corona virus btn
corona virus btn
Loading

হামলা নিয়ে নয়া স্বীকারোক্তি JNU-র,তাহলে কি প্রথমে মিথ্যে বলেছিলেন উপাচার্য?

হামলা নিয়ে নয়া স্বীকারোক্তি JNU-র,তাহলে কি প্রথমে মিথ্যে বলেছিলেন উপাচার্য?
Photo- PTI

JNU-র ভাইস চ্যান্সেলর এম জগদীশ আগে দাবি করেছিলেন জানুয়ারির ৫ তারিখ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে যে ভাঙচুর হয়েছে তার বীজ আগের দিন পোঁতা হয়েছিল ,কারণ সেদি সার্ভাররুমে ভাঙচুর চালিয়েছিল বাম মনোভাবাপন্ন ছাত্র ইউনিয়ন

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সুকুমার রায়ের বিখ্যাত লাইন , ‘ছিল রুমাল হয়ে গেল বেড়াল’ - এ যেন অনেকটা তাই ৷ জানুয়ারির ৪ তারিখ ছাত্রনেতা ঐশী ঘোষ সহ একাধিক ছাত্রছাত্রীর ওপর হামলার ঘটনার ছবি দেখে কেঁপে উঠেছিল গোটা দেশ ৷ তারপরেই জেএনইউ -র ভিসি জানিয়েছিলেন সেই রক্তাত্ত রবিবারের গণ্ডগোলের সূত্রপাত আসলে আগের দিন হয়েছিল ৷ JNU ভিসি দাবি করেছিলেন ঠিক তার আগের দিন ৩ জানুয়ারি সার্ভার রুমে ভাঙচুর চালিয়েছিল বাম মনোভাবাপন্ন ছাত্র সংগঠনের একাধিক ছাত্র-ছাত্রী ৷ এই কথা কি তাহলে পুরোপুরি মিথ্যা ছিল ৷ এই প্রশ্নই এখন সামনে এসেছে ৷

জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে তাতে যা বয়ান দেওয়া হয়েছিল সম্প্রতি একটি আরটিআইয়ের উত্তর দিতে গিয়ে ১৮০ ডিগ্রি বয়ান বদল দেখা গেল৷ আরটিআইয়ের জবাবে বলা হয়েছে  ৩ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্ভাররুম ভাঙচুর করা হয়নি ৷ সিসিটিভি অক্ষত রয়েছ, অক্ষত রয়েছে বায়োমেট্রিক সিস্টেম ৷

আরও পড়ুন - চিনের করোনা ভাইরাসে ভারতে আতঙ্ক, করোনা ভাইরাস কী, ইতিমধ্যেই আমেরিকা পৌঁছে গেল

জানুয়ারির ৫ তারিখ বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে দায়ের করা এফআইআরে বলা হয়েছিল একদল ছাত্র সার্ভাররুম অর্থাৎ সেন্টার অফ ইনফরমেশন সিস্টেম (সিআইএস) -কাঁচের দরজা ভেঙেছিল ৷ সার্ভার ড্যামেজ করেছিল, সেটা আর যাতে কাজ করতে না পারে তা নিশ্চিত করা হয়েছিল৷ ফাইবার অপটিক্স ও বিদ্যুৎ পরিষেবাকেও ক্ষতিগ্রস্ত করা হয়েছিল ৷ ঘরের বায়োমেট্রিক ব্যবস্থাও ভেঙে ফেলা হয়েছিল ৷

RTI- ফাইল হয়েছিল  ‘life and liberty’ অর্থাৎ জীবন ও স্বাধীনতা ক্লজের অন্তর্গত বিভাগে ৷ সেখানেই উত্তর দিতে গিয়ে জেএনইউ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, জানুয়ারির ৩ তারিখ জেএনইউ -র সিআইএস বন্ধ ছিল বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের কারণে ৷ আর এরই জন্যে কোনও সিসিটিভি থেকেই নিরবিচ্ছিন ভাবে ভিডিও ফুটেজ পাওয়া সম্ভব  নয় ৷

Aishee ghosh

জানানো হয়েছে JNU -র উত্তর বা মেন গেট থেকে যে সিসিটিভি আছে তার থেকে জানুায়রির ৫ তারিখ ৩ টে থেকে রাত ১১ টা অবধি কোনও টানা ফুটেজ নেই ৷ কারণ সেদিনই বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আক্রান্ত হয়েছিল পড়ুয়া ও শিক্ষক-শিক্ষিকারা ৷ যারা এসেছিল তারা মুখ ঢেকে এসেছিল ৷

আরও দেখুন

Published by: Debalina Datta
First published: January 22, 2020, 10:13 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर