Oxygen crisis: ব্যাংকক থেকে ১৮ অক্সিজেন ট্যাঙ্কার, ফ্রান্স থেকে ২১ অক্সিজেন প্লান্ট আমদানি! চরম সঙ্কটে সিদ্ধান্ত কেজরিওয়ালের

Oxygen crisis: ব্যাংকক থেকে ১৮ অক্সিজেন ট্যাঙ্কার, ফ্রান্স থেকে ২১ অক্সিজেন প্লান্ট আমদানি! চরম সঙ্কটে সিদ্ধান্ত কেজরিওয়ালের

Arvind kejriwal- photo courtesy/pti

দিল্লিতেও বিগত কয়েকদিন ধরে অক্সিজেনের ঘাটতিতে (Oxygen crisis) অবস্থা বেশ গুরুতর। আর তাই এবার অন্য দেশের থেকে সাহায্য নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দিল্লি মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal)।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের (Second wave corona) দাপটে জেরবার অবস্থা গোটা দেশের মানুষের। সংক্রমণ এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে অক্সিজেনের ঘাটতি হাহাকার দেশ জুড়ে। দিল্লিতেও বিগত কয়েকদিন ধরে অক্সিজেনের ঘাটতিতে (Oxygen crisis) অবস্থা বেশ গুরুতর। আর তাই এবার অন্য দেশের থেকে সাহায্য নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দিল্লি মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal)।

    মঙ্গলবার কেজরিওয়াল বলেন, ব্যাংকক (Bangkok) ও ফ্রান্স (France) থেকে ১৮টি অক্সিজেন ট্যাঙ্কার ও ২১টি অক্সিজেন প্লান্ট আমদানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দিল্লি সরকার। রাজধানীতে অক্সিজেন ঘাটতি মেটাতেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানান তিনি।

    এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, দিল্লি সরকার ব্য়াংকক থেকে ১৮টি অক্সিজেন ট্যাঙ্কার আমদানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামীকাল থেকেই আসা শুরু হবে। এর জন্য বায়ুসেনার বিমান ব্যবহার করার অনুরোধ করেছি আমরা কেন্দ্রকে। কথাবার্তা চলছে। আমি আশাবাদী যে বিষয়টি সফল হবে।

    অক্সিজেন প্লান্ট সম্পর্কে কেজরিওয়াল বলেন, ফ্রান্স থেকে আমরা ২১টি অক্সিজেন প্লান্ট আমদানি করছি। সেগুলি আমদানি করার সঙ্গে সঙ্গে ব্যবহার করা যাবে। বিভিন্ন হাসপাতালে এগুলি ইনস্টল করা হবে। হাসপাতালে অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে এগুলি সাহায্য করবে। তিনি আরও বলছেন, পরের মাসে ৪৪টি অক্সিজেন প্লান্ট পাবো আমরা। যার মধ্যে ৮টি কেন্দ্র দেবে আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্য়েই। আর ৩৬টি দিল্লি সরকার ইনস্টল করবে।

    বিগত কয়েকদিনে অন্যান্য রাজ্যগুলির কাছেও অক্সিজেনের সাহায্য চেয়েছেন কেজরিওয়াল। তিনি বলছেন, বিগত কয়েকদিনে আমি বহু শিল্পপতি ও অন্যান্য রাজ্যসরকারের কাছে সাহায্য চেয়েছি। সবার থেকে সাহায্য ও সমর্থন পেয়েছি। এই সঙ্কটে যারা দিল্লি সরকারের পাশে দাঁড়াচ্ছে তাদের ধন্যবাদ।

    প্রসঙ্গত, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ২৩ হাজার ১৪৪ জন। এই বৃদ্ধির জেরে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৭৬ লক্ষ ৩৬ হাজার ৩০৭ জন। আমেরিকার পর ভারত এখন দ্বিতীয় দেশ যেখানে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ পেরিয়েছে। বর্তমানে আমেরিকার থেকে ভারতে অনেক বেশি দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস৷

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published:

    লেটেস্ট খবর