নেই শববাহী গাড়ি, মায়ের মৃত দেহ বাইকে চাপিয়ে মর্গে গেলেন ছেলে

নেই শববাহী গাড়ি, মায়ের মৃত দেহ বাইকে চাপিয়ে মর্গে গেলেন ছেলে

ওড়িশার সেই দানা মাঝিকে মনে পড়ে ? যিনি অর্থের অভাবে স্ত্রীয়ের মৃতদেহ কাঁধে করে হেঁটে ছিলেন প্রায় ৩৫ মাইল ৷

  • Share this:

#তিকমগড়: ওড়িশার সেই দানা মাঝিকে মনে পড়ে ? যিনি অর্থের অভাবে স্ত্রীয়ের মৃতদেহ কাঁধে করে হেঁটে ছিলেন প্রায় ৩৫ মাইল ৷ সেরকমই এক ঘটনার সাক্ষী করল উত্তরপ্রদেশের তিকমগড় গ্রাম ৷ এই গ্রামেরই এক ছেলে, তাঁর মায়ের মৃতদেহকে বাইকে চাপিয়ে নিয়ে গেলেন মর্গে ! এই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হতেই ঝড় উঠল নেট দুনিয়ায় ৷

উত্তরপ্রদেশের তিকমগড়ের মস্তপুর গ্রামের বাসিন্দা কুনওয়ারবাঈ ছিলেন কাজে ব্যস্ত ৷ হঠাৎই কাজের মাঝে ছটফট করতে করতে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি ৷ সময় কাটতেই আত্মীয়স্বজ্জনরা বুঝে যান, কুনওয়ারবাঈকে সাপে কেটেছে ৷ দ্রুত তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ৷ তবে সেখানে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয় ৷ পুলিশ সিদ্ধান্ত নেয়, কুওয়ারাবাঈয়ের দেহ ময়নাতদন্ত করা উচিত ৷ কিন্তু মর্গে দেহ নিয়ে যাওয়ার জন্য শববাহী গাড়ির বন্দোবস্ত করতে পারে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ৷ অবশেষে ছেলে মায়ের মৃতদেহকে বাইকে চাপিয়েই মর্গে রওনা দেন ৷

আরও পড়ুন 

লটারির লোভে খোয়ালেন ১২ লক্ষ টাকা, প্রতারণার শিকার সরকারি চিকিৎক

Loading...

হাসপাতাল থেকে মর্গের দুরত্ব ৩৫ কিলোমিটার ৷ এমনকী, ময়নাতদন্তের পর মায়ের মৃতদেহ গ্রামেও ফিরিয়ে আনলেন ছেলে ৷ এই ঘটনা নজরে আসতেই তোলপাড় পড়ে যায় গোটা মধ্যপ্রদেশে ৷ অনেকেই প্রশ্ন করেন মধ্যপ্রদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে ৷ গোটা ঘটনার ভিডিও একে একে শেয়ার হতে থাকে সোশ্যাল মিডিয়া ৷ ওঠে তুমুল বিতর্ক ৷ বার বারই মনে পড়ে যায় ওড়িশার সেই দানা মাঝির ঘটনা৷

First published: 02:11:05 PM Jul 11, 2018
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर