Home /News /national /
জামিয়া, আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশি অভিযান তদন্তের আরজি খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট

জামিয়া, আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশি অভিযান তদন্তের আরজি খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট

আরজি হাইকোর্টে পাঠিয়ে দিয়েছে শীর্ষ আদালত। ‘তথ্য খতিয়ে দেখার সময় নেই’, মন্তব্য প্রধান বিচারপতির।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া ও আলিগড়ের মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের উপর পুলিশি নিগ্রহে তদন্তের আরজি খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট। আরজি হাইকোর্টে পাঠিয়ে দিয়েছে শীর্ষ আদালত। ‘তথ্য খতিয়ে দেখার সময় নেই’, মন্তব্য প্রধান বিচারপতির। সুপ্রিম কোর্টে পিটিশন দায়ের করেছিল প্রাক্তনী সংসদ আর ২ পড়ুয়া। আহত পড়ুয়াদের চিকিৎসা আর পুলিশের বিরুদ্ধে তদন্তের আবেদনে মামলা করেছিল পড়ুয়ারা। প্রধান বিচারপতির এজলাসে শুনানি হওয়ার কথা ছিল। সোমবার সকালেই প্রধান বিচারপতির দ্বারস্থ হন ইন্দিরা জয়সিংহ, কলিন গঞ্জালভেসরা। প্রধান বিচারপতি জানিয়ে দেন, 'পড়ুয়া বলেই কেউ আইন-শৃঙ্খলা নিজের হাতে তুলে নেওয়ার ছাড়পত্র পেয়ে যায়নি। পরিস্থিতি ঠান্ডা হলেই এ বিষয়ে বিচার করতে হবে।’ পড়ুয়াদের পাশে দাঁড়িয়ে ঘটনার উচ্চপর্যায়ের তদন্তের দাবি করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নাজমা আখতার। অভিযোগ উড়িয়ে পডুয়াদের বিরুদ্ধে দুটি ধারায় মামলা করেছে পুলিশ। জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, রাতে দিল্লি পুলিশ ক্যাম্পাসে ঢুকে পড়ুয়াদের উপর নির্বিচারে লাঠিচার্জ করে ৷ আহত হন বহু পড়ুয়ারা ৷ আটক করা হয় ১০০-ওরও বেশি পড়ুয়াদের ৷ জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিবাদের রেশ আছড়ে পড়ল আলিগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটিতে৷ নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শুরু হয় প্রতিবাদ৷ শয়ে-শয়ে পড়ুয়ারা সামিল হন এই প্রতিবাদ বিক্ষোভে৷ তবে পুলিশের লাঠি চার্জ এবং টিয়ার গ্যাস ছোঁড়ায় পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়ে৷ জামিয়ার প্রতিবাদের কথা শুনেই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা৷ সকলে মিলে জমায়াত করেন বাবে স্যার সায়েদ গেটে এবং স্লোগান দিতে শুরু করেন৷ দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে শুরু হয় তাদের প্রতিবাদ৷ এরপরই পুলিশের ব্যাডিকেড ভাঙতে শুরু করেন পড়ুয়ারা৷ ক্যাম্পাসের প্রতিটি গেট আটকায় পুলিশ৷ পরিস্থিতি সামলাতে লাঠি চালায় পুলিশ৷ সঙ্গে কাঁদানে গ্যাসও ছোঁড়া হয়৷ এতেই পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে ওঠে৷

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: AMU Violence, CAA protest, Citizenship Amendment Act, Jamia milia islamia university, Supreme Court

    পরবর্তী খবর