corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা-লকডাউনের জের! ইঞ্জিনিয়ার, পোস্ট গ্র্যাজুয়েটরা MNREGA প্রকল্পে দিনমজুর

করোনা-লকডাউনের জের! ইঞ্জিনিয়ার, পোস্ট গ্র্যাজুয়েটরা MNREGA প্রকল্পে দিনমজুর

বিদার জেলার MNREGA প্রকল্পের অতিরিক্ত ডিরেক্টর শরত্‍ কুমার অভিমান জানাচ্ছেন, এই সব যুবকেরা গরিব পরিবারের৷ লকডাউনের আগে এঁরা বেঙ্গালুরুতে নানা তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় ভালো মাইনের চাকরি করতেন৷

  • Share this:

#বেঙ্গালুরু: এ এক কঠিন সময়! এমনিতেই ভারতের বেকারত্বের হার উদ্বেগজনক৷ তার উপর করোনা ভাইরাস অতিমারি ও লকডাউনের ফলে তা আরও ভয়াবহ আকার নিয়েছে৷ যার নির্যাস, ইঞ্জিনিয়ার, স্নাতক, পোস্ট গ্র্যাজুয়েট, তথ্যপ্রযুক্তিবিদ যুবক পেটের দায়ে সরকারের MNREGA প্রকল্পে দিনমজুরের কাজ করছেন৷ এই পরিস্থিতি বেঙ্গালুরুর৷

লকডাউনের জেরে বহু যুবক চাকরি হারিয়েছেন বেঙ্গালুরুতে৷ রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে কম বেশি ৫০ জন শিক্ষিত বেকার যুবক দৈনিক ২৭৫ টাকা মজুরিতে MNREGA প্রকল্পে কাজ করছেন৷ কেউ রাস্তা সারাচ্ছেন, কেউ ট্যাঙ্ক পরিস্কার করছেন, কেউ বিল্ডিংয়ের নর্দমা, কুয়ো সাফ করছেনবিদার জেলার MNREGA প্রকল্পের অতিরিক্ত ডিরেক্টর শরত্‍ কুমার অভিমান জানাচ্ছেন, এই সব যুবকেরা গরিব পরিবারের৷ লকডাউনের আগে এঁরা বেঙ্গালুরুতে নানা তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় ভালো মাইনের চাকরি করতেন৷

তাঁর কথায়, 'আমি আমার ফেসবুকে পেজে MNREGA প্রকল্পে কাজের জন্য বিজ্ঞাপন দিয়েছিলাম৷ প্রচুর শিক্ষিত বেকার যোগাযোগ করেছেন৷ বিদার জেলা পঞ্চায়েতের সিইও জ্ঞানেন্দ্র কুমার গঙ্গেশ্বরকে বিষয়টি জানাতেই, তিনি অবিলম্বে এই যুবকদের জব গ্যারান্টি কার্ড ও কাজ দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন৷'

প্রায় ২৫ জন শিক্ষিত বেকার কামাথানা গ্রাম পঞ্চায়েতে ক্যানেল পরিষ্কারের কাজ করছেন৷ হুমদাবাদ তালুকে কিছু ইঞ্জিনিয়ার যুবক কাজ করছেন৷

রামচন্দ্র নামে এক যুবক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক৷ তাঁর কথায়, 'লকডাউনের সময় বেকার হয়ে বাড়িতে বসেছিলাম৷ জানতে পারি, MNREGA প্রকল্পে দিনমজুর নেওয়া হচ্ছে৷ এই কঠিন সময়ে কিছু টাকা তো রোজগার হচ্ছে৷'

D P Satish

Published by: Arindam Gupta
First published: June 17, 2020, 6:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर