্ভাব্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে উদ্ধব ঠাকরের নামও ঘোষণা হয়েছিল৷ কিন্তু তার পর দিন সাত সকালেই পাল্টে গেল সব সমীকরণ৷ এনসিপির হাত ধরে জোট সরকার গড়ল বিজেপি৷ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন দেবেন্দ্র ফড়নবীশ৷ উপ মুখ্যমন্ত্রী হলেন শরদ পাওয়ারের ভাইপো অজিত পাওয়ার৷

উল্লেখ্য গত বুধবার নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেন শরদ পাওয়ার৷ তবে তাতে সরকার গঠন নিয়ে কোনও কথা হয়নি বলেই দাবি করে দুই দল৷ মোদি ও পাওয়ারের বৈঠকের পরপরই তড়িঘড়ি শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোটের পক্ষে মত দেন সোনিয়া গান্ধি৷ তারপরই শুরু হয় সরকার গঠনের প্রক্রিয়া৷ কিন্তু সেই সব প্রক্রিয়া ভেস্তে শেষ পর্যন্ত শেষ হাসি হাসলেন দেবেন্দ্র ফড়নবীশ৷ দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন তিনি৷ মহারাষ্ট্রের নতুন মুখ্যমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ট্যুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷

আরও ভিডিও: ঠিক কী ঘটেছে মহারাষ্ট্রে?

First published: 07:39:43 PM Nov 23, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर