দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাস্তা নোংরা বা থুথু ফেললেই ১হাজার টাকা স্পট ফাইন! এই নির্দেশ জারি করে শহর পরিচ্ছন্ন রাখছে ভোপাল

রাস্তা নোংরা বা থুথু ফেললেই ১হাজার টাকা স্পট ফাইন! এই নির্দেশ জারি করে শহর পরিচ্ছন্ন রাখছে ভোপাল

যথাস্থানে স্নান, বাসন ধোয়া এবং খোলা কাপড় ধোয়া ১০০০ টাকার জরিমানা করা হবে।

  • Share this:

#ভোপাল: মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপালকে পরিষ্কার ও সুন্দর করে তুলতে পৌর কর্পোরেশন কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যেখানে যত পরিমাণ ময়লা ছড়ানো হবে সেখানে তাৎক্ষণিক জরিমানা নেওয়া হবে। যদি রাস্তায় ময়লা ফেলা হয়, তবে ১০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। শহরকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় এক নম্বর করার প্রস্তুতি চলছে। গতবার, বর্জ্য নিষ্পত্তি না করায়, পরিচ্ছন্নতার ক্ষেত্রে ভোপালের নাম নীচে এসে গিয়েছিল এবং মধ্যপ্রদেশের অন্য শহর, ইন্দোর, দৌড়ে এগিয়ে যায়। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় অবহেলা করলে সাধারণের বিরুদ্ধে এখন কর্পোরেশন কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে। ঘটনাস্থলে জরিমানা দ্বিগুণ করেছে পৌরসভা। ফলে শহর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দিক অনেকাই উন্নত হয়েছে।

কর্পোরেশনের কমিশনার ভিএস চৌধুরী চৌধুরী নির্দেশ দিয়েছে শহর পরিষ্কার রাখার। এই আদেশের পরে, শহরের সমস্ত জোন ইনচার্জ তাদের নিজস্ব দল গঠন করে তাদের কার্যক্রম শুরু করেছেন। এই দলটি ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিচ্ছন্নতার মূল্যায়ন করছে এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ক্ষেত্রে যারা গাফিলত করছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে। এই পদক্ষেপটি পালন করার জন্য, শহরজুড়ে প্রচার পর্বও শুরু করা হয়েছে। রাস্তা নোংরা করলে যে আগে জরিমানা করা হত না, তা নয়৷ তবে এখন তার হার দ্বিগুণ করা হয়েছে৷ অর্থাৎ ৫০০-র পরিবর্তে তা ১ হাজার টাকার করা হয়েছে।

-যথাস্থানে স্নান, বাসন ধোয়া এবং খোলা কাপড় ধোয়া ১০০০ টাকার জরিমানা করা হবে।

-খোলা জায়গায় আবর্জনা ফেললে, রাস্তার যে কোনও জায়গায় থুথু ফললে, খোলা জায়গায় প্রস্রাব করলে বা মলত্যাগ করলে স্পট জরিমানা করা হবে ১০০০ টাকা

-কঠিন বর্জ্য আলাদা না রাখার জন্য, একই ডাস্টবিনে ভেজা ও শুকনো বর্জ্য রাখার জন্য ৫০০ টাকা জরিমানা স্থির করা হয়েছে।

- খোলা জায়গায় আবর্জনা পোড়ানোর জন্য ৫০০ টাকা জরিমানা রয়েছে।

ব্যবসায়িক কাজে গাফিলতির জন্য সাধারণ জনগণ ছাড়াও পৃথক স্পট জরিমানা নির্ধারণ করা হয়েছে। বড় বর্জ্য উৎপাদক দ্বারা আবর্জনা পোড়ানোর ক্ষেত্রে ১হাজার টাকার স্পট জরিমানা করা হবে। একই সময়ে, একই ডাস্টবিনে আবর্জনা জমা করার জন্য বড় বর্জ্য উৎপাদনকারীকে ১হাজার টাকা, সিএনডি বর্জ্য পৃথক না করার জন্য ২ হাজার টাকা এবং উপাদান অপসারণে ব্যয় করা ব্যয় করতে হবে।

ভোপালের অন্যতম বড় বাজার নিউমার্কেটের এক ব্যবসায়ী রাজা বলেন যে, মানুষের মধ্যে এখনও সচেতনতার অভাব রয়েছে। বর্জ্য আলাদা হয় না। এই কারণেই পৌরসভায় কর্মীদের আবর্জনা সংগ্রহ করতে সমস্যা হয়। নিউ মার্কেট পরিষ্কার করার দায়িত্বে যে কর্মীরা রয়েছেন, তারা বলছেন যে লোকজনের কাছে বারবার ফোন করা সত্ত্বেও তারা একই ডাস্টবিনে শুকনো ও ভেজা আবর্জনা ফেলে দিচ্ছেন। পৌর যানবাহনে আলাদাভাবে আবর্জনা রাখতে বললে অনেকে ঝগড়া শুরু করেন। যদিও কর্পোরেশন ভেজা এবং শুকনো বর্জ্যের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করেছে। কর্মচারীরা জানিয়েছেন, কর্পোরেশন জরিমানা বাড়ানোর ফলে এখন লোকেরা যদি ভয় পায় তবে তারা সঠিকভাবে বর্জ্য নিষ্পত্তি করতে সক্ষম হবে।

Published by: Pooja Basu
First published: November 22, 2020, 8:22 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर