‘আমি ঐক্যবদ্ধ ভারতের প্রতিনিধি, এখনও মুসলিম’, সিঁথিতে সিঁদুর নিয়ে ফতোয়ার জবাব দিলেন নুসরত

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jun 30, 2019 12:52 PM IST
‘আমি ঐক্যবদ্ধ ভারতের প্রতিনিধি, এখনও মুসলিম’, সিঁথিতে সিঁদুর নিয়ে ফতোয়ার জবাব দিলেন নুসরত
নুসরত জাহান ৷ ফাইল চিত্র ৷
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jun 30, 2019 12:52 PM IST

#নয়াদিল্লি: রাজনীতিতে আসার পর থেকেই ট্রোল আর বিতর্কে জেরবার নুসরত জাহান। প্রায় তিন লক্ষের বেশি ভোটে জিতেও রেহাই নেই তাঁর। কখনও পোশাক, কখনও সেলফি, কখনও আবার সিঁদুর- বারবার বিতর্কের মুখে পড়তে হচ্ছে নুসরতকে। দেওবন্দের ফতোয়া জারি হওয়ার পর এবার জবাব দিলেন বসিরহাটের সাংসদ।

গত ১৯ জুন সাত পাকে বাঁধা পড়েন নুসরত জাহান ও নিখিল জৈন। তুরস্কের বোদরুমে বন্ধু ও ব্যবসায়ী নিখিল জৈন-এর সঙ্গে বিয়েটা সেরেই ফেলেছেন তৃণমূলের সাংসদ ও অভিনেত্রী নুসরত জাহান। মহাসমারোহে পালন হয়েছে তাঁর বিবাহের অনুষ্ঠান।

সেই সংক্রান্ত ছবিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। আর তাতেই বেজায় চটেছে উত্তরপ্রদেশের দারুম উল দেওবন্দ। এমনিতেই গোটা দেশে ইসলাম বিরোধী কোনও কাজ হলেই তাঁরা হুমকি দিয়ে থাকেন। এবার তাঁদের নিশানায় টলি অভিনেত্রী ও সাংসদ নুসরত জাহান। মূলত নিজ ধর্মবাদে অন্য ধর্মে বিয়ে করার জন্য ও মাথায় সিঁদুর পড়ার জন্য ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন দারুম উল দেওবন্দ সংগঠনের সদস্যরা। তাঁরা এও জানিয়েছেন নুসরতের উচিত ছিল নিজের ধর্মের কারোর সঙ্গে বিয়ে করার কিন্তু ভিন্ন ধর্মে বিয়ে করে ভুল করেছেন তিনি। পাশাপাশি তাঁরা এটাও জানিয়েছেন এই বিয়েকে ইসলামের ভাষায় নাকি ‘হারাম’ বলে। এরই সঙ্গে তাঁরা জানিয়েছেন নুসরত গলাতে মঙ্গলসূত্র ও সিঁদুর পরে খুবই ভুল কাজ করেছেন।

এ বার এই ঘটনা নিয়ে নিজেই মুখ খুললেন অভিনেত্রী সাংসদ নুসরত জাহান ৷ শনিবার এই নিয়ে একটি বিরাট ট্যুইট করেছেন নুসরত ৷ তিনি লেখেন, ‘ঐক্যবদ্ধ ভারতের প্রতিনিধি ৷ যা কিনা সমস্তজাতি, ধর্মমত এবং ধর্মের বেড়াজালের ঊর্ধ্বে ৷ আমি সমস্ত ধর্মকেই শ্রদ্ধা করি ৷ আমি নিজেকে এখনও একজন মুসলিম ৷ আর আমার পরণের জন্য কী বাছব, তা নিয়ে কারও কোনও বক্তব্য পেশ করার প্রয়োজন নেই ৷’’

এর পাশাপাশি মিমি চক্রবর্তীও তাঁর সহকর্মী ও বন্ধুর পাশে দাঁড়িয়েছেন ৷ এদিন তিনি নুসরতের ট্যুইটটি শেয়ার করে লেখেন,‘‘আমরা ভারতবাসী এবং এটাই একমাত্র আমাদের পরিচয় ৷ ভারতীয় হিসেবে গর্ব বোধ করি এবং করব ৷’’

First published: 11:57:59 PM Jun 29, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर