• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • Vidyut Jammwal: নিজের গায়ের বহুমূল্য জ্যাকেট খুলে ফোটোগ্রাফারকে দিয়ে দিলেন বিদ্যুৎ জামাল

Vidyut Jammwal: নিজের গায়ের বহুমূল্য জ্যাকেট খুলে ফোটোগ্রাফারকে দিয়ে দিলেন বিদ্যুৎ জামাল

জ্যাকেট খুলে ফোটোগ্রাফারকে উপহার দিলেন বিদ্যুৎ । ছবি- ইনস্টাগ্রাম ।

জ্যাকেট খুলে ফোটোগ্রাফারকে উপহার দিলেন বিদ্যুৎ । ছবি- ইনস্টাগ্রাম ।

সম্প্রতি বিদ্যুৎ জামালেন একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় । সেখানে দেখা গিয়েছে, নিজের গায়ের বহুমূল্য জ্যাকেট খুলে দিয়ে দিয়েছেন তিনি ।

  • Share this:

    #মুম্বই: সেলেবদের জীবনে খ্যাতি যেমন আছে, তেমনই আছে খ্যাতির বিড়ম্বনাও । আবার একইসঙ্গে রয়েছে অগণিত ভক্তের অফুরান ভালবাসাও । প্রত্যেক দিন তাঁদের সকাল শুরু হয় মিডিয়ার আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে । তাঁরা যেখানেই যান, যাই করুন না কেন, পাপারাৎজিদের ভিড় তাঁদের পিছু ছাড়ে না । সেই জনপ্রিয়তাকে তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করতে কে না ভালবাসেন ।

    বলি-অভিনেতা বিদ্যুৎ জামাল (Vidyut Jammwal)। সিনেমার ভক্তরা যাঁকে এক ডাকে চেনেন। শুধু চেনা নয়, তাঁর স্টান্ট-এ রীতিমতো গুণমুগ্ধ সকলে। কোটি কোটি মানুষ যাঁর ভক্ত তিনিই আবার অ্যাকশন গুরু জ্যাকি চ্যানের ভক্ত। নাচ, অ্যাকশন বা অভিনয়, সবেতেই পারদর্শী বিদ্যুৎ । এ বার দেখা গেল, উদার মনেরও অধিকারী তিনি ।

    সম্প্রতি বিদ্যুৎ জামালেন একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় । সেখানে দেখা গিয়েছে, নিজের গায়ের বহুমূল্য জ্যাকেট খুলে দিয়ে দিয়েছেন তিনি । এক ফোটোগ্রাফার বিদ্যুৎকে বলেন, তাঁর জ্যাকেটটি খুব সুন্দর । সে সময় নামী পোশাক ব্র্যান্ডের একটি সবুজ রঙের জ্যাকেট পরেছিলেন ‘কম্যান্ডো’ স্টার । হেলমেট পরে বাইকে স্টার্ট দিতে যাচ্ছিলেন তিনি । এক ফোটোগ্রাফার তাঁর ছবি তোলার সময় নায়ককে বলেন, তাঁর জ্যাকেটটি খুব সুন্দর দেখতে । এ কথা শোনা মাত্র নিজের জ্যাকেট খুলে ওই ফোটোগ্রাফারকে দিয়ে দেন বিদ্যুৎ । তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘‘আমি তোমাদের ভালবাসি । তোমরা অনেক কঠিন পরিশ্রম করো । এটা রেখে দাও । তোমার জন্য লাকি হবে ।’’

    এরপর ওই ফোটোগ্রাফার বিদ্যুৎকে বলেন, ‘‘আপনার টি-শার্টটাও খুব সুন্দর ।’’ এর উত্তরে বিদ্যুৎ জামাল মশকরা করে বলেন, ‘‘ এ বার কী এটাও চাই?’’ এই কথার পর দু’জনেই হেসে ফেলেন । সম্প্রতি এই ভিডিওটিই সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল ভাইরাল হয়েছে ।

    Published by:Simli Raha
    First published: