অযোধ্যা মামলায় অধরা রফাসূত্র, ৬ অগাস্ট থেকে প্রতিদিন মামলার শুনানি, জানাল সুপ্রিম কোর্ট

৬ অগাস্ট থেকে সুপ্রিম কোর্টে প্রতিদিন চলবে অযোধ্যা মামলার শুনানি ৷

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 02, 2019 03:00 PM IST
অযোধ্যা মামলায় অধরা রফাসূত্র, ৬ অগাস্ট থেকে প্রতিদিন মামলার শুনানি, জানাল সুপ্রিম কোর্ট
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 02, 2019 03:00 PM IST

#নয়াদিল্লি: রাম জন্মভূমি না বাবরি মসজিদ, ১৫০ দিনেও হল না রফা ৷ ব্যর্থ মধ্যস্থতা ৷ এবার প্রতিদিনই মামলার শুনানির পথে শীর্ষ আদালত ৷ ৬ অগাস্ট থেকে সুপ্রিম কোর্টে প্রতিদিন চলবে অযোধ্যা মামলার শুনানি ৷ অযোধ্যায় বিতর্কিত জমির বিবাদ মেটাতে দুইপক্ষকেই কাগজপত্র তৈরির নির্দেশ দিয়েছে আদালত ৷

সুপ্রিম কোর্টের বর্তমান প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চে অযোধ্যা মামলার শুনানি চলছে ৷ শুধুমাত্র ১৫০০ স্কোয়ার ফিট জমি সংক্রান্ত সমস্যাই নয় ৷ এই বিষয়টির সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে সাধারণ মানুষের আবেগ ৷

সুপ্রিম কোর্টের বর্তমান প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চে অযোধ্যা মামলার শুনানি ৷ অযোধ্যা মামলায় মধ্যস্থতার প্যানেলের নেতৃত্বে ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এফএম খলিফুল্লা। অপর দুই সদস্যের মধ্যে রয়েছেন ধর্মগুরু শ্রী শ্রী রবিশংকর ও আইনজীবী শ্রীরাম পাঁচু।

একনজরে দেখে নেওয়া যাক অযোধ্যার জমি বৃত্তান্ত।

জমি বৃত্তান্ত

Loading...

বাবরি মসজিদ ছিল ০.৩১৩ একর জমিতে ৷ ১৯৪৯-এর ২২ ডিসেম্বর মধ্যরাতে মসজিদের প্রধান গম্বুজের নিচে রামলালার মূর্তি বসানো হয় ৷ দাবি, ওখানেই রামের জন্ম হয়েছিল ৷ ১৯৯১-এ কল্যাণ সিং সরকার বিতর্কিত এলাকা ঘিরে মোট ২.৭৭ একর জমি অধিগ্রহণ করে ৷ লক্ষ্য পূণ্যার্থীদের সুবিধাদান ও পর্যটনের উন্নয়ন ৷ ১৯৯২-এর ৬ ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ ধ্বংস হয় ৷ ১৯৯৩-এ উত্তরপ্রদেশে রাষ্ট্রপতি শাসনের মধ্যেই কেন্দ্রের নরসিমা রাও সরকার ওই ২.৭৭ একর জমিকে ঘিরে মোট ৬৭.৭০৩ একর অধিগ্রহণ করে ৷ আশপাশের এলাকা ছিল মূলত হিন্দুদের ৷ ন্যাসের কাছে ছিল ৪২ একর ৷ প্রথমে অর্ডিন্যান্স জারি হয়ে পরে সংসদে আইন পাশ হয় ১৯৯৪-এ আইনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মামলা ৷ সুপ্রিম কোর্টে রায়, বাবরি মসজিদের ০.৩১৩ একর জমির অধিকার দাবি মুসলিমদের মামলায় জিতে মুসলিমদের অধিকার কায়েম করতে যাতে অসুবিধা না হয়, সেজন্য আশেপাশের জমি সরকারের হাতে থাকে ৷ ২০০৩-এ ঘেরা জমিতে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ শিলা পুজোর প্রস্তুতি নিলে মামলা যায় উচ্চ আদালতে ৷ রায় আসে ঘেরা জমিতে কোনও ধর্মীয় অনুষ্ঠান হবে না ৷

First published: 02:46:27 PM Aug 02, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर