Mehul Choksi Deportation: মেহুল চোকসিকে দেশে ফেরাতে বিমান পাঠিয়েছে ভারত, জানালেন ডোমিনিকার প্রধানমন্ত্রী

ডোমিনিকা থেকে সম্ভবত ওই প্রাইভেট জেটে করেই মেহুল চোকসিকে দেশে ফেরানো হতে পারে।

ডোমিনিকা থেকে সম্ভবত ওই প্রাইভেট জেটে করেই মেহুল চোকসিকে দেশে ফেরানো হতে পারে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি:

    তাঁকে দেখলে এখন চেনাই যায় না। সেই গোলগাল চেহারা আর নেই। রক্তবর্ণ চোখ। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় কালশিটে। জেলে পুলিশ তাঁর ওপর অত্যাচার চালিয়েছে, তার প্রমাণ সারা শরীরে বয়ে বেড়াচ্ছেন মেহুল চোকসি। তাঁর বিরুদ্ধে প্রায় ১৪ হাজার কোটি টাকার প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে। পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক প্রতারণা কাণ্ডে অভিযুক্ত তিনি। দেশ ছেড়েছিলেন অনেকদিন আগেই। তবে শেষ রক্ষা হল না। এবার মেহুল চোকসিকে দেশে ফেরানোর জন্য সবরকম বন্দোবস্ত করল ভারত সরকার। ইতিমধ্যে ডোমিনিকা সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে দেশের একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা। এমনকী মেহুল চোকসিকে ভারতে প্রত্যর্পণের জন্য ইন্টারপোলের সাহায্য নেওয়া হয়েছে বলেও খবর। ইতিমধ্যে ডোমিনিকায় প্রয়োজনীয় নথিপত্র পাঠানো হয়েছে ভারতের তরফে। একটি প্রাইভেট জেটে প্রয়োজনীয় কাগজ পাঠানো হয়েছে। ডোমিনিকা থেকে সম্ভবত ওই প্রাইভেট জেটে করেই মেহুল চোকসিকে দেশে ফেরানো হতে পারে।

    এন্টিগুয়া এন্ড বার্বুডার গ্যাসটন ব্রাউন রেডিও সম্প্রতি একটি খবর সম্প্রচার করেছে। সেই খবরে জানানো হয়েছে, ইতিমধ্যে ডোমিনিকার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মেহুল চোকসিকে প্রত্যর্পণের জন্য যোগাযোগ করেছে ভারত সরকার। জানানো হয়েছে, কাতার এয়ারওয়েজের একটি বেসরকারি বিমান ডগলাস বিমানবন্দরে অবতরণ করেছে। ওই বিমানে করেই সম্ভবত দেশে ফেরানো হতে পারে মেহুলকে। গতকাল অর্থাত্ শনিবার বিকেল তিনটে বেজে ৪৫ মিনিট নাগাদ দিল্লি বিমানবন্দর থেকে রওনা দিয়েছে সেই বিমান। রাত একটা বেজে পনেরো মিনিট নাগাদ সেই বিমান ডমিনিকার বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

    মেহুল চোকসি পলাতক। আর সেটা প্রমাণ করার জন্যই কিছু নথিপত্র ডোমিনিকা সরকারের কাছে পাঠিয়েছে ভারত সরকার। কিছুদিন আগেই অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন মেহুল। এর পর ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জ ধরা পড়েন তিনি। তার পর থেকেই তাঁকে দেশে ফেরানোর জন্য উঠে পড়ে লেগেছে ভারত সরকার। তবে আপাতত ভারত সরকারের পাঠানো নথিপত্র ডোমিনিকা আদালতে পেশ করা হবে। এবারই মেহুল চোকসিকে দেশে ফিরিয়ে আনার সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে ভারত সরকারের কাছে। আর এই সুযোগ কোনওভাবেই করতে চায় না কেন্দ্র। অ্যান্টিগুয়ার নাগরিকত্ব রয়েছে চোকসির। ফলে তিনি ওখানে চলে গেলে ভারতে ফেরানোর রাস্তা মুশকিল হতে পারে। উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে বিদেশে পালিয়ে ছিলেন মেহুল।

    Published by:Suman Majumder
    First published: