Corona Delta Plus: দ্রুত বদলাচ্ছে করোনাভাইরাস, মিউটেশন বদলে হয়েছে ‘ডেল্টা প্লাস’!

করোনার এই রূপান্তর ভারতেই প্রথম শনাক্ত হয়েছে।

করোনার এই রূপান্তর ভারতেই প্রথম শনাক্ত হয়েছে।

  • Share this:
#নয়াদিল্লি:

যত দিন গড়াচ্ছে, তত নিজের জাত, ধর্ম পরিবর্তন করে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠছে মারণ করোনা ভাইরাস। সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনার দ্বিতীয় স্ট্রেনের নামকরণ করে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট (Delta variant)। যা কিনা SARS-CoV-2 ভাইরাসের B.1.617.2 স্ট্রেন। এই ভ্যারিয়েন্ট আবার পরিবর্তিত হয়ে ডেল্টা প্লাস (Delta plus) বা AY.1-এ রূপান্তরিত হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা এমন মতই প্রকাশ করেছেন। করোনার এই রূপান্তর ভারতেই প্রথম শনাক্ত হয়েছে। ইংল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য সংস্থার (Public Health England) মতে নতুন K417N মিউটেশনের ৬৩ টি জিনোম শনাক্ত করা হয়েছে। এই সনাক্তকরণের উদ্যোগে ছিল গ্লোবাল সাইন্স ইনভেসটিভ জিআইএসএআইডি (global science initiative GISAID)। করোনা সংক্রান্ত গত শুক্রবারের শেষ আপডেটে ইংল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে ভারতে ৭ জুন পর্যন্ত মোট ৬টি জিনোম পাওয়া গিয়েছে।

যতদূর জানা গিয়েছে:

দিল্লির সিএসআইআর ইনস্টিটিউট অফ জেনোমিক্স (CSIR-Institute of Genomics) এবং ইন্টেগ্রেটিভ বায়োলজির (IGIB) গবেষক বিনোদ স্কারিয়া (Vinod Scaria) জানিয়েছেন, করোনার ভ্যারিয়েন্ট B.1.617.2.1, যা AY.1 হিসেবে পরিচিত। এই ভ্যারিয়েন্টে K417N মিউটেশন রয়েছ। এর জন্য দায়ী SARS-COV-2 ভাইরাসের স্পাইক প্রোটিন। এই স্পাইক প্রোটিন মানব কোষে প্রবেশ করে সংক্রমণ ঘটায়। K417N শুধু ভারতে নয়, এর বিস্তার ঘটেছে সুদূর ইউরোপ, এশিয়া এবং আমেরিকা মহাদেশে। এই বছরের মার্চের শেষের দিকে এই জিনোম ইউরোপে পাওয়া গিয়েছে।

চিকিৎসায় কীভাবে প্রভাব ফেলে?

নতুন এই মিউটেশন কতটা তীব্র সেই বিষয়ে সঠিক তথ্য এখনও পাওয়া যায়নি। তবে ডেল্টা প্লাস মোনোক্লোনাল অ্যান্টিবডি ককটেল ট্রিটমেন্ট-এর (monoclonal antibody cocktail treatment ) বিরুদ্ধে টিকে থাকতে পারে। এমনটাই দাবি করেছে সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন (Central Drugs Standard Control Organisation)। তবে চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই, দেশে উচ্চমানের অ্যান্টিবডি ককটেলের জরুরী-ব্যবহারের অনুমোদন পাওয়া গিয়েছে। গবেষক বিনোদ স্কারিয়া বলেছেন, নতুন ভ্যারিয়েন্টের চিকিৎসা রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা বাড়াতে পারবে। অন্যদিকে ইমিউনোলজিস্ট ভিনিতা বাল-এর (Vineeta Bal) দাবি চিকিৎসার ক্ষেত্রে কৃতিম অ্যান্টিবডি ককটেল ব্যবহারে কিছুটা ঝুঁকি থাকতে পারে।

নতুন ভ্যারিয়েন্ট কতটা সংক্রামক?

পুণের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ-এর (Indian Institute of Science Education and Research, Pune) অতিথি শিক্ষক (guest faculty) ভিনিতা বাল বলেছেন নতুন ভ্যারিয়েন্ট মানব দেহে বড়সড় প্রভাব বিস্তারের সম্ভাবনা কম। তাই সংক্রমণ নিয়ে বেশি উদ্বেগ-এর প্রয়োজন নেই। এই বিষয়ে একমত হয়েছেন সিএসআইআর- আইজিআইবি-র (CSIR-IGIB) পরিচালক অনুরাগ আগরওয়াল (Anurag Agrawal)।

First published: