Tripura Crisis: ত্রিপুরায় জোট সরকারে বড় ধাক্কা, বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা বৃষকেতুর

বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিলেন বৃষকেতু দেববর্মা।

Tripura Crisis: শোনা যাচ্ছে, বৃষকেতু আইপিএফটি ত্যাগ এক প্রকার পরিকল্পিতই। তিনি প্রদ্যুৎকিশোর দেববর্মনের উপস্থিতিতে ত্রিপরা মোথায় যোগ দিতে পারেন।

  • Share this:

    #আগরতলা: বড় ধাক্কা খেলো ত্রিপুরার বিজেপি -আইপিএফটি জোট সরকার। আইপিএফটি (ইন্ডিজেনাস পিপলস ফ্রন্ট অফ ত্রিপুরা) -র সিমনা অঞ্চলের বিধায়ক বৃষকেতু দেববর্মা মঙ্গলবার ইস্তফা দিয়ে দিলেন। স্পিকার রেবতীমোহন দাসের উদ্দেশ্যে ইতিমধ্যেই তাঁর ইস্তফাপত্রটি পাঠানো হয়েছে। বৃষকেতুর ইস্তফা ত্রিপুরার জোট সরকার, সর্বপোরি আইপিএফটির জন্য বড় ধাক্কা। ইতিমধ্যেই তাঁর পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে। শোনা যাচ্ছে বৃষকেতু আইপিএফটি ত্যাগ এক প্রকার পরিকল্পিতই। তিনি প্রদ্যুৎকিশোর দেববর্মনের উপস্থিতিতে ত্রিপরা মোথায় যোগ দিতে পারেন।

    আইপিএফটি মুখপাত্র মঙ্গল দেববর্মা এ প্রসঙ্গে আমাদের বলেন, "এ বিষয়ে আমাদের আগাম কোনও ধারণা ছিল না। সীমনা অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি অঞ্চল। ২৫ বছর পর সেখানকার মানুষ আমাদের ভরসা করে ভোট দিয়েছিলেন। হয়তো উনি দলকে ওঁর এ হেন সিদ্ধান্তের কার্যকারণ জানাবেন।" মোথায় যোগদান সম্পর্কে  মঙ্গল দেববর্মার বক্তব্য, "আমরাও এমনটা শুনেছি। কিন্তু এখনও বিষয়টা পরিষ্কার জানি না।"

    উল্লেখ্য ইস্তফাপত্রে বৃষকেতু লিখেছেন, ২০১৮ সালে সিমনা অঞ্চল থেকে বিধায়ক হিসেবে আমি নির্বাচিত হয়েছিলাম। আমি ব্যক্তিগত কারণে সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিধায়ক পদ ত্যাগ করার। আপনাকে আমার বিনীত অনুরোধ, আমার এই ইস্তফাপত্র গ্রহন করুন । সূত্রের খবর, আজ বুধবার তাঁর সঙ্গে বৈঠকে বসতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব।

    প্রসঙ্গত ঘরে বাইরে নানা চাপে রয়েছে বিপ্লব দেবের নেতৃত্বাধীন জোট সররকার। সংস্কারপন্থীদের চাপ ক্রমেই প্রকট হচ্ছে। বি এল সন্তোষকে  অনাস্থা -রিপোর্ট দেওয়ার পাশাপাশি সব ধরনের সরকারি কর্মসূচি এড়িয়ে যাচ্ছেন সুদীপ রায়বর্মন গোষ্ঠী। এই আবহে আইপিএফটির এই ভাঙন নতুন করে অস্বস্তি বাড়াল ত্রিপুরার শাসক শিবিরের।

    ২০১৮ সালে বিজেপি-আইপিএফটি জোট ত্রিপুরায় ৬৬ টির মধ্যে ৪৪ টি আসন দখল করেছিল। বিজেপি ৩৬ টি আসন পেয়েছিল। সহযোগী আইপিএফটি মোট ৯টি আসলে লড়াই করে ৮টি আসনেই জয়লাভ করে।

    Published by:Arka Deb
    First published: