রাজ্যসভায় বলায় বাধা, দিল্লি হিংসা নিয়ে বাইরে থেকেই ভাষণ দিলেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন

রাজ্যসভায় বলায় বাধা, দিল্লি হিংসা নিয়ে বাইরে থেকেই ভাষণ দিলেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন
সংসদের করিডোরে বক্তব রাখছেন ডেরেক ও’ব্রায়েন৷ ছবি: টুইটার
  • Share this:

#নয়াদিল্লিঃ ইতিহাসে প্রথম৷ টানা পাঁচদিন তাঁকে বলতে দেওয়া হয়নি রাজ্যসভায়৷ জবাবে শুক্রবার টানা দশ মিনিট নিজের বক্তব্য পেশ করলেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ ব্রায়েন৷ তবে সংসদভবন থেকে নয়৷ সংসদের করিডোরে দাঁড়িয়েই ভাষণ দিলেন এই তৃণমূল সাংসদ৷ সেই ভাষণ ডেরেকের নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যকাউন্টে শেয়ার করেছেন৷ রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনেই করতে পারছেন না, স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে এমন ঘটনা কখনও ঘটেছে কিনা৷

ডেরেক এ দিন প্রথমেই অভিযোগ করে বলেন, সরকার সংসদের দু’কক্ষের কাজে বাধা দিচ্ছে৷ তাঁর কথায়, ''আমি তৃণমূল সাংসদ হিসেবে নিজের বক্তব্য নিয়ে তৈরি ছিলাম৷ কিন্তু সেই বক্তব্য রাখতেই দেওয়া হচ্ছে না৷ তাই আমাকে কথা বলার সমান্তরাল উপায় বেছে নিতে হল৷''

দেখুন ভিডিও:

ডেরেকের বক্তব্যে এ দিন উঠে এসেছে দিল্লি হিংসার কথা৷ হিংসায় ৫৩ জনের মৃত্যু নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি৷ তাঁর অভিযোগ, এই ঘটনাগুলি নিয়ে আলোচনায় রাজিই নয় সরকার৷ ডেরেকের কথায়, ‘‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজে হিংসাধ্বস্ত অঞ্চলগুলিতে আসেননি৷ অশান্তি শুরু হয় একটি বিশেষ স্লোগানকে কেন্দ্র করে৷ আমরা জানি কারা এই কাজ করেছিল৷ আমরা জানি কোথা থেকে তাঁরা এই উস্কানিমূলক আচরণের সাহস পেল৷ প্রধানমন্ত্রী- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীই যেন এই বিষয়টিকে মান্যতা দিয়েছেন৷ এই স্লোগানই ঘৃণা ছড়িয়েছে৷’’

তাঁর মতে, নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ ভোট পরিকল্পনাতেই ব্যস্ত৷ জনসমক্ষেই এমন অনেক প্রমাণ রয়েছে, এই ধরণের হিংসা কে বা কারা ছড়ায়৷ কিন্তু এই সমস্ত প্রশ্নই এড়িয়ে যাচ্ছেন তাঁরা,স কারণ তাঁদের কাছে উত্তর নেই৷

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, ‘‘নারীদিবসের দিনে নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট তুলে দেবেন মেয়েদের হাতে৷ তাই নিয়েও কটাক্ষ করেছেন ডেরেক৷ তৃণমূল সাংসদের অভিমত, যে মায়েরা সন্তান হারিয়েছেন, তাঁদের হাতেই নিজের সোশ্যাল অ্যাকাউন্ট তুলে দিক প্রধানমন্ত্রী৷’’

First published: March 6, 2020, 8:32 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर