শুরুতেই জোর ধাক্কা নীতীশ সরকারের, তিন দিন পরই ইস্তফা দিলেন মন্ত্রী

শুরুতেই জোর ধাক্কা নীতীশ সরকারের, তিন দিন পরই ইস্তফা দিলেন মন্ত্রী

অস্বস্তিতে নীতীশ কুমার৷ Photo-File

মেওয়ালালকে মন্ত্রী করায় ধারাবাহিক ভাবে ট্যুইট করে নীতীশ কুমারকে আক্রমণ করেন আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব৷

  • Share this:

    #পটনা: ক্ষমতায় আসার তিন দিনের মাথাতেই বড়সড় ধাক্কা খেল নীতীশ কুমার সরকার৷ দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়া মেওয়ালাল চৌধুরী৷ তিন বছর আগেপ একটি দুর্নীতি মামলায় অভিযুক্ত মেওয়ালাল৷ তাকে কেন মন্ত্রী করা হল, এই প্রশ্ন তুলে সরব হয়েছিল প্রধান বিরোধী দল আরজেডি৷

    নীতীশের অস্বস্তি আরও বেড়েছে কারণ তারাপুরের এই বিধায়ক তাঁর নিজের দল জেডিইউ-এরই৷ ২০১৭ সালে ভাগলপুর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য থাকাকালীন সহকারী অধ্যাপক এবং জুনিয়র সায়েন্টিস্ট পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে অনিয়মের অভিযোগ ওঠে মেওয়ালালের বিরুদ্ধে৷ সেই সময় কিছুদিনের জন্য তাঁকে দল থেকে সাসপেন্ডও করা হয়৷ বিহারের তৎকালীন রাজ্যপাল এবং বর্তমান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের অনুমতি নিয়ে মেওয়ালালের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগও দায়ের করা হয়৷ যদিও তাঁর বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা পড়েনি৷

    মেওয়ালাল চৌধুরী৷

    যদিও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ মানতে নারাজ মেওয়ালাল৷ তাঁর দাবি, এখনও তদন্ত চলছে৷ কোনও অভিযোগই প্রমাণিত হয়নি৷বিচারাধীন থাকায় তাঁর বিরুদ্ধে এই মামলার কথা তিনি নির্বাচনী হলফনামায় উল্লেখ করেননি বলে দাবি মেওয়ালালের৷ তাঁর যুক্তি, অনেক বিধায়কের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ ওঠে৷ কিন্তু তা প্রমাণ করতে হয়৷

    মেওয়ালালকে মন্ত্রী করায় ধারাবাহিক ভাবে ট্যুইট করে নীতীশ কুমারকে আক্রমণ করেন আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব৷ তাঁর অভিযোগ ছিল, মন্ত্রিসভায় ক্রিমিনালদের জায়গা করে দিচ্ছেন নীতীশ৷ মেওয়ালাল পাল্টা দাবি করেছেন, তেজস্বীর বিরুদ্ধেই একাধিক অভিযোগ রয়েছে৷ অন্যের দিকে আঙুল তোলা তাঁর সাজে না৷ শেষ পর্যন্ত অবশ্য চাপে পড়ে ইস্তফা দিতেই বাধ্য হলেন মেওয়ালাল৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: