দেশ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

কাঠুয়ার গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় পসকো আইনে বদল ও অভিযুক্তদের ফাঁসি চান মানেকা গান্ধি

কাঠুয়ার গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় পসকো আইনে বদল ও অভিযুক্তদের ফাঁসি চান মানেকা গান্ধি
File photo of Maneka Gandhi.

কাঠুয়ার গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় পসকো আইনে বদল ও অভিযুক্তদের ফাঁসি চান মানেকা গান্ধি

  • Share this:

 #নয়াদিল্লি: কাঠুয়ায় আট বছরের বালিকাকে সাতদিন আটকে রেখে লাগাতার গণধর্ষণ। তারপর নির্মমভাবে খুন। পুলিশের চার্জশিটের পর তিন মাস আগের জম্মুর হাড়হিম ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই দেশজুড়ে তোলপাড়। এই ঘটনার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানেকা গান্ধি অবিলম্বে পকসো আইনের বদল করার দাবি তুলেছেন ৷ তাঁর দাবি, ১২ বছরের নিচে কোনও শিশুকন্যাকে ধর্ষণ করলে অপরাধীর একমাত্র শাস্তি হওয়া উচিত ফাঁসি ৷

বয়স মাত্র আট। ফুটফুটে মেয়েটি আদরের ঘোড়াটিকে চরাতে চরাতে চলে গিয়েছিল বাড়ির অদূরে বনের ধারে। তারপর সাতদিন কোনও খোঁজ নেই। সাতদিন পর বনের পথেই উদ্ধার হল তার ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ। ১৭ জানুয়ারি দেহ উদ্ধারের তিন মাস পর আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ।

চার্জশিটে পুলিশি তদন্তের যে ছবি উঠে এসেছে তা হাড়হিম করা বললেও কম। দেবস্থানে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে আটক অবসন্ন মেয়েটিকে সাতদিন ধরে ধর্ষণ করে ছ-জন। এদের মধ্যে দুজন পুলিশকর্মী। এমনকি মেরঠ থেকেও লালসা মেটাতে ডেকে নিয়ে যায় ঘটনার মূলচক্রী দেবস্থানের কেয়ারটেকার। ক্ষুধার্ত, মৃতপ্রায় মেয়েটিকে খুনের আগেও রেয়াত করা হয়নি। গলায় ফাঁস দিয়ে মারার আগেও তাকে শেষবারের মতো ধর্ষণ করে এক পুলিশ কর্মী। তারপর মুখ-মাথা পাথর দিয়ে থেঁতলে মারা হয় মেয়েটিকে। দেহ ফেলে দেওয়া হয় বনের পথে।

এই ঘটনায় দেবস্থানের কেয়ারটেকার প্রাক্তন সরকারি কর্মী সহ আটজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে কেয়ারটেকারের ছেলে এবং নাবালক ভাইপোও রয়েছে। ঘটনা ধামাচাপা দিতে স্থানীয় দুই পুলিশ অফিসারকে চার লক্ষ টাকা ঘুষও দিয়েছিল কেয়ারটেকার।

নৃশংস ঘটনার প্রতিবাদে আগেই গর্জে উঠেছে উপত্যকা। তবে উল্টো প্রতিবাদও চলছে সমানতালে।এমন নৃশংস ঘটনাতেও পুরোদমে চলছে রাজনীতি। চাপের মুখে ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টে বিচারের আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। নির্ভয়াকাণ্ডের মতোই শুরু হয়েছে নাগরিক-প্রতিবাদের প্রস্তুতি।

সোশ্যাল মিডিয়াতেও প্রতিবাদে বিস্ফোরক সেলিব্রিটিরা। এমন নৃশংস ঘটনাতেও পুরোদমে চলছে রাজনীতি। চাপের মুখে ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টে বিচারের আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। নির্ভয়াকাণ্ডের মতোই শুরু হয়েছে নাগরিক-প্রতিবাদের প্রস্তুতি।

শ্রীমতি গান্ধি বলেন, কাঠুয়ার ঘটনায় আমি ব্যাথিত ৷ এমন ঘটনায় ভয় পাই ৷ আমি চাই পকসো আইনে পরিবর্তন আসুক ৷

কেন্দ্রীয় নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী মানেকা গান্ধির দাবির পর প্রশ্ন উঠেছে, নরেন্দ্র মোদির সরকার কি একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দাবিতেও কান দেবে না? যদিও নির্ভয়াকাণ্ডের পর ধর্ষণের আইন কঠোর করেও দেশের নারীদের উপর যৌন নির্যাতনের ঘটনা কমানো যায়নি ৷ তবে শিশুদের উপর বেড়ে চলা অপরাধের ঘটনাকে নজরে রেখে সরকার পসকো আইনে পরিবর্তন করে কিনা এখন সেটাই দেখার ৷

First published: April 15, 2018, 9:15 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर