৩৭০ ধারা বাতিলের পর থেকে থমথমে উপত্যকা, কতটা প্রভাব পড়বে পর্যটন ব্যবসায়?

তবে , এই পরিস্থিতি সাময়িক বলেই মনে করছে পর্যটন ব্যবসায়ীরা। কাশ্মীরের এই পরিস্থিতিতে দার্জিলিং, সিকিমের মত পাহাড়ি জায়গায় পর্যটক বাড়বে বলে আশাবাদী ভ্রমণ সংস্থাগুলো।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 07, 2019 02:10 PM IST
৩৭০ ধারা বাতিলের পর থেকে থমথমে উপত্যকা, কতটা প্রভাব পড়বে পর্যটন ব্যবসায়?
Photo: News 18 Bangla
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 07, 2019 02:10 PM IST

#নয়াদিল্লি: ৩৭০ ধারা বাতিলের পর থেকে থমথমে উপত্যকা। যোগাযোগ ব্যবস্থাও বিচ্ছিন্ন। আতঙ্কে দিন কাটছে কাশ্মীরবাসীর। ভূস্বর্গের পরিস্থিতিতে মাথায় হাত পড়েছে পর্যটন ব্যবসায়ীদের। বরফের চাদরে মোড়া উপত্যকা৷ ডাল লেকের শিকারায় কয়েক দিনের অবসর যাপন৷ ভূস্বর্গ কাশ্মীরের চেনা ছবি৷ ২০১৮র নভেম্বরেও কাশ্মীরে পর্যটকদের ভিড় সামলাতে হিমসিম খেতে হয়েছে৷

তারপর একের পর এক ধাক্কা৷ প্রাকৃতিক দুর্যোগ৷ পুলওয়ামা হামলা,আর এই সোমবার জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিলের ঘোষণা। তার আগেই অ্যাডভাইজরি জারি করে পর্যটকদের সরানো হয়েছিল। মোবাইল-ইন্টারনেট-টিভি যোগাযোগের সব ব্যবস্থাই বন্ধ। থমথমে উপত্যকায় দুবেলা আধাসেনার টহলদারি। রেল ও উড়ানের টিকিট বিক্রির বহরে এবার অনেকটাই এগিয়ে ছিল ভূস্বর্গ। গতবছরের তুলনায় ৩৫ শতাংশ বেশি ব্যবসার আশাও ছিল। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে লাটে উঠেছে পর্যটন ব্যবসা।

তবে , এই পরিস্থিতি সাময়িক বলেই মনে করছে পর্যটন ব্যবসায়ীরা। কাশ্মীরের এই পরিস্থিতিতে দার্জিলিং, সিকিমের মত পাহাড়ি জায়গায় পর্যটক বাড়বে বলে আশাবাদী ভ্রমণ সংস্থাগুলো। রিপোর্ট বলছে, কাশ্মীরের পর্যটকদের ৩৭ শতাংশই বাংলার। ভ্রমণ সংস্থাগুলো জানাচ্ছে, পুজো পর্যন্ত সমস্ত বুকিংই বাতিল হয়েছে। এখন হয়তো ব্যবসায় মন্দা।, তবে বেশিদিন ভূস্বর্গের মায়া এড়াতে পারবেন না ভ্রমণপিপাসুরা। আশায় দিন গুনছেন পর্যটন ব্যবসায়ীরা।

First published: 02:05:20 PM Aug 07, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर