• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • বন্ধ দিল্লি-গাজিয়াবাদ রোড, কৃষক নৈরাজ্যের সপ্তম দিনে কথা অমরেন্দ্র-শাহর

বন্ধ দিল্লি-গাজিয়াবাদ রোড, কৃষক নৈরাজ্যের সপ্তম দিনে কথা অমরেন্দ্র-শাহর

দিল্লির পরিস্থিতি উত্তপ্ত। আজ কি সমাধান হবে সমস্যার?

দিল্লির পরিস্থিতি উত্তপ্ত। আজ কি সমাধান হবে সমস্যার?

আপাতত বন্ধ দিল্লি গাজিয়াবাদ রোড। আংশিক ভাবে খোলা দিল্লি-নয়ডা লিঙ্ক রোড। আজ কৃষকদের সঙ্গে ঐক্যমতে আসা যায় কিনা সেই দিকেই তাকিয়ে গোটা দেশ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: সাত নম্বর দিনে পড়ল নয়া কৃষক আইন নিয়ে বিদ্রোহ। আজ পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংহ-এর সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ইতিমধ্যেই অমিত শাহর বাড়িতে পৌছেছেন তিনি পাশাপাশি কৃষক সংগঠনগুলির সঙ্গেও আজ বৈঠকে বসতে চলেছে কেন্দ্র। কেন্দ্রের আশ্বাস, নয়া কৃষি আইন সংশ্লিষ্ট প্রতিটি বিষয় নিয়ে কৃষকদের সঙ্গে কথা বলবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীবর্গ। তার আগে সাত নম্বর দিনেও কৃষক বিদ্রোহে নৈরাজ্যের পরিস্থিতি দিল্লিতে। আপাতত বন্ধ দিল্লি গাজিয়াবাদ রোড। আংশিক ভাবে খোলা দিল্লি-নয়ডা লিঙ্ক রোড। আজ কৃষকদের সঙ্গে ঐক্যমতে আসা যায় কিনা সেই দিকেই তাকিয়ে গোটা দেশ।

    কেন্দ্রের সঙ্গে বিক্ষুব্ধ কৃষকদের প্রথম দফার বৈঠক ব্যর্থ হয়েছে। কৃষক সংগঠনগুলি ফিরিয়ে দিয়েছে কেন্দ্রে প্রস্তাব। তাদের প্রশ্ন ছিল এই আইন ।এ প্রয়োজন এমন দাবি তাঁরা কখনও জানাননি, তাহলে আইন এল কার কথায়?

    এই আবহে রেভলিউশনারি কৃষি ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট দর্শন পাল ইতিমধ্যেই বলছেন, বিশেষ সংসদ অধিবেশন করে এই আইন প্রত্যাহার করতে হবে। আগামী ৫ ডিসেম্বরে মধ্যে যদি তাদের দাবিদাওয়া পালিত না হয় তবে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালিত হবে। লোকসংঘর্ষ মোর্চাও দ্বার্থ্যহীন ভাষায় বলছে আজই শেষ সুযোগ কেন্দ্রের।

    এই পরিস্থিতিতে কোন পথে সমাধানসূত্র বেরোবে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন সব পক্ষই। রাহুল গান্ধি বলতে শুরু করেছেন, 'ঝুট কি লুঠ কি সুট-বুট কি সরকার।' কোথাকার জল কোথায় গড়ায় সেটাই এখন দরকার।

    Published by:Arka Deb
    First published: