Home /News /national /
সুব্রতকে স্পিচ থেরাপির পরামর্শ, শোভনের লিভারের সমস্য়া! মদনের ছুটি নিয়ে সংশয়

সুব্রতকে স্পিচ থেরাপির পরামর্শ, শোভনের লিভারের সমস্য়া! মদনের ছুটি নিয়ে সংশয়

বাড়ি ফিরবেন শোভন, সুব্রত, মদন?

বাড়ি ফিরবেন শোভন, সুব্রত, মদন?

  • Share this:

#কলকাতা: বাড়ি ফেরার অনুমতি মিলেছে৷ কিন্তু বাড়িতেই কি ফিরবেন এসএসকেএম-এ চিকিৎসাধীন চার হেভিওয়েট নেতা, নাকি হাসপাতালে থেকেই চিকিৎসা করাবেন তাঁরা? কারণ তিন নেতারই বেশ কিছু গুরুতর শারীরিক সমস্যা চিহ্নিত করেছেন এসএসকেএম-এর চিকিৎসকরা৷ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং মদন মিত্রের পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনেই সিদ্ধান্ত নেবেন তাঁরা৷ অন্যদিকে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, বাড়ি এনে শোভনের আরও ভাল চিকিৎসার ব্যবস্থা করবেন তিনি৷

তবে হাসপাতাল সূত্রে খবর, মদন মিত্রের যা শারীরিক অবস্থা তাতে হয়তো এ দিন কামরাহাটির বিধায়ককে ছুটি নাও দেওয়া হতে পারে৷

এ দিনই নারদ কাণ্ডে ধৃত চার নেতা ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গৃহবন্দি রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ বাড়ি থেকে ভার্চুয়ালি সরকারি কাজ করারও অনুমতি পেয়েছেন ফিরহাদ, সুব্রত এবং মদন৷

এসএসকেএম হাসপাতাল সূত্রে খবর, তিন নেতারই সিওপিডি-র সমস্যা রয়েছে৷ তার মধ্যে সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের দীর্ঘদিন ধরেই ভোকাল কর্ড-এ সমস্যা রয়েছে৷ এই সমস্যার কারণে অতীতে অস্ত্রোপচারও করাতে হয়েছে তাঁকে৷ কিন্তু শ্বাসকষ্টের সমস্যা হওয়ায় একটানা নেবুলাইজার নেওয়ার ফলে সেই সমস্যা আরও বেড়েছে৷ প্রবীণ মন্ত্রীর গলার স্বর এতটাই ক্ষীণ হয়ে গিয়েছে যে তা প্রায় শোনা যাচ্ছে না৷ সেই কারণেই এসএসকেএম হাসপাতালের চিকিৎসকরা পঞ্চায়েত মন্ত্রীকে 'স্পিচ থেরাপি' করানোর পরামর্শ দিয়েছেন৷ সুব্রত বাবুর স্ত্রী ছন্দবাণী মুখোপাধ্যায় অবশ্য জানিয়েছেন, হাইকোর্টের নির্দেশের পর সুব্রতবাবুর চিকিৎসা হাসপাতালেই চলবে নাকি বাড়ি নিয়ে গিয়ে টস্পিচ থেরাপিট করা হবে, সেই সিদ্ধান্ত চিকিৎসকরাই নেবেন৷

অন্যদিকে এ দিনই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের টসিরোসিস অফ লিভারট-এর সমস্যা ধরা পড়েছে৷ তবে তা এখনও মারাত্মক আকার নেয়নি বলেই হাসপাতাল সূত্রে খবর৷ শোভনের অতীতেও লিভারের সমস্যা ছিল৷ হাসপাতাল সূত্রে খবর, চড়া ডায়াবিটিসের কারণে প্রাক্তন মেয়রের চোখেও সমস্যা দেখা দিয়েছে৷ যদিও শোভনকে বাড়ি নিয়ে গিয়েই চিকিৎসা করানোর পক্ষে তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়৷

এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্রের ফুসফুসেও সামান্য সংক্রমণ ধরা পড়েছে৷ তাঁকে এখনও একটা অক্সিজেন দিতে হচ্ছে৷ তার উপর হাইপার টেনশনে ভুগছেন মদন৷ ফুসফুসে সংক্রমণ যাতে না বাড়ে, সেদিকেই এখন নজর দিচ্ছেন চিকিৎসকরা৷ কয়েকদিন আগে করোনাতেও আক্রান্ত হন মদন৷ তাঁর ছেলে এ দিন হাসপাতালে এসে জানিয়েছেন, চিকিৎসকরা অনুমতি দিলে তবেই বাড়ি নিয়ে গিয়ে মদন মিত্রের চিকিৎসা করা হবে৷ না হলে হাসপাতালেই চলবে চিকিৎসা৷

এই তিন নেতা বাদে পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম প্রেসিডেন্সি জেলের হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন৷ তাঁর শারীরিক অবস্থা অবশ্য তুলনামূলক ভাবে অনেকটাই ভাল৷ হাইকোর্ট এ দিন যে নির্দেশ দিয়েছে, তার প্রতিলিপি প্রথমে প্রেসিডেন্সি জেলে পাঠানো হবে৷ এর পর জেল কর্তৃপক্ষের তরফে তা এসএসকেএম হাসপাতালে পাঠানো হবে৷ তার পরই সুব্রত, মদন এবং শোভনকে ছুটি দেওয়া হবে কি না, সেই সিদ্ধান্ত নেবেন মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্যরা৷

Avijit Chanda
Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Madan Mitra, Narada Scam, Sovan Chatterjee, Subrata Mukherjee

পরবর্তী খবর