আজ আস্থা ভোট, সুপ্রিম কোর্টের রায়ে ব্যাকফুটে কুমারস্বামী, JDS বিধায়কদের উপর জারি হুইপ

  • Share this:

    #বেঙ্গালুরু: কর্ণাটকে অশান্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে উত্তেজনা তুঙ্গে ৷ বুধবারের সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর পতনের মুখে কুমারস্বামী সরকার ৷ কোনও বিধায়ককে আস্থা ভোটে বাধ্য করা যাবে না, শীর্ষ আদালতের এই নির্দেশ ৷ এ সত্ত্বেও JDS বিধায়কদের উপর হুইপ জারি করেছেন কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী। আস্থা ভোট নিয়ে টানটান উত্তেজনা ৷  সকাল ১১টায় বিধানসভায় প্রস্তাব পেশ করবেন মুখ্যমন্ত্রী ৷

    কর্ণাটক-সংকট নিয়ে সুপ্রিম রায়ে ব্যাকফুটে কংগ্রেস-জেডিএস জোট। বিধায়কদের ইস্তফা নিয়ে স্পিকারের উপরেই সিদ্ধান্ত ছাড়ে সুপ্রিম কোর্ট। তবে আস্থাভোটে উপস্থিত থাকতে বিক্ষু্ব্ধ বিধায়কদের জোর করা যাবে না বলে নির্দেশ সর্বোচ্চ আদালতের। এর পরেও জেডিএস এর ৩৭ বিধায়কের ওপরে হুইপ জারি করেছে দল ৷ কারণ, আজ বৃহস্পতিবারের আস্থাভোটে শেষপর্যন্ত বিক্ষুব্ধরা হাজির না থাকলে, কর্ণাটকে পড়ে যেতে পারে কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকার। এস বিশ্বনাথ, নারায়ণ গৌড়া ও গোপালাইয়ার মতো বিক্ষুব্ধ বিধায়কদেরও বিধানসভায় উপস্থিত থাকার জন্য নির্দেশ দিয়েছে দল ৷ একইসঙ্গে কুমারস্বামীর হুঁশিয়ারি দলের কোনও বিধায়ক আস্থা ভোটে উপস্থিত না থাকলে বা বিরুদ্ধে ভোট দিলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে ৷

    শুরুটা হয়েছিল জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহ থেকে। একে একে ইস্তফা দিয়েছিলেন কর্ণাটকের ষোলোজন বিধায়ক। যার জেরে খাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে কর্ণাটকের কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকার। কিন্তু স্পিকার কেআর রমেশ কুমার কারও ইস্তফাই গ্রহণ না করায়, জল গড়ায় সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত। সেই মামলায় গতকাল, বুধবার গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ দিল সর্বোচ্চ আদালত। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের বেঞ্চের মতে, বিক্ষুব্ধ বিধায়কদের ইস্তফা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন স্পিকারই ৷ তবে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য থাকছে না কোনও সময়সীমা ৷ আস্থাভোটে যেতে কোনওভাবেই জোর করা যাবে না বিক্ষুব্ধ বিধায়কদের ৷

    সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পর শাসক-বিরোধী সবার নজর এখন বিধানসভার পাটিগণিতের দিকে। ২২৫ আসনের কর্ণাটক বিধানসভায় ম্যাজিক ফিগার ১১৩ ৷ স্পিকার সহ কংগ্রেস-জেডিএস জোটের বিধায়ক সংখ্যা ১১৮ ৷ ২ নির্দলের সমর্থন নিয়ে বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা ১০৭ ৷ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে আস্থা ভোটে হাজির থাকতে বাধ্য নন শাসক জোটের ১৬ বিধায়ক ৷ সেক্ষেত্রে বিধানসভার ম্যাজিক ফিগার দাঁড়াবে ১০৫ ৷ ইতিমধ্যে শাসক জোট থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করেছেন ২ নির্দল বিধায়ক ৷ সেক্ষেত্রে স্পিকার-সহ কংগ্রেস-জেডিএস জোটের সংখ্যা কমে দাঁড়াবে ১০০ ৷ আস্থা ভোটে অঙ্কের বিচারে সহজেই ক্ষমতা দখল করতে পারবে বিজেপি ৷

    অঙ্কের বিচারে ফলাফল স্পষ্ট হলেও, হাতে হাত রেখে বসে নেই কোনও পক্ষ। বিধানসভার অ্যাসিড টেস্টে, যেনতেন প্রকারণে ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে মরিয়া মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী। সেই চেষ্টার উপরই ঝুলছে কর্ণাটকের জোট সরকারের ভবিষ্যৎ। আরও এক রাজ্যে গেরুয়া ধ্বজা ওড়ার অপেক্ষা নাকি সরকার ধরে রাখতে সক্ষম হবেন কুমারস্বামী, সেদিকেই তাকবে সারা দেশের নজর ৷

    First published: