Budget 2021: সংস্থার তরফে EPF দিতে দেরি হলে, তা ডিডাকশন হিসেবে গণ্য হবে না!

Budget 2021: সংস্থার তরফে EPF দিতে দেরি হলে, তা ডিডাকশন হিসেবে গণ্য হবে না!
আজ বাজেট পেশের সময়ে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন জানান, এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে কোনও সংস্থার তরফে যদি প্রভিডেন্ট ফান্ড (EPF) জমা দিতে দেরি হয়, তাহলে তা ডিডাকশন হিসেবে গণ্য করা হবে না।

আজ বাজেট পেশের সময়ে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন জানান, এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে কোনও সংস্থার তরফে যদি প্রভিডেন্ট ফান্ড (EPF) জমা দিতে দেরি হয়, তাহলে তা ডিডাকশন হিসেবে গণ্য করা হবে না।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি:  ২০২১-২২ অর্থবর্ষের বাজেট পেশ করছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman)। ইতিমধ্যেই ইনকাম ট্যাক্স স্ল্যাব, দেশজুড়ে মেগা টেক্সটাইল পার্ক, লৌহ ইস্পাতের উপরে আমদানি শুল্ক, কাঁচা মালের ওপর কাস্টমস ডিউটি-সহ একাধিক বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করা হল। সেইসূত্রে EPF কন্ট্রিবিউশন নিয়েও একটি বড় ঘোষণা হয়েছে। আসুন বিশদে জেনে নেওয়া যাক!

আজ বাজেট পেশের সময়ে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন জানান, এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে কোনও সংস্থার তরফে যদি প্রভিডেন্ট ফান্ড (EPF) জমা দিতে দেরি হয়, তাহলে তা ডিডাকশন হিসেবে গণ্য করা হবে না। এর পাশাপাশি অর্থমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, সামগ্রিক পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে করদাতাদের উপরে যতটা সম্ভব কম চাপ দিতে হবে। ৭৫ বছর বা তার বেশি বয়সি পেনশনভোগীদের জন্য সুদের উপরে সম্পূর্ণ করে ছাড় দেওয়া হচ্ছে। ছাড় দেওয়া হচ্ছে আয়করেও। অর্থাৎ ৭৫ বছর বেশি বয়সীদের আইটি রিটার্নও জমা দিতে হবে না। অর্থমন্ত্রকের বার্তা, কর ব্যবস্থাকে স্বচ্ছ করতে, করদাতাদের উপের চাপ কমাতে হবে। করোনার কারণে বিলগ্নীকরণে দেরি হচ্ছে। তবে, কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে দ্রুত পদক্ষেপ করা হবে।

প্রসঙ্গত করোনার জেরে কর্মক্ষেত্রে বড়সড় প্রভাব পড়েছে। বহু সংস্থা বন্ধ হয়েছে। বেতন হ্রাস, কর্মী ছাঁটাই, বেকারত্ব-সহ একাধিক সমস্যা দেখা যায়। বহু মানুষকে কাজ হারিয়ে ঘরে বসে থাকতে হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে বাজেট থেকে একাধিক প্রত্যাশা ছিল বেতনভুক্ত কর্মীদের। সেই আঙ্গিক থেকে EPF সংক্রান্ত এই ঘোষণা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। গতবছরও EPF, ন্যাশনাল পেনশন স্কিম, সুপারেনুয়েশন ফান্ড (Superannuation ) সহ একাধিক বিষয় নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছিল বাজেটে।


উল্লেখ্য, আজকের বাজেটে একাধিক ঘোষণা করা হয়েছে। সেই সূত্রে ন্যাশনাল কমিশন ফর অ্য়ালায়েড হেলথকেয়ার নিয়ে আসছে সরকার। ৪,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে সমুদ্র সম্পদ সন্ধানে। ন্যাশনাল ল্যাঙ্গুয়েজ ট্রান্সলেশন মিশন চালু হতে চলেছে। এর পাশাপাশি জাতীয় গবেষণা ফাউন্ডেশনের জন্য বরাদ্দ হয়েছে ৫০, ০০০ কোটি টাকা। একই সঙ্গে ডিজিটাল লেনদেনের জন্যও বরাদ্দ হয়েছে আরও ৫০০০ কোটি টাকা।

Published by:Debalina Datta
First published: