মধুর ফাঁদে ভারতীয় সেনার জওয়ান, 'রহস্যময়ী' মহিলাকে দিতেন দেশের গোপন তথ্য

মধুর ফাঁদে ভারতীয় সেনার জওয়ান, 'রহস্যময়ী' মহিলাকে দিতেন দেশের গোপন তথ্য

সেই মহিলা নগ্ন অবস্থায় ভিডিয়ো কলে তাঁর সঙ্গে কথা বলতেন বলেও জানিয়েছেন জওয়ান।

সেই মহিলা নগ্ন অবস্থায় ভিডিয়ো কলে তাঁর সঙ্গে কথা বলতেন বলেও জানিয়েছেন জওয়ান।

  • Share this:
    #জয়পুর: হানিট্র্যাপ-এ আর্মিম্যান। সেনা জওয়ান। তাঁর সংযম অনেকটাই বেশি হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু মধুর ফাঁদে পা দিয়ে সেই তিনিই এমন কাণ্ড করে বসলেন। পাকিস্তানের পাতা ফাঁদে পা দিলেন ভারতীয় সেনার এক জওয়ান। সীমান্তের ওপারে দেশের গোপন তথ্য পাচার করতেন তিনি। পাকিস্তানের মহিলা গুপ্তচর সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ভারতীয় সেনার সেই জওয়ানের সঙ্গে আলাপ জমায়। তার পর থেকে চ্যাটিং। রাজস্থানের সেই সেনা জওয়ান ক্রমশ সেই রহস্যময়ী মহিলার পাতা জালে জড়িয়ে যেতে থাকেন। একাধিক গোপন তথ্য সেই মহিলাকে দেন তিনি। সেই মহিলা নগ্ন অবস্থায় ভিডিয়ো কলে তাঁর সঙ্গে কথা বলতেন বলেও জানিয়েছেন জওয়ান। ছুটিতে গ্রামে আসার পরও সেই রহস্যময়ী মহিলার সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন ওই জওয়ান। তখনই ইনটেলিজেন্স তাঁর উপর নজর রাখতে শুরু করে। শেষ পর্যন্ত তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। ওই জওয়ান নিজের দোষ স্বীকার করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, না বুঝে তথ্য পাচার করে ফেলেছেন তিনি। আকাশ মহরিয়া নামের ওই জওয়ানের বয়স ২২ বছর। জানিয়েছে পুলিস। রাজস্থানের ইয়ালসার গ্রামের বাসিন্দা তিনি। ১৭ ফেব্রুয়ারি ছুটিতে বাড়ি এসেছিলেন তিনি। মূলত ফেসবুকের মাধ্যমে পাকিস্তানের সেই মহিলা গুপ্তচরের সঙ্গে তাঁর আলাপ হয়েছিল। এর পর হোয়াটস অ্যাপেও কথাবার্তা চলত বলে জানিয়েছেন সেই জওয়ান। পাকিস্তানের একটি নম্বর থেকে ওই জওয়ানের ফোনে কল আসে। তখনই প্রথম সন্দেহ হয়েছিল গোয়েন্দাদের। এর পরই তাঁর উপর নজরদারি শুরু হয়। গোয়েন্দারা মনে করছেন, সেই জওয়ানের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করত সেই মহিলা। সেনার গোপন তথ্য দেওয়ার জন্যই সেই অর্থ তাঁকে দিত পাকিস্তানি মহিলা। আপাতত তাঁকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।
    Published by:Suman Majumder
    First published: