মানা হয়নি পরিবেশ আইন, তাই ভেঙে ফেলা হচ্ছে একের পর এক বহুতল!

মানা হয়নি পরিবেশ আইন, তাই ভেঙে ফেলা হচ্ছে একের পর এক বহুতল!

পরিবেশ সংক্রান্ত আইন না মেনে বহুতল বানালে তা ভেঙে ফেলতে হবে৷ চার মাস আগে সুপ্রিম কোর্ট এমন নির্দেশ দিয়েছিল৷

  • Share this:

#কোচি: পরিবেশ আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বেড়ে ওঠা একের পর এক হাইরাইজ! সেই হাইরাজেই পড়ল কোপ৷ ভেঙে ফেলা হল এই ধরণের বেআইনি নির্মান৷ শনিবার প্রায় ৩৫০ ফ্ল্যাট নিয়ে তৈরি ৪টি এমন বড় বিল্ডিং ভেঙে ফেলা হয় নিমষে৷ বহুতল ভাঙার কাজ চলবে রবিবারও৷ বসতি এলাকায় এভাবে ভাঙচুরের ফলে বেঘর হলেন অনেকে৷

জলাধার ঘিরে একের পর এক বহুতল মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে রয়েছে কেরেলার কোচিতে৷ কোনও রকম পরিবেশ আইন না মেনেই এভাবে জলাধারের সামনে দিয়ে তৈরি হয়েছে আকাশচুম্বি বহুতল৷ পরিবেশ সংক্রান্ত আইন না মেনে বহুতল বানালে তা ভেঙে ফেলতে হবে৷ চার মাস আগে সুপ্রিম কোর্ট এমন নির্দেশ দিয়েছিল৷ সেই নির্দেশ মেনে এই ধরণের বাড়ি ভাঙার কাজ চলছে আপাতত৷ শনিবার কোচির ১৯ তলার হোলি ফেইথ নামক কমপ্লেক্স ভেঙে ফেলা হয়, যা দেখতে ভিড় জমে এলাকায়৷ এরফলে যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তাই বাড়িটির আশেপাশের এলাকা আটকে দেয় পুলিশ৷

আরও পড়ুন #CAA:শরণার্থীদের কি পাকিস্তানে ফের আত্যাচারের মুখে ফিরিয়ে দিতে পারি?যুব সমাজকে প্রশ্ন মোদির

বাড়িগুলির ভাঙার সময় চারিদিক ধুলিকণায় ঢেকে যায়৷ বিরাট জায়গা জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে বাড়ির ধ্বংসাবশেষ৷ প্রচুর পরিমাণ বিস্ফোরক ব্যবহার করা হয় বাড়ি ভাঙার কাজে৷ ভাঙনের কাজ নির্বিঘ্নে করা গিয়েছে৷ কোনও ক্ষতি বা হতাহতের খবর নেই বলেই জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ প্রসাশন৷ তবে এর জন্য সবরকম ব্যবস্থা করেছিল পুলিশ৷ প্রায় দু’হাজার আবাসিককে আগে থেকেই নোটিস দেওয়া হয়েছিল বাড়ি খালি করার জন্য৷ নির্দিষ্ট এলাকা দিয়ে ট্রাফিক ব্যবস্থা ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছিল৷ ঘড়ছাড়াদের পরিবার পিছু ২৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের ঘোষণা করা হয়েছে৷

First published: 12:55:49 PM Jan 12, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर